ঢাকা, শনিবার, ৫ কার্তিক ১৪২৫, ২০ অক্টোবর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

এখনো ব্লগার অনন্ত হত্যার বিচার শুরু হয়নি

নোমান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৫-১২ ৯:১৮:৫৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৫-১৩ ৮:৩৫:৪০ এএম

সিলেট সংবাদদাতা : বিজ্ঞানবিষয়ক লেখন ও ব্লগার অনন্ত বিজয় দাশ হত্যার তিন বছরেও মামলার বিচার শুরু হয়নি।

এই সময়ে দুই দফায় মামলার তদন্ত হয়েছে। আদালতে চার্জশিটও গৃহীত হয়েছে। ছয় আসামির তিনজন এখনো পলাতক, যাদের হদিস পায়নি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

তবে আগামী সোমবার মামলার ধার্য তারিখে বিচার শুরু হবে এবং ওই দিন চার্জ গঠন হবে বলে জানিয়েছেন সিলেটের পাবলিক প্রসিকিউটর মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ।

তিনি জানান, তদন্ত শেষে আলোচিত এই মামলার অভিযোগপত্র এরই মধ্যে আদালতে দাখিল হয়েছে। জঙ্গিদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হয়েছে। সোমবার ধার্য তারিখে মামলার বিচার শুরু হতে পারে। মামলাটি যাতে দ্রুত নিষ্পত্তি হয়, রাষ্ট্রপক্ষ সেই বিষয়ে তৎপর রয়েছে।

২০১৫ সালের ১২ মে সকালে সিলেট নগরের সুবিদবাজারে নিজ বাসার কাছেই ব্লগার অনন্ত বিজয় দাশকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এই ঘটনায় নিহতের সহোদর রত্মেশ্বর দাশ বাদী হয়ে মহানগর পুলিশের বিমানবন্দর থানায় অজ্ঞাতনামা চারজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। নিহত অনন্ত নুরানী ১৩/১২নং বাসার রবীন্দ্র কুমার দাশের ছেলে। আজ শনিবার অনন্ত হত্যার তিন বছর পূর্তি।

আদালত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ব্লগার অনন্ত বিজয় দাস হত্যার ঘটনায় ২০১৬ সালের ২৮ আগস্ট পাঁচজনকে আসামি অভিযোগপত্র আদালতে জমা দেয় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি। মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ২য় আদালতের বিচারক একই বছরের ২ অক্টোবর দাখিলকৃত অভিযোগপত্র ও সাক্ষ্য প্রমাণ পর্যালোচনা করে মামলার বিচার ও অভিযোগপত্র দাখিল সন্ত্রাসবিরোধী আইনের আলোকে প্রদান সমীচীন বলে সম্পূরক অভিযোগপত্র দাখিলের পর্যবেক্ষণ দেন।

আদালতের এই পর্যবেক্ষণের পর ২০১৭ সালের ১৮ জানুয়ারি ছয়জনের বিরুদ্ধে সম্পূরক অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। সন্ত্রাসবিরোধী (সংশোধন) আইনের ধারায় দেওয়া এই অভিযোগপত্রের পাঁচ আসামি প্রথম দফায় দেওয়া অভিযোগপত্রের আসামি। তাদের বিরুদ্ধে পৃথক আইনে বিচার হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

আসামিদের সকলেই বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনের সদস্য। তারা হচ্ছেন- কানাইঘাট উপজেলার ফালজুর গ্রামের আবুল হোসেন (২৫), মান্নান ইয়াহইয়া (২৪), আবুল খায়ের রশিদ আহম্মেদ (২৪), একই উপজেলার খালপাড় তালবাড়ী গ্রামের ফয়সাল আহমেদ (২৭), তাহিরপুর উপজেলার বিরেন্দ্রনগর গ্রামের হারুন অর রশিদ (২৫) ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কালীশ্রীপাড়া গ্রামের সফিউর রহমান ফারাবী (৩০)।

বর্তমানে অভিযোগপত্রভুক্ত তিন আসামি কারাগারে রয়েছে। বাকি তিন আসামি  আবুল হোসেন, ফয়সাল আহমেদ ও হারুন রশিদ পলাতক। পলাতক তিন আসামির হদিস পায়নি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

অনন্ত হত্যা্র তিন বছর পূর্ণ হওয়ার দিনে শনিবার ঘটনাস্থল নির্মিত কালো দেয়ালচিত্র সাদা করে তাতে ফুল দিয়ে তাকে স্মরণ করেছেন বিশিষ্টজনেরা। এ সময় তারা অনন্ত হত্যা মামলার দ্রুত বিচার করে খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান।

দেয়ালচিত্র স্থাপনের উদ্যোক্তা আইনজীবী মইনুদ্দিন আহমদ জালাল, অনন্ত বিজয় দাসের ভগ্নিপতি সমর বিজয় সী শেখর, সিলেট সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদ, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আবদুল করিম চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।



রাইজিংবিডি/সিলেট/১২ মে ২০১৮/নোমান/বকুল

Walton Laptop
 
     
Walton