ঢাকা, বুধবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৪, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

বড়পুকুরিয়া খনির শ্রমিকদের ধর্মঘট অব্যাহত

নজরুল মৃধা : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০১-১০ ১১:১৯:৫৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০১-১০ ১১:১৯:৫৯ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর : দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলায় অবস্থিত বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ১০৪১ জন শ্রমিকের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট অব্যাহত রয়েছে।

 

রোববার দুপুর থেকে চাকরি স্থায়ীকরণের দাবিতে ধর্মঘটে যান তারা। বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের ডাকা ধর্মঘটে খনির কয়লা উত্তোলন বন্ধ রয়েছে।

 

কয়লা খনির ভূগর্ভে অবস্থানরত ২২৬ জন শ্রমিককে ওপরে উঠিয়ে আনার জন্য দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলমের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের একটি দল মঙ্গলবার রাতে খনি এলাকায় আসেন।

 

রাতে শ্রমিক ইউনিয়নের সঙ্গে জেলা প্রশাসক ও খনি কর্তৃপক্ষের সমঝোতা আলোচনা হয়েছে। আলোচনায় সমস্যা নিরসনে চার সদস্যের প্রতিনিধি দল ঢাকায় জ্বালানি মন্ত্রণালয়ে বৈঠক করে তাদের সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবে বলে আশ্বাস দেওয়া হয়। তবে খনি শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের কোষাধ্যক্ষ মোরছালিন মিয়া জানান, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলনরত শ্রমিকরা ভূ-অভ্যন্তরে থাকবেন।

 

মঙ্গলবার দুপুরে কয়লা খনি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে শ্রমিক ইউনিয়নের নেতাদের সমঝোতা বৈঠক ভেস্তে যায়। পরবর্তীতে সন্ধ্যার পর জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে পুনরায় বৈঠক হয়।

 

কয়লা খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আওরঙ্গজেব সম্রাট বলেন, রাতের আলোচনায় চার সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল জ্বালানি মন্ত্রণালয়ে গিয়ে সমস্যা নিরসনে বৈঠক করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 

 

কয়লা খনির জিএম (মাইনিং) সাইফুল ইসলাম সরকার বলেন, দিন হাজিরার শ্রমিকদের চাকরি স্থায়ীকরণের ক্ষমতা তাদের নেই। কেননা নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে খনি কর্তৃপক্ষের কয়লা উত্তোলন, মজুদসহ ব্যবস্থাপনার চুক্তি রয়েছে। শ্রমিকদের বেতন-ভাতাসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার ক্ষমতা রাখে নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান। খনি কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের বেতন-ভাতাসহ সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর জন্য নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানকে পরামর্শ দিতে পারে মাত্র।

 

খনির ভূগর্ভে অবস্থানরত ২২৬ জন শ্রমিক তাদের দাবি মেনে নেওয়া না পর্যন্ত ওপরে উঠতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। খনি কর্তৃপক্ষ তাদের ওপরে চলে আসার জন্য বারবার বললেও তারা তাতে সম্মতি জানাননি। খনি কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে ২২৬ জন শ্রমিককে প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী সরবরাহ করা হচ্ছে। তবে এসব শ্রমিকের পরিবার-পরিজন উৎকণ্ঠায় রয়েছেন। স্বজনদের খবর নেওয়ার জন্য খনির মূল গেটে তারা অবস্থান করছেন।

 

খনি শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের কোষাধ্যক্ষ মোরছালিন মিয়া বলেন, শ্রমিকদের চাকরি  স্থায়ী না হওয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট অব্যাহত থাকবে।

 

খনির ভেতরে অবস্থান করা শ্রমিক মোশাররফ, ফাইজার, তহসিন ও আব্দুল কাদেরসহ সাতজন অসুস্থ হয়ে পড়লে মঙ্গলবার সকালে তাদের ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

 

 

রাইজিংবিডি/রংপুর/১০ জানুয়ারি ২০১৭/নজরুল মৃধা/বকুল

Walton Laptop