ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ ভাদ্র ১৪২৪, ২২ আগস্ট ২০১৭
Risingbd
শোকাবহ অগাস্ট
সর্বশেষ:

আত্মঘাতী যুবককে ছেলে দাবি করা নারী মানসিক ভারসাম্যহীন

কুমার শুভ রায় : রাইজিংবিডি ডট কম
প্রকাশ: ২০১৭-০৩-১৯ ৭:২৭:৫৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৩-১৯ ৭:২৭:৫৩ পিএম

পিরোজপুর প্রতিনিধি : ঢাকার আশকোনায় র‌্যাবের নির্মাণাধীন সদর দপ্তরে  আত্মঘাতী বিস্ফোরণে নিহত যুবককে নিজের ছেলে দাবি করা নারী মানসিক ভারসাম্যহীন বলে তার পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন।

প্রায় ১০ বছর আগে এ নারীর এক ছেলে মারা যাওয়ার পর থেকে তিনি কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন। আমিরূন বেগম নামের এ নারীর বাড়ি পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার দক্ষিণ চিংগুরিয়া গ্রামে।

আমিরূন বেগমের স্বামী দিনমজুর নুরুল ইসলাম হাওলাদার (৬০), তার দুই ছেলে শহিদুল ইসলাম (৪০) ও রফিকুল ইসলামকে (৩৫) শনিবার দুপুরের পরে আইনশঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয়ে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়। 

ভান্ডারিয়া উপজেলার দক্ষিণ চিংগুরিয়া গ্রামের বাসিন্দা নূরুল ইসলাম হাওলাদারের স্ত্রী আমিরূন। নূরুল ইসলাম হাওলাদারের দুই ছেলের নাম শহিদুল ইসলাম ও রফিকুল ইসলাম। আরেক ছেলে ফারুক হোসেন প্রায় ১০ বছর আগে মারা যায়। এ ছেলের মৃত্যুর পর থেকে কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ে মা আমিরূন। মানসিক ভারসাম্যহীন আমিরূন মাঝে-মধ্যে বিভিন্ন জায়গায় তার ছেলেকে খুঁজতে যায়। আমিরূন ১০-১২ দিন পূর্বে বাড়ি ছেড়ে চলে যায় বলে জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা। তবে কীভাবে ঢাকায় গেল  সেই বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।

আমিরূন বেগমের স্বামী নুরুল ইসলামের দ্বিতীয় স্ত্রী নিরু বেগম জানান, পূর্বে তার স্বামী কাঠমিস্ত্রির কাজ করতেন। বর্তমানে তিনি দিনমজুরের কাজ করেন। তার স্বামীর প্রথম স্ত্রী আমিরুনের তিন সন্তান শহিদুল, রফিকুল এবং ফারুক হোসেন। ১০-১২ বছর পূর্বে ফারুক চট্টগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যায়। এরপর থেকেই মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে আমিরূন এবং যাকে দেখে তাকেই তার ছেলে মনে করে জড়িয়ে ধরে।

তিনি আরো জানান, শনিবার দুপুর সাগে ৩ টার দিকে কলোনি বাজার থেকে সাদা পোশাকে আইনশৃক্ষলা বাহিনীর পরিচয়ে প্রথমে শহিদুলকে এবং পরবর্তীতে নুরুল এবং তার অন্য ছেলে রফিকুলকে ধরে নিয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানান, দুপুরের পরে এ তিনজনকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এ ঘটনার বিষয়ে কিছু বলতে পারেননি ভান্ডারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.  কামরুজ্জামান তালুকদার।

গত শুক্রবার জুমার নামাজের আগে আশকোনায় নির্মাণাধীন র‌্যাব সদর দপ্তরের অস্থায়ী ক্যাম্পে আত্মঘাতী হামলায় প্রায় ২৫ বছর বয়সী এক যুবক নিহত হয়।

পরদিন সকালে পিরোজপুরের এক মহিলা র‌্যাবের কাছে গিয়ে নিহত যুবককে নিজের ছেলে বলে দাবি করে। পরে ওই নারীকে ভান্ডারিয়া উপজেলার চিংগুড়িয়া গ্রামের আমিরুন বিবি হিসেবে শনাক্ত করে র‌্যাব।

র‌্যাব-৮ সূত্র জানিয়েছে, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নুরুল ইসলামসহ কয়েকজনকে ডেকে নেওয়া হয়। তবে আশকোনায় আত্মঘাতী হামলায় নিহত ওই যুবক তাদের স্বজন নয়- নিশ্চিত হওয়ার পর তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।



রাইজিংবিডি/পিরোজপুর/১৯ মার্চ ২০১৭/কুমার শুভ রায়/বকুল

Walton Laptop