ঢাকা, শুক্রবার, ৬ মাঘ ১৪২৩, ২০ জানুয়ারি ২০১৭
Risingbd
 
সর্বশেষ:

জনসমুদ্রে পরিণত হবে মঙ্গলবারের জনসভা : আ.লীগ

এনআর : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০১-০৯ ৭:১২:৩০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০১-০৯ ৭:১২:৩০ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনের পর নতুন কমিটির নেতৃত্বে মঙ্গলবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের প্রথম জনসভা জনসমুদ্রে পরিণত হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন দলটির নীতিনির্ধারকরা।

জনসভায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা জাতীয় নির্বাচনসহ দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি দিক-নির্দেশনামূলক বার্তা দেবেন। ইতোমধ্যে জনসভাস্থলে মঞ্চসহ অন্যান্য কাজ শেষের দিকে।

১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার এ জনসভা অনুষ্ঠিত হবে।

গত ১৯ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভার কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

সেদিন তিনি বলেন, আগামী ১০ জানুয়ারি ইতিহাসের মহানায়ক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের দিন আমরা একটি জনসভা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ দিন বেলা ২টা ৩০ মিনিট থেকে জনসভা শুরু হবে। আমরা আশা করছি এটি ঐতিহাসিক জনসভায় রূপ নেবে। আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওই জনসভায় দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখবেন।

সোমবার বিকেলে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভাস্থল পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুর কাদের বলেন, আমাদের প্রস্তুতি খুব ভালো। এবার খুব প্রশস্ত জায়গা ঠিক করেছি। আশা করছি, এখানে কয়েক লাখ লোকের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতিতে জনসভা জনসমুদ্রে পরিণত হবে। ঐতিহাসিক ১০ জানুয়ারি উপলক্ষে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢাকাসহ পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে কয়েক লাখ মুজিবপ্রেমী, বঙ্গবন্ধুপ্রেমী ও বঙ্গবন্ধুর সৈনিকরা সমবেত হবেন।

তিনি আরও বলেন, ২০তম জাতীয় সম্মেলনের পর আমাদের এটাই প্রথম জনসভা। আমাদের নেত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা আগামীকাল নীতি-নির্ধারণী ও দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখবেন। এছাড়া উন্নয়নের মহাসড়কে যেমন আমাদের অভিযাত্রা চলছে, তেমনি এগিয়ে যাওয়ার পথে কিছু বাধাও আছে। এই অপশক্তিকে প্রতিহত ও পরাজিত করার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি আগামীকাল দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখবেন।

সোমবার জনসভাস্থল পরিদর্শনে দেখা যায়, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভা মঞ্চটি করা হয়েছে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের পাশে। মঞ্চটি স্থাপন করা হয়েছে দক্ষিণমুখী করে। মঞ্চের সামনে প্রয়োজনীয় ফাঁকা স্থান রেখে নেতাকর্মীদের কয়েক স্তরে বসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর জনসভা উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসাধারণের প্রবেশে এখন কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। বরাবরের মতো এবারও আইবির গেট দিয়ে প্রধানমন্ত্রীসহ ভিআইপিরা এবং বাকি চারটি গেট দিয়ে জনসভায় আগত নেতাকর্মীরা প্রবেশ করবেন।

আওয়ামী লীগ কর্মসূচি ঘোষণার পর জনসভাকে সফল করার লক্ষ্যে ধারাবাহিকভাবে যৌথসভা, লিফলেট বিতরণসহ বিভিন্ন প্রচার-প্রচারণা করে। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ, সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনগুলোর সঙ্গে একের পর এক সভা করেছেন। এছাড়াও ঢাকার পার্শ্ববর্তী জেলা, উপজেলার সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক, পৌরসভার দলীয় মেয়র  এবং সংসদ সদস্যদের নিয়ে যৌথসভা করেছেন।

এছাড়াও আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক গত শুক্রবার রাজধানীর কয়েকটি স্থানে লিফলেট বিতরণ করেন। এ সময় মহানগর নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

রোববার আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় শ্রমিক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনসভা সফল করার আহ্বান জানান।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৯ জানুয়ারি ২০১৭/এনআর/মুশফিক