ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

‘অস্ত্র রেখে এসো, শুনতে চাই- কেন তোমার এত কষ্ট’

নোমান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৩-১৪ ৭:২৭:১৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৩-১৫ ৯:৪৭:০৫ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট : হামলার শিকার হয়ে ঢাকার সিএমএইচে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে ১১ দিন পর নিজ ক্যাম্পাসে ফিরেই শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আনন্দঘন মুহূর্ত কাটালেন জনপ্রিয় লেখক, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল।

বুধবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তমঞ্চে ‘সাদাসিধে কথা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাকে ক্যাম্পাসে বরণ করে নেন শিক্ষার্থীরা। অনুষ্ঠানের শুরুতে নিজেদের কথা ব্যক্ত করেন শিক্ষার্থীরা। ড. জাফর ইকবালের স্ত্রী অধ্যাপক ইয়াসমিন হক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমদের বক্তব্য শেষে উপস্থিত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে কথা বলতে মাইক হাতে নেন জাফর ইকবাল।

শুরুতেই তিনি ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘‘দেশের মানুষ, আমার প্রিয় ছাত্র-ছাত্রীরা আমাকে কতটা ভালোবাসা দিয়েছে, তা আমি ফিরিয়ে দিতে পারব না। আমি তাদের আজীবন ভালোবাসবো। আমি জানি না কীভাবে তোমাদের ভালোবাসার প্রতিদান দেব।’ তিনি স্রষ্টার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘‘আল্লাহ আমাকে বাঁচিয়েছেন। নিশ্চয় তিনি আমাকে দিয়ে ভালো কিছু করাতে চান।’’

এ সময় তিনি উপস্থিত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘‘তোমরা দেখিয়েছ ম্যাচিউড ছেলেমেয়ে হলে কী করতে হয়। এখানে বসেছিলাম আমরা, যখন আমাকে আঘাত করা হয়েছিল, তার জন্য আমার বিন্দুমাত্র রাগ নেই। মায়া আছে, করুণা আছে। কেন এটা করেছ? বেহেশতে যাবে বলে? এটা তার মাথায় ঢুকানো হয়েছে। একজন মানুষ কত দুঃখী হতে পারে, যার মনে হয়, একজনকে মেরে বেহেশতে যাবে। পৃথিবীতে তাকিয়ে দেখ- কী সুন্দর। এ সুন্দর পৃথিবীর কিছুই সে দেখে না, জানে না। কেবল জানে একজনকে মারলে বেহেশতে যাব।’’

তিনি বলেন, ‘‘এখানেও একজন হয়ত আছে। যে ভাবছে, পারলাম না, আরেকবার অ্যাটেম নিতে হবে। তার উদ্দেশে বলছি, আমার সঙ্গে কথা বলতে এসো। অস্ত্রটা বাসায় রেখে এসো। আমি শুনতে চাই, কেন তোমার এত কষ্ট।’’

পবিত্র কুরআনের আয়াতের উদ্ধৃতি দিয়ে জাফর ইকবাল বলেন, ‘‘কুরআন শরিফে আছে- তুমি যদি একজন মানুষকে হত্যা কর, তবে সমগ্র মানবজাতিকে হত্যা করলে। যারা তোমাকে বুঝাচ্ছে, তারা বিভ্রান্ত করছে।’’

তিনি আরো বলেন, ‘‘কুরআনে আরও বলা হয়েছে- তুমি যদি একটা মানুষকে  বাঁচাও, তাহলে সমগ্র মানবজাতিকে বাঁচিয়েছ। যারা আমাকে এখান থেকে তুলে হাসপাতালে পাঠিয়েছ। তারা সমগ্র মানবজাতিকে বাঁচিয়েছ।’’

জাফর ইকবাল বলেন, ‘‘যারা বিভ্রান্তির পথে রয়েছ, তারা এসো- আমরা সামনাসামনি কথা বলব। তোমাদের বিভ্রান্তি দূর করা প্রয়োজন।’’

এর আগে বুধবার সকালে জাফর ইকবালের চিকিৎসার সঙ্গে সম্পৃক্ত সামরিকবাহিনীর কর্মকর্তারা তাকে সিএমএইচে বিদায় জানান। তাকে আগামী সাত দিনের জন্য পূর্ণবিশ্রামের পরামর্শ দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

সেখান থেকে বেলা ১২টা ৪৫ মিনিটে নভোএয়ারের একটি বিমানে সিলেটে বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান তিনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমদ এবং কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. ইলিয়াস উদ্দিন বিশ্বাস সেখানে তাকে স্বাগত জানান।

গত ৩ মার্চ শনিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তমঞ্চে ট্রিপল-ই বিভাগের একটি অনুষ্ঠানে জাফর ইকবালকে এক যুবক ছুরিকাঘাত করে।

ঘটনার পর আহত অবস্থায় জাফর ইকবালকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়। 



রাইজিংবিডি/সিলেট/১৪ মার্চ ২০১৮/নোমান/বকুল

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC