ঢাকা, শুক্রবার, ১০ চৈত্র ১৪২৩, ২৪ মার্চ ২০১৭
Risingbd
মার্চ
সর্বশেষ:

‘আন্তর্জাতিক মানের না হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে চাই না’

: রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৬-০৭-১২ ৬:৪৬:৪৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৬-০৭-১৩ ৮:৪৪:০৯ এএম

পিচ্চি আল-আমিন কিংবা আল-আমিন-২ যেভাবেই বলি না কেন ক্রিকেটাঙ্গনে বেশ পরিচিত একটি নাম ‘আল-আমিন’। মিরপুরের ক্রিকেট পাড়ায় কান পাতলেই যে কেউ তা শুনতে পারবেন।

 

পেসার আল-আমিন এখন বিশ্ব ক্রিকেটে পরিচিত। ব্যাটসম্যান আল-আমিন আছেন পাইপলাইনে। ব্যাটিংয়ে আগ্রাসন, বোলিংয়ে বিচক্ষণতা, ফিল্ডিংয়ে দূরন্তপণা- তিনের মিশেলে আল-আমিন দারুণ এক প্যাকেজ। পকেট ডায়নামাইটও বলা যেতে পারে। উচ্চতা মুমিনুল, মুশফিকের সমান বলেই পকেট ডায়নামাইট উপাধি দেওয়া। তবে যেই প্রতিভা ঘরোয়া ক্রিকেটে দেখিয়ে যাচ্ছেন তাতে মুশফিক-মুমিনুলও হার মানতে বাধ্য!

 

৪৮ গড়ে ৬৭২ রান, স্ট্রাইক রেট ৮৮.০৭। রান সংগ্রহের তালিকায় চতুর্থ। বল হাতে ১৬ উইকেট। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের অন্যতম সেরা পারফরমার আল-আমিন মুখোমুখি হলেন রাইজিংবিডির ক্রীড়া বিভাগের। একান্ত আলাপচারিতায় আল-আমিন ক্রিকেট ও ক্রিকেটের বাইরের অনেক কিছু নিয়ে কথা বলেন। সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন ইয়াসিন হাসান

 

ইয়াসিন হাসান : নিজের কোন নামটি বেশ পছন্দের? পিচ্চি আল-আমিন নাকি আল-আমিন ২?

আল-আমিন : শুধু আল-আমিন হলেই ভালো হত। আল-আমিনই ভালো লাগে। ওই দুটো বাদে তো ব্যাটসম্যান আল-আমিন বলেই অনেকে চিনে। ওটাই শুনতে বেশি ভালো লাগে।

 

ইয়াসিন হাসান : পেসার আল-আমিন না থাকলে হয়ত ভালো হত? আপনাকে শুধু আল-আমিন বলেই চিনত?

আল-আমিন :  সেটা তো হতই। কী আর করা বলেন।

 

ইয়াসিন হাসান : খেলাধুলা নেই। ব্যস্ততা কি নিয়ে?

আল-আমিন : এখন আপাতত ফ্রি। কোনো ব্যস্ততা নেই। ১৭ জুলাই থেকে এইচপি ক্যাম্প শুরু হচ্ছে। সেটা নিয়ে আপাতত নিজের সব ভাবনা।

 

ইয়াসিন হাসান : এইচপি ক্যাম্প নিয়ে একটু পর কথা বলছি। আপনার ক্রিকেটের শুরুটা একটু জানতে চাই?

আল-আমিন : নির্মাণ স্কুল ক্রিকেট দিয়ে আমার যাত্রা শুরু। এরপর অনূর্ধ্ব-১৩, ১৫ ও ১৭ হয়ে ১৯ দলে খেলেছি। ২০১২ যুব বিশ্বকাপে সৌম্য, বিজয়দের সঙ্গে খেলেছি যুব বিশ্বকাপ।

 

 

ইয়াসিন হাসান : টেস্ট না ওয়ানডে প্রেফার করেন?

আল-আমিন : অবশ্যই টেস্ট। আমি টেস্ট খেলতেই জাতীয় দলে আসতে চাই। অবশ্য এখনো টেস্টের পুরোপুরো ফিটনেস আসেনি। এইচপি ক্যাম্পে সেই বিষয়টি নিয়েই কাজ করতে চাই। ফিটনেস থাকলে অনেক দিন ক্রিকেট খেলা সম্ভব। বড় ইনিংসের জন্যে ফিটনেস গুরুত্বপূর্ণ।

 

ইয়াসিন হাসান : আপনার সতীর্থরা অনেকেই জাতীয় দলে খেলছেন। আপনার জাতীয় দলে জায়গা পেতে কি আরও সময়ের প্রয়োজন?

আল-আমিন : ঘরোয়া ক্রিকেট ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পার্থক্য অনেক। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অনেক কঠিন। আমার কোনো তাড়াহুড়ো নেই। দুই একটা ম্যাচ খেলে বের হয়ে গেলাম সেরকম ইচ্ছে আমার নেই। আমার জায়গায় আমি সেট হয়ে ভালো কিছু করতে চাই। আন্তর্জাতিক মানের ক্রিকেটার না হয়ে আমি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে চাই না। একটা স্ট্যান্ডার্ড ধরে খেলাটাই আমার মূল লক্ষ্য।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১২ জুলাই ২০১৬/ইয়াসিন/আমিনুল

Save

Save

Save

Walton Laptop