ঢাকা, সোমবার, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

মালার এসিড নিক্ষেপকারীর ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ

ফয়সল বিন ইসলাম নয়ন : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৭-০৯ ৯:২০:৪৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৭-০৯ ৯:২০:৪৫ পিএম

ভোলা সংবাদদাতা : ভোলার সদর উপজেলার উত্তর দিঘলদী ইউনিয়নে এসিড নিক্ষেপে কিশোরী নিহতের ঘটনায় এসিড নিক্ষেপকারীর শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসী বিক্ষোভ করেছে।

এসিড নিক্ষেপে দগ্ধ দুই বোনের মধ্যে বড় বোন তানজিম আক্তার মালা (১৬) চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৫৪ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে গত শনিবার রাতে মারা যায়।

তার লাশ ময়নাতদন্তের শেষে সোমবার দুপুরে তার গ্রামের বাড়ি পৌঁছালে শিক্ষার্থী ও স্থানীয়রা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার এসিড নিক্ষেপকারী মহব্বত হোসেন অপুর দ্রুত ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে। এ ব্যাপারে স্থানীয় লোকজন ও শিক্ষার্থীরা জানান, তারা অপুর সহযোগীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে শাস্তির দাবি জানান।

গত ১৪ মে হেলাল রাড়ির ২ কন্যা তানজিম আক্তার মালা (১৬) এবং মারজিয়া (৮) রাতের খাবার খেয়ে এক সঙ্গে ঘুমাতে যায়। রাত ২টার পর হঠাৎ করে জানালা দিয়ে এসিড নিক্ষেপ করা হয়। এতে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ছাত্রী তানজিম আক্তার মালার মুখ, চোখসহ শরীরের বিভিন্ন স্থান ঝলসে যায়।

তার ছোট বোন দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী মারজিয়ার হাত ও পেটসহ বিভিন্ন স্থান ঝলসে যায়। পরিবারের সদস্যরা গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে রাতে তাদের ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরিস্থিতি অবনতি হওয়ায় তাদের ভোলা থেকে বরিশালে পাঠানো হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়।

এ ঘটনার ১১ দিন পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে মূল আসামি ভোলা সরকারি কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র মহব্বত হোসেন অপুকে ভোলা সদরের দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নের বালিয়া গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করে।

জিজ্ঞাসাবাদে অপু পুলিশকে জানিয়েছে, প্রেমে ব্যর্থ হয়ে তিনি এসিড নিক্ষেপ করেছেন।

ঢাকার মোহাম্মদপুরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত ১০টার দিকে মালা মারা যায়।



রাইজিংবিডি/ভোলা/৯ জুলাই ২০১৮/ফয়সল বিন ইসলাম নয়ন/বকুল

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC