ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ শ্রাবণ ১৪২৪, ২৭ জুলাই ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

টেকনাফে ফিরেছে আটকেপড়া সাড়ে ৭ শতাধিক পর্যটক

সুজাউদ্দিন রুবেল : রাইজিংবিডি ডট কম
প্রকাশ: ২০১৭-০১-১১ ৪:০৬:১০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০১-১১ ৯:৫২:০১ পিএম
ফাইল ফটো

কক্সবাজার প্রতিনিধি : কক্সবাজারের টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে ডুবোচরে আটকেপড়া সাড়ে ৭ শতাধিক পর্যটক নিয়ে টেকনাফ ফিরেছে এলসিটি কাজল জাহাজটি।

বুধবার রাত নয়টার দিকে পর্যটকবাহী জাহাজ এলসিটি কাজল টেকনাফের দমদমিয়া জেটিঘাটে পৌঁছায়।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শফিউল আলম জানান, ডুবোচরে আটকেপড়া জাহাজটি রাত নয়টার দিকে পর্যটকদের নিয়ে টেকনাফ ফিরেছে।

তিনি জানান, প্রতিদিন যে চ্যানেল দিয়ে জাহাজ চলাচল করত সে চ্যানেল দিয়ে চালক জাহাজ না চালানোয় এ দুর্ঘটনা ঘটে। মূলত অদক্ষ জাহাজ চালকের কারণে পর্যটকবাহী জাহাজ এলসিটি কাজল ডুবোচরে আটকা পড়েছিল। অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই আর অদক্ষ জাহাজ চালকের বিষয়টি নিয়ে বৃহস্পতিবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সেন্টমার্টিন কোস্ট গার্ডের স্টেশন ইনচার্জ সাব লেফটেন্যান্ট আশমাদুল জানান, সেন্টমার্টিন থেকে প্রায় তিন কিলোমিটার দূরে বঙ্গোপসাগরে ডুবোচরে পর্যটকবাহী জাহাজ এলসিটি কাজল আটকা পড়েছিল। এরপর বিকেল চারটার দিকে স্থানীয় কিছু ট্রলার ও গামবোট নিয়ে আড়াইশ পর্যটককে সেন্টমার্টিন নিয়ে আসা হয়। বাকিরা জোয়ার আসলে জাহাজ চলাচল স্বাভাবিক হওয়ার পর বিকেল পাঁচটার দিকে সেন্টমার্টিন পৌঁছান। এরপর সাড়ে ছয়টার দিকে পর্যটকদের নিয়ে পুনরায় টেকনাফের উদ্দেশে রওনা দেয় জাহাজটি।

টেকনাফ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল মজিদ জানান, জাহাজটিতে অতিরিক্ত যাত্রী বহনের বিষয়টির খোঁজ-খবর নিয়ে সত্যতা পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে এলসিটি কাজল জাহাজের ব্যবস্থাপক আবদুর রহিম খোকার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

উল্লেখ্য, বুধবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিন যাওয়ার পথে পর্যটকবাহী জাহাজ এলসিটি কাজল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সাগরের ডুবোচরে আটকা পড়ে। ওই জাহাজে সাড়ে সাত শতাধিক পর্যটক ছিলেন। যা ধারণ ক্ষমতার দুই গুণ বেশি। প্রায় পাঁচ ঘণ্টা আটকে থাকার পর জোয়ার আসলে জাহাজ চলাচল স্বাভাবিক হলে বিকেল পাঁচটার দিকে সেন্টমার্টিন পৌঁছায় জাহাজটি।



রাইজিংবিডি/কক্সবাজার/১১ জানুয়ারি ২০১৭/সুজাউদ্দিন রুবেল/রিশিত

Walton Laptop