ঢাকা, শনিবার, ৭ শ্রাবণ ১৪২৪, ২২ জুলাই ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

চুনারুঘাটে ১৭৫ শকুনের বাস

মামুন চৌধুরী : রাইজিংবিডি ডট কম
প্রকাশ: ২০১৬-০৯-০৬ ৮:২৫:৪০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০২-১২ ১:৩০:৩০ পিএম

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের চুনারুঘাটের কালেঙ্গা বন্যপ্রাণি অভয়ারণ্যের রেমার ময়নাবিলে প্রায় ১৭৫টি শকুন রয়েছে।

 

আজ সোমবার চুনারুঘাটে আন্তর্জাতিক শকুন সচেতনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সভায় এ তথ্য জানানো হয়।

 

সভায় জানানো হয়, সারাদেশে শকুনের সংখ্যা প্রায় ২৫০। এর মধ্যে জেলার চুনারুঘাটের কালেঙ্গা বন্যপ্রাণি অভয়ারণ্যের রেমার ময়নাবিলে প্রায় ১৭৫টি শকুন বসবাস করছে।

 

৫ সেপ্টেম্বর আন্তর্জাতিক শকুন সচেতনতা দিবস উপলক্ষে আইইউসিএন বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ বন বিভাগের আয়োজনে হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট বন অফিসের উদ্যোগে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

সভায় সিলেট বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আরএসএম মুনিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও  আইইউসিএন প্রোগ্রামের সহকারী জিনিফার আজমীরির উপস্থাপনায় এতে প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় বনসংরক্ষক অফিসার অপনিভূষণ ঠাকুর।

 

বিশেষ অতিথি ছিলেন মৌলভীবাজারের বন কর্মকর্তা ও বন্যপ্রাণী প্রকৃৃতি সংরক্ষণের মিহির কুমার দো, জেলা সহকারী বনসংরক্ষক এজেডএম হাছানুর রহমান, চুনারুঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের, ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ লুৎফুর রহমান মহালদার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) তন্ময় ইসলাম।

 

সভায় শকুন রক্ষায় স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ বনবিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়।

 

সূত্র জানায়, দেশে হুমকির মুখে রয়েছে পরিবেশবান্ধব শকুন। রেমার ময়নাবিলে শকুন রক্ষায় একযোগে কাজ করছে আইইউসিএন, বন বিভাগ, বন্যপ্রাণি ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ, ক্রেল, সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটি (সিএমসি)। এতে ময়নাবিলে দিন দিন শকুনের বিচরণ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

 

আইইউসিএনের পক্ষ থেকে প্রতি ৭-১০ দিনে শকুনের খাবারের জন্য একটি করে গরু দেওয়া হচ্ছে। নিরাপদে শকুন বসবাসে এখানে নানা প্রজাতির ২৩৭টি উঁচু গাছ রেডমার্ক করা হয়েছে যাতে কোনো সময় কাটা না হয়। এসব গাছে শকুন বাসা তৈরি করে বাচ্চা জন্ম দিচ্ছে। শকুনের অভয়াশ্রম তৈরিতে ময়নাবিলের রাস্তাগুলো কাঁটাতার দিয়ে বেড়া দেওয়া হয়েছে।

 

 

রাইজিংবিডি/হবিগঞ্জ/৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬/মামুন চৌধুরী/মুশফিক

Walton Laptop