ঢাকা, সোমবার, ১০ বৈশাখ ১৪২৪, ২৪ এপ্রিল ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

দেয়ালের ক্যানভাসে ভাষা আন্দোলনের চিত্রগল্প

রফিকুল ইসলাম কামাল : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০২-১৭ ৩:৫৯:৩৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০২-২৭ ৫:৪৯:৪৩ পিএম

রফিকুল ইসলাম কামাল, সিলেট : ‘রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই’ ‘মানি না মানবো না’ ‘অ আ ক খ ১ ২ ৩’ ‘অমর একুশে’। দেয়াল যেন এক ক্যানভাস, সেই ক্যানভাসে মনের মাধুরী মিশিয়ে রঙ দিয়ে ভাষা আন্দোলনের গল্প লিখে চলেছেন শিল্পীরা।

সিলেট মহানগরীর মীরেরময়দান থেকে রিকাবিবাজার পর্যন্ত ডা. চঞ্চল রোডের পূর্ব পাশের দেয়ালজুড়ে আঁকা হচ্ছে ভাষা আন্দোলনের এই চিত্রগল্প।

উদ্যোক্তা সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক), কিন্তু পুরো কাজ স্বেচ্ছাশ্রমে বাস্তবায়ন করছেন সিলেট আর্টস অ্যান্ড অটিস্টিক স্কুলের শিল্পীরা। এ কাজে বিনামূল্যে রঙ সরবরাহ করছে বার্জার পেইন্টস।

বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্র জন্মের গৌরবময় সংগ্রামের ইতিহাসে ভাষা আন্দোলন অনন্য এক অধ্যায়। ভাষা আন্দোলন আর ফেব্রুয়ারি যেন ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে স্মৃতির মিনারে। ভাষা আন্দোলনের এই মাসকে উপলক্ষ করেই গৌরবের ইতিহাসকে দেয়ালের ক্যানভাসে ফুটিয়ে তোলার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

প্রায় এক কিলোমিটার দৈর্ঘের ৯০টি দেয়ালে কয়েকদিন ধরে ভাষা আন্দোলনের চিত্রগল্প লিখে চলেছেন শিল্পীরা। ইতিমধ্যেই বেশ কিছু কাজ এগিয়ে নিয়েছেন তারা। দেয়ালে রঙতুলির আঁচড়ে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে সালাম, বরকত, রফিক, জব্বারসহ ভাষা আন্দোলনের অকুতোভয় যোদ্ধাদের রাজপথ কাঁপানোর চিত্র। আঁকা হচ্ছে ভাষার জন্য বাঙালি বীরদের অনন্য লড়াইয়ের সেই সব ক্ষণ, সঙ্গে থাকছে মুক্তিসংগ্রামের চিত্রগল্পও। একুশে ফেব্রুয়ারির আগেই শেষ হবে পুরো কাজ।

সিলেট আর্টস অ্যান্ড অটিস্টিক স্কুলের শিল্পীরা এর আগে সিলেট নগরীর চৌহাট্টায় সরকারি মহিলা কলেজের সামনের দেয়ালে ফুটিয়ে তুলেছিলেন মহান মুক্তিযুদ্ধের চিত্রগল্প। এবার তাদের হাত ধরে ফুটে ওঠছে ভাষা আন্দোলনের চিত্রগল্প।

সিলেট আর্টস অ্যান্ড অটিস্টিক স্কুলের সদস্য সচিব চিত্রশিল্পী ইসমাইল গণি হিমন নিজের টিম নিয়ে এমন কাজে যুক্ত থাকতে পেরে গর্বিত। তিনি বলেন, ‘ভাষা আন্দোলন, ছয় দফা, মুক্তি সংগ্রাম...আমাদের গৌরব আর অহংকারের বিষয়। আমরা ক্রমেই এসব যেন স্মৃতির আড়ালে নিয়ে যাচ্ছি। নতুন প্রজন্মকে আমাদের গৌরবময় ইতিহাসকে জানাতে হবে। সেজন্য এমন কাজে যুক্ত থাকতে পেরে আমরা গর্বিত।’

ইসমাইল গণি হিমন বলেন, ‘সিলেট আর্টস অ্যান্ড অটিস্টিক স্কুলের ১০ জন শিল্পী রঙতুলি নিয়ে দিনরাত কাজ করছেন। রোদের কারণে দিনের চেয়ে রাতেই বেশি কাজ হচ্ছে।’

শুধু ভাষা আন্দোলন নয়, মুক্তিযুদ্ধের চিত্রগল্পও তুলে ধরা হচ্ছে- উল্লেখ করেন হিমন।

সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব বলেন, ‘ভাষার মাসে এরকম আয়োজন ব্যতিক্রমী। আমাদের সমৃদ্ধ ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতিকে দেয়ালের ক্যানভাসে ফুটিয়ে তোলা দারুণ কিছু। এরকম কাজে একদিকে ফুটে ওঠবে ইতিহাস, বাড়বে সৌন্দর্য, অন্যদিকে দেয়ালে পোস্টার লাগানোও বন্ধ হবে।’

 

 

রাইজিংবিডি/সিলেট/১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/কামাল/রুহুল

Walton Laptop