ঢাকা, রবিবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

জামালপুরে শিক্ষকের বেত্রাঘাতে ১০ শিক্ষার্থী আহত

সেলিম আব্বাস : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৩-০৮ ৭:৪৫:১২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৩-০৯ ১১:০৯:৫০ এএম

জামালপুর সংবাদদাতা : টিফিনের সময় বাইরে গিয়ে দেরিতে ফেরার কারণে শিক্ষকের বেত্রাঘাতে আহত হয়ে ১০ শিক্ষার্থী এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার দুপুরে জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় বাহাদুরাবাদ এ রব আলিম মাদ্রাসায়। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা ছাত্র নির্যাতনকারী শিক্ষক শফিউল্লাহ মজনুকে মাদ্রাসায় অবরুদ্ধ করে রাখেন। পরে পুলিশ গিয়ে জনরোষ থেকে তাকে উদ্ধার করে।

মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা জানিয়েছেন, শিক্ষার্থীরা টিফিনের সময় বাইরে গিয়ে মাদ্রাসায় আসতে দেরি করায় সহকারী অধ্যাপক শফিউল্লাহ মজনু ১০/১২ জন ছাত্র-ছাত্রীকে বেত দিয়ে পেটাতে থাকেন। এক পর্যায়ে সৌরভ ও ফাহিমসহ কয়েকজন মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এ সময় অন্য শিক্ষার্থীদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে আহত ১০ জনকে উদ্ধার করে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এদের মধ্যে দাখিল শ্রেণির ফাহিম (১৬), সৌরভ (১৫), মাহফুজুর (১৪), তানজীনা (১৫), শরিফুল (১৬), ইসয়ামিন (১৫) ও শিলাকে(১৬) দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে সৌরভ ও ফাহিমের অবস্থা গুরুতর। আরো তিনজন প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল থেকে চলে গেছে।

সহকারী অধ্যাপক শফিউল্লাহ মজনুর সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তার মন্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

দেওয়ানগঞ্জ থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মো. আব্দুল লতিফ মিয়া বলেন, শিক্ষককে আটকের পর ম্যানেজিং কমিটি ও মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করার দায়িত্ব নিয়েছে।

শিক্ষকের বেত্রাঘাতে ১০ ছাত্র-ছাত্রী আহত হওয়ার ঘটনায় এলাকাবাসী ও অভিভাবকদের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তারা ওই শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জনিয়েছেন।



রাইজিংবিডি/জামালপুর/৮ মার্চ ২০১৮/সেলিম আব্বাস/মুশফিক/শাহনেওয়াজ

Walton Laptop
 
     
Walton