ঢাকা, মঙ্গলবার, ৯ কার্তিক ১৪২৪, ২৪ অক্টোবর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

প্রাপ্তি অনেক, প্রত্যাশাও অনেক

শাহনেওয়াজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০১-১২ ১১:৪২:২০ এএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০১-১২ ২:৪২:০৬ পিএম

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন রাজনৈতিক জোট ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ের মধ্য দিয়ে টানা দ্বিতীয় বারের মত সরকার গঠন করেছে। আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার শপথ নিয়েছে ২০১৪ সালের ১২ জানুয়ারি। ৫ বছর মেয়াদি সরকারের তিন বছর পূর্ণ হলো ১২ জানুয়ারি। গত তিন বছরে সরকারের সাফল্য অনেক। এর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হলো বিদ্যুৎ ও কৃষি খাতে উন্নয়ন।

বর্তমান সরকার বিদ্যুৎ খাতে সর্বাধিক গুরুত্ব আরোপ করেছে। তিন বছরে বিদ্যুৎ উৎপাদন বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১৯৫২ মেগাওয়াটে । সব গ্রামে বিদ্যুৎ নিশ্চিত করার কাজ চলছে। খাদ্য উৎপাদন বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৮৪১১৮ লাখ টনে। উচ্চ ফলনশীল ফসলের ৬৪টি জাত অবমুক্ত করা হয়েছে। দেশ এখন খাদ্য স্বয়ংসম্পূর্ণ এবং খাদ্য রপ্তানিও হচ্ছে।  এ ছাড়া শিক্ষাক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি অর্জিত হয়েছে। সরকারের তিন বছরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তির হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৭ দশমিক ৩০ শতাংশে। ঝরে পড়ার হার কমে দাঁড়িয়েছে ২০ দশমিক ০৯ শতাংশে।

প্রত্যেক উপজেলায় একটি করে কারিগরি বিদ্যালয় স্থাপন পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ১০০টি উপজেলায় বিদ্যালয় স্থাপন করা হচ্ছে। পদ্মাসেতু নির্মাণ কাজ প্রায় ৪০ শতাংশ শেষ হয়েছে। বাংলাদেশ ও ভারতের ১৬২টি ছিটমহল নিয়ে যে সমস্যা ছিলো তার সমাধানও হয়েছে। ২০১৫ সালের ৩১ জুলাই মধ্যরাতে দু’দেশের মধ্যে ছিটমহল বিনিময় চুক্তি কার্যকর হয়। এতে ছিটমহলগুলোর প্রায় ৫৫ হাজার মানুষ দীর্ঘদিনের বন্দি অবস্থা থেকে মুক্তি পেয়েছে। নিঃসন্দেহে এটি সরকারের কূটনৈতিক ও রাজনৈতিক সাফল্য।

স্বাস্থ্যসেবাকে মানুষের দোড়গোড়ায় নিয়ে যাওয়ার জন্য সরকারের প্রচেষ্টা প্রশংসার দাবি রাখে। চিকিৎসকদের কর্মস্থলে থাকা নিশ্চিত করা হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবা সহজলভ্য করার চেষ্টা চলছে। যোগাযোগ, তথ্যপ্রযুক্তি ও অন্যান্য সব খাতেই উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। বাংলাদেশ আজ বিশ্বের দরবারে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। বিশ্বের অনেক নেতা বিভিন্ন ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাফল্য ও উন্নয়নের প্রশংসা করেছেন।

সারা বিশ্বের মত বাংলাদেশও জঙ্গিবাদের হুমকির সন্মুখীন। দেশে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ দমনে ইতিমধ্যে সরকার কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছে। সম্প্রতি কয়েকটি জঙ্গি ঘটনা সরকার সাফলের সঙ্গে মোকাবিলা করেছে। সরকারের সামনে এখন বড়ো চ্যালেঞ্জ হলো অর্থনৈতিক উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখা। আইনশৃঙ্খলার প্রতি বাড়তি নজর দেওয়া যাতে সামাজিক অপরাধ মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে না পারে। নাগরিক মূল্য ও মানবাধিকার সমুন্নত রাখার বিষয়টি যথাযথভাবে নিশ্চিত করতে হবে। কমিয়ে আনতে হবে অর্থনৈতিক বৈষম্য। সরকারের কাছে নাগরিক প্রত্যাশা অনেক। সেটা মাথায় রেখে সরকারকে এগিয়ে যেতে হবে সামনের দিকে।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১২ জানুয়ারি ২০১৭/শাহনেওয়াজ

Walton
 
   
Marcel