ঢাকা, শনিবার, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:
৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

অভ্যন্তরীণ কোন্দলে ছাত্রদলে ছন্দপতনের সুর

রেজা পারভেজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০১-০১ ৮:১৪:৪৭ এএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-০১ ২:২৮:০১ পিএম

এস কে রেজা পারভেজ : ৩৯ বছরের দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় এসে একসময়ের ‘সমীহ জাগানো’ ছাত্রসংগঠন ছাত্রদলের অভ্যন্তরীণ কোন্দল চরমে পৌঁছেছে। নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা আর ক্ষমতার অপব্যবহার সংগঠনটিকে তার স্বকীয়তা থেকে বের করে এনে করে তুলেছে বিশৃঙ্খল। পরিস্থিতি এমন যে, এবারই ধারাবাহিকতা ভেঙে কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করার সিদ্ধান্ত পর্যন্ত নিতে পারেনি সংগঠনটির শীর্ষ নেতৃত্ব।

ছাত্রদলের এই ছন্দপতন ভালোভাবে নিচ্ছেন না তৃনমুল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। তারা ছাত্রদলে এমন নেতৃত্ব আনার কথা বলছেন, যে নেতৃত্ব বর্তমান পরিস্থিতি থেকে সংগঠনকে বের করে আনতে সক্ষম হবেন। ছাত্রদলের অতীত ঐতিহ্য ফেরাতে বিষয়টিতে ‘বিশেষ গুরুত্ব’ দিতে বিএনপির হাইকমান্ডের ‘সুবিবেচনাপ্রসুত হস্তক্ষেপ’ কামনা করেন তারা।

জানতে চাইলে ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক মুন্না রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘অতীতে ছাত্রদলের যে সুনাম ছিলো তা ফিরিয়ে আনা জরুরি। বিশেষ করে রাজনীতির বর্তমান প্রেক্ষাপটে এই বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব বহন করছে। ছাত্রদল কি ছিলো, কি আছে বা কি নেই অথবা কি করনীয়; এগুলো বিশ্লেষণের চেয়েও বেশি দরকার একটি আদর্শ নেতৃত্ব। যে নেতৃত্ব অতীতের ভুল শুধরে নেতাকর্মীদের আস্থার প্রতিদান দিতে পারবে।’

জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ছাত্রদলের পরবর্তী কমিটির গুরুত্ব তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘সামনে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের কাছ থেকে দাবি আদায়ে রাজপথে ছাত্রদল নেতাকর্মীদেরই ভ্যানগার্ডের ভুমিকা পালন করতে হবে।’ সেক্ষেত্রে ছাত্রদলের নতুন কমিটি ঘোষণার আগে তিনি পদপ্রত্যাশীদের কর্মকাণ্ড, আন্দোলন সংগ্রামে ভুমিকা, রাজপথের অবস্থান এবং সর্বোপরি কতটা দলের জন্য নিবেদিতপ্রাণ হিসেবে কাজ করছেন, সেগুলো বিবেচনায় নেয়ার অনুরোধ জানান তিনি।

১৯৭৯ সালের এই দিনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল প্রতিষ্ঠা করেন বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান। ছাত্রদলের প্রধান শ্লোগান হচ্ছে-শিক্ষা, ঐক্য, প্রগতি। বর্তমানে যারা বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত, তাদের মধ্যে অনেকেই জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। জিয়াউর রহমান যখন বিএনপি প্রতিষ্ঠা করেন, তখন তিনি ভবিষ্যত নেতৃত্ব তৈরি করার জন্য এর একটি ছাত্র সংগঠন প্রতিষ্ঠা করার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন।

এদিকে প্রতিষ্ঠার পর এই ৩৯ বছরেও স্থায়ী কোনো গঠনতন্ত্র করতে পারেনি ছাত্রদল। বিষয়টিকে বড় ব্যর্থতা হিসেবেই মানছেন সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। তারা বলছেন, এই ব্যর্থতা বিগত যে কমিটিগুলো দায়িত্ব পালন করেছে তাদের। নিজেদের স্বার্থেই কেউ গঠনতন্ত্রে হাত দেয়নি। সব সময় পদবি বন্টন অথবা অন্য কোনো কারণে গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন হয়েছে। বর্তমান কমিটির এই গঠনতন্ত্র লঙ্ঘনের ঘটনা অতীতের সব কমিটিকে ছাড়িয়ে গেছে বলে অভিযোগ তাদের। তাদের মতে, বর্তমান কমিটিতে নিয়মিত ছাত্র আছে এমন সংখ্যা অনেক কম। অনেকে বিভিন্ন জায়গায় ভর্তি হয়ে কোনোমতে ছাত্রত্ব টিকিয়ে রেখেছেন। আর সাত’শর ওপরে পদ দিয়ে যে কমিটি হয়েছে সেটি সংগঠনের ইতিহাসে কালো অধ্যায় হিসেবে থাকবে।

অথচ ছাত্রদলের স্বর্নালী সময় ফিরিয়ে আনার আশায় ২০১৪ সালের ১৪ অক্টোবর রাজিব আহসানকে সভাপতি ও মো. আকরামুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে ১৫৩ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। বেধে দেওয়া সময়সীমা পার হওয়ারও অনেক পরে ৭৩৪ জনকে পদায়ন করে কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হলেও তা নিয়ে রীতিমতো সমালোচনার ঝড় ওঠে। ছাত্রদলের ইতিহাসে এতো বড় কমিটি আর কখনো হয়নি। রাজীব-আকরামের কমিটিকে বলা হচ্ছে, ছাত্রদলের অন্যতম ব্যর্থ কমিটি। ছাত্রদলের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় এই কমিটি দিয়ে সংগঠনটির নেতৃত্ব যেমন সমালোচনার মুখে পড়ে, তেমনি সিনিয়র-জুনিয়রের ভারসাম্য ঠিক না রাখা এবং যোগ্য ও ত্যাগীদের অবমূল্যায়নের অভিযোগ ওঠে। এতে সংগঠনটির অভ্যন্তরীণ অস্থিরতা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়।

তবে নেতাকর্মীদের পর্যবেক্ষন, ছাত্রদলের স্বর্নালী যুগ ফিরিয়ে আনার পরিবর্তে প্রতিষ্ঠার তিনযুগেরও বেশি সময় পর এক সময়ের ‘জনপ্রিয়’ এই ছাত্রসংগঠন এখন ‘অকার্যকর ও বিশৃঙ্খল’ সংগঠনের রূপ নিয়েছে। এজন্য বর্তমান কমিটিকে দায়ী করে তারা বলেন, ‘গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন, সিনিয়র-জুনিয়র না মেনে কমিটির পদ বন্টন এবং সংগঠনের মধ্যে ঐক্য সৃষ্টিতে ব্যর্থতাই এর অন্যতম কারণ।’

ছাত্রদল সূত্রে জানা গেছে, গঠনতন্ত্র অনুযায়ী জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যসংখ্যা হওয়ার কথা ১০১। কিন্তু গঠনতন্ত্র ভেঙে ৭৩৪ সদস্যের যে বিশাল কমিটি করা হয়েছে, সেখানে নিয়মিত ছাত্র রয়েছে খুব কম। গত কয়েক বছরে সংগঠনটি বিভক্ত হয়েছে বহু গ্রুপে। নিয়মিত ছাত্রদের বদলে বিবাহিত, সন্তানের বাবা, ঠিকাদার, ব্যবসায়ী রয়েছেন অনেক পদে।

সংগঠনটির বিভিন্ন পর্যায়ের দায়িত্বশীলদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বর্তমান নেতাকর্মীদের এখন একমাত্র দাবি হচ্ছে দ্রুত নতুন কমিটি গঠন। একবছরের বেশি সময় অতিবাহিত হওয়ায় নতুন কমিটির প্রশ্নে সংগঠনের বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি দিন দিন নিয়ন্ত্রনের বাইরে চলে যাচ্ছে। বহু গ্রুপে বিভক্ত নেতাকর্মীদের মুখোমুখি অবস্থান পরিস্থিতি জটিল করে তুলছে। পদ প্রত্যাশী নেতাকর্মী এক জোট হয়ে অবস্থান নিয়েছে বর্তমান কমিটির বিপক্ষে। তাদের অভিযোগ, যেটুকু বাকি ছিলো সেটুকুও শেষ করে দিয়েছে বর্তমান নেতৃত্ব। তাই সংগঠনে নতুন নেতৃত্ব অবিলম্বে না আনলে যে কোনো ধরণের অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা তাদের।    

ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

 

আজ ১ জানুয়ারি ছাত্রদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। তবে বরাবরের মতো এবার ৩১ ডিসেম্বর রাত ১২টা ১মিনিটে কেক কাটার কর্মসূচি নেই। কর্মসূচি নেই কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপনেরও। তবে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বিকেল ৩টায় রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করবেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এছাড়া মঙ্গলবার বেলা ২টায় রাজধানীর ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ মিলনায়তনে ছাত্র সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। এতে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ১ জানুয়ারি সকাল ৬টায় নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে বলে জানিয়েছেন ছাত্রদলের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সাত্তার পাটোয়ারী।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১ জানুয়ারি ২০১৮/রেজা/শাহনেওয়াজ

 

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC