ঢাকা, রবিবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৯ মে ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

বজ্রাঘাতে বেঁচে যাওয়া ব্যক্তিরা (১ম পর্ব)

রাশিদা নূর : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৭-০৮-১৬ ১২:৩০:৫৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৮-১৬ ২:৩০:৪০ পিএম

রাশিদা নূর : বর্ষা মৌসুমে বজ্রপাত একটি সাধারণ ব্যাপার। প্রতিদিন বিভিন্ন জায়গায় একাধিক বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বছরে বিশ্বজুড়ে ১ বিলিয়নের বেশি বজ্রপাত ঘটে। সে হিসেবে প্রতি সেকেন্ডে হয় ৪০ থেকে ৫০টি বজ্রপাতের ঘটনা। সারা দুনিয়ায় প্রতি ১২ হাজারে একজন মানুষ এই ঘটনার শিকার হয়। বজ্রপাতের শিকার ব্যক্তিদের অধিকাংশই মারা যায়। গণমাধ্যমে প্রায়ই এ ধরনের নিহতের খবরও পেয়ে থাকি। শুধু বাংলাদেশ নয়, গোটা বিশ্বেই এই ধরনের ঘটনায় প্রাণ হারায় মানুষ।

তবে বজ্রপাতের শিকার কিছু কিছু মানুষ বেঁচে যাওয়ার ঘটনাও রয়েছে। এমন ঘটনা নিচে তুলে ধরা হলো :

উইনস্টন কেম্প : উইনস্টন কেম্প একদিন রাস্তা দিয়ে হাঁটার সময় বজ্রপাতের শিকার হন। কিন্তু তারপরও তিনি স্বাভাবিকভাবেই হাঁটছিলেন, যেন তার কিছুই হয়নি। সম্ভবত এই বজ্রাঘাত সরাসরি মাটিতে পড়েছিল। এ কারণে যতক্ষণ সে মাটিতে ছিল ততক্ষণ কিছুই টের পাননি। কিন্তু যখনই মাটি থেকে বাড়ির ভেতর ঢুকলেন, তখনই তার হাতে ব্যথা অনুভব করতে লাগলেন। এর অল্প কিছুক্ষণ পরই পুরো হাতে ট্যাটুর মতো চিত্র দেখতে পেলেন তিনি। আসলে এগুলো ছিল মূলত বজ্রপাতের প্রভাবে ফেটে চৌচির হওয়া শিরা। তবে তার এর চেয়ে বেশি ক্ষতি হয়নি।

পিটার ম্যাকাথি : যুবক বয়সে তিনি বজ্রপাতের শিকার হয়েও বেঁচে গেছেন। পরে নিজের মেয়েও বেঁচে গেছেন বজ্রপাত থেকে। আর পরিণত বয়সে জিতেছেন ১০ লাখ মার্কিন ডলারের লটারি। কানাডার ছোট এলাকা আমহাস্ট শোর কাউন্টিতে একটি দোকান আছে তার। সেখানেই এক কর্মীর সঙ্গে যৌথভাবে লটারি টিকেট কিনেছিলেন তিনি।

ওই লটারিতে ১০ লাখ মার্কিন ডলার জিতেছেন তারা। লটারিতে কয়েক লাখ ডলার জেতার পর ম্যাকাথি মজা করে বলেন, ‘আমি এর আগে আরেকবার বজ্রপাত আশা করি।’

বজ্রপাতে আহত হওয়ার স্মৃতি স্মরণ করে ম্যাকাথি বলেন, ‘দিনটি ছিল রৌদ্রজ্জ্বল, শুধু সাদা একটু মেঘ আকাশে ছিল। আমি নৌকা বাঁধার চেষ্টা করছিলাম। এমন সময় বজ্রপাত হলো। গাছের ওপর দিয়ে আসা ওই বজ্র আমার ওপর আঘাত হানল।’

একই ব্যক্তির জীবনে তিনবার এমন বড় ঘটনাকে অনেকেই অসম্ভব বলেই মনে করেন।

ব্রিটনি ওয়ারলে : তখন তার বয়স ১১ বছর। একদিন  এক বন্ধুর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের পেনসেলভেনিয়ার রাস্তায় হাঁটছিলেন ব্রিটনি। এটি ছিল ২০১১ সালের ঘটনা। বজ্রাপাতের শিকার হন তিনি। যেখানে ব্রিটনি বজ্রাপাতের শিকার হন তার কয়েক মাইল জুড়ে তখন ঝড় হচ্ছিল। সেখান থেকে ব্রিটনি স্বাভাবিকভাবেই বাড়ি পর্যন্ত যায়। ততক্ষণ ব্রিটনি বুঝতে পারেননি যে তিনি বজ্রাঘাতের শিকার হয়েছেন। যখন দরজা খুলতে গেলেন তখন বুঝতে পারেন যে তিনি বাম হাতটা নাড়াতে পারছেন না। পরে তিনি দেখতে পান হাতের কব্জির ওপরে ও কাঁধে পোড়া দাগ। পরে হাসপাতালে গেলে চিকিৎসকরা জানান, বজ্রটি কাঁধ দিয়ে প্রবেশ করে কব্জির ওই স্থান দিয়ে বের হয়ে গেছে। তবে এতে তার হাতের হাড় ভেঙে গেছে। তিনি সৌভাগ্যবান যে, বজ্রাঘাত তার বুক পর্যন্ত পৌঁছেনি। অবশ্য পরে তিনি চিকিৎসা নিয়ে ধীরে ধীরে সুস্থ হয়েছেন।

মেলবিন রবার্টস : মেলবিন রবার্টস যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ক্যারোলিনার সেনেকা শহরের বাসিন্দা। তিনি এমন একজন ব্যক্তি যিনি ১১ বার বজ্রপাতের শিকার হয়েছেন এবং এরপরও বেঁচে আছেন। এর মধ্যে একবার তিনি রৌদ্রজ্জ্বল দিনে বজ্রাঘাতের শিকার হন। আর দুবার বজ্রপাতের শিকার হয়েছিলেন বাড়ির পাশের ঘাস ক্ষেতে বুলডোজার চালানোর সময়। তার স্ত্রীর দাবি, রবার্টস যতবার বজ্রাঘাতের শিকার হয়েছেন প্রত্যেকবার তিনি তা নিজ চোখে দেখেছেন। কিন্তু যথাযথ প্রমাণাদি উপস্থাপন করতে না পারার কারণে গিনেজ রেকর্ড বুকে নিজের নামটি লেখাতে পারেননি রবার্টস।

আলিস ভেনসন : ঘটনাটি ২০১১ সালের। সুইডেনের নাগরিক আলিসের বয়স তখন ১২ বছর। একদিন তিনি গোসলখানায় গোসল করছিলেন। এ সময় তিনি পরপর দুবার বজ্রাঘাতের শিকার হন। পরিবারের সদস্যরা তার  চিৎকারের আওয়াজও শুনেছেন। অল্প কিছুক্ষণের ব্যবধানে দুবার আঘাত হানা বজ্রপাতের কারণে তারাও দুবারই আলিসের চিৎকার শুনতে পান। এরপর যখন তারা গোসলখানায় ছুটে গেলেন, তখন দেখলেন আলিস ঝরনার ধাতব বস্তুটি মাথায় চেপে ধরে গোঙাচ্ছেন। পুরো শরীর ভেজা এবং আলিস খালি পায়ে থাকলেও সৌভাগ্যক্রমে তিনি বেঁচে যান। তবে তিনি গুরুতর আহত হয়েছিলেন।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৬ আগস্ট ২০১৭/মারুফ

Walton Laptop
     
Walton AC
Marcel Fridge