ঢাকা, বুধবার, ১০ শ্রাবণ ১৪২৪, ২৬ জুলাই ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

কলমাকান্দায় ১০ জনের কাঠের সেতু

ইকবাল হাসান : রাইজিংবিডি ডট কম
প্রকাশ: ২০১৭-০৫-১৩ ১১:৩২:১৭ এএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৫-১৩ ১১:৩২:১৭ এএম

নেত্রকোনা প্রতিনিধি : নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলার লেংগুড়া ইউনিয়নে এলাকাবাসীর পারাপারের জন্য পাহাড়ি গনেশ্বরী নদীতে স্থানীয় ১০ জন ব্যক্তির নিজস্ব অর্থায়নে একটি কাঠের সেতু নির্মাণ করা হয়েছে।

এই সেতু দিয়ে ইউনিয়নের প্রায় ১০ গ্রামের মানুষ চলাচল করছে। এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দুর্ভোগের অবসান হয়েছে সেতুর কারণে। স্থানীয় লেঙ্গুরা ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান ভুইয়া উদ্যোগী হয়ে এলাকার সমাজকর্মীদের নিয়ে গণেশ্বরী নদীর ওপর কাঠের সেতু নির্মাণ করেন। ইউপি সদস্য মো. দুদু মিয়া, এলাকাবাসী চানু মিয়া, মানিক মিয়া, আলী নেওয়াজ, ফারুক, মিনু মিয়া, কাঞ্চন মিয়া, আবু মিয়া ও হাদু মিয়ার অক্লান্ত পরিশ্রমে গড়ে ওঠেছে এই সেতু।

স্থানীয়রা জানায়, জেলার কলমাকান্দা উপজেলার সবচেয়ে বেশি অনুন্নত ও অবহেলিত লেংগুড়া ইউনিয়ন। এই ইউনিয়নের রয়েছে মুক্তিযুদ্ধে জীবনদানকারী সাত শহীদের কবরস্থান। কবরস্থানের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে পাহাড়ি নদী গণেশ্বরী। ভারত থেকে আসা প্রায় ৪০০ ফুট প্রশস্থ নদীটি কলমাকান্দা থেকে আলাদা করে রেখেছে লেংগুড়া ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষকে। নদীর ওপর একটি সেতুর অভাবে পার্শ্ববর্তী খারনৈ ইউনিয়নের- উত্তর রানীগাঁও, দক্ষিণ রানিগাঁও, লেঙ্গুরা ইউনিয়নের-লেঙ্গুরা, ফুলবাড়ি, উত্তর গোড়গাঁও, দক্ষিন গোড়াগাঁও, গোপালবাড়ি চিংনী, চৌতানগর, কাটালবাড়ি, কান্দাপাড়া, জিকাতলা, তারানগর, শিবপুরসহ  অন্তত ২০ গ্রামের মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি ওই নদীর ওপর একটি পাকা সেতু নির্মাণ। কিন্তু কেউ এ ব্যাপারে উদ্যোগী হয়নি। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান ভুইয়া এবার নির্বাচিত হওয়ার পর এলাকাবাসী তার কাছে দাবি জানায়। তিনি এলাকাবাসীর দাবির পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় ১০ জনকে নিয়ে সাড়ে ৪০০ ফুট দীর্ঘ ও ৬ ফুট প্রশস্থ কাঠের সেতু নির্মাণ করেন। এতে তাদের খরচ হয়েছে প্রায় ৭ লাখ টাকা। সময় লেগেছে প্রায় এক মাস।

এই ইউনয়িনে রয়েছে অনেকগুলো প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ কওমি মাদ্রাসা ও একটি মহিলা মাদরাসা। বর্ষাকালে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে পানিতে নদী কানায় কানায় ভরে যায়। এতে করে এলাকার বিভিন্ন গ্রামের ছাত্র-ছাত্রীরা অনেক সময় নদী পার হয়ে সঠিক সময়ে বিদ্যালয়ে যেতে পারে না। এলাকার কৃষকেরা বহু কষ্টে তাদের উৎপাদিত ফসল ধান, চাল, গম, সবজি সঠিক সময়ে বাজারে নিতে পারে না। এই সেতুর কারণে দুর্ভোগ অনেকটা লাঘব হলেও এখানে একটি পাকা সেতু নির্মাণের দাবি এলাকাবাসীর।

লেঙ্গুরা ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান ভুইয়া বলেন, নদীটি পার হতে এলাকার হাজার হাজার মানুষের দুর্ভোগ পোহাতে হতো। এলাকাবাসী দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছেন, কিন্তু কোনো কাজ হচ্ছে না। এবার চেয়ারম্যান হওয়ার পর সবাই আমাকে বললেন একটা কিছু করার জন্য। তাই আমার সমমনাদের নিয়ে আমাদের নিজের টাকায় এই সেতুটি নির্মাণ করেছি।

 

 

রাইজিংবিডি/নেত্রকোনা/১৩ মে ২০১৭/ইকবাল হাসান/এসএন

Walton Laptop