ঢাকা, শনিবার, ৫ কার্তিক ১৪২৫, ২০ অক্টোবর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

জব্বারের বলীখেলায় চ্যাম্পিয়ন জীবন বলী

রেজাউল করিম : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৪-২৫ ৭:১৮:৩৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৪-২৫ ৭:১৮:৩৫ পিএম

রেজাউল করিম, চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক জব্বারের বলীখেলার ১০৯তম আসরে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার তারিকুল ইসলাম জীবন বলী চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।

আজ বুধবার বিকেলে চট্টগ্রামের লালদিঘী ময়দানে হাজার হাজার দর্শকের উপস্থিতি আর আনন্দ উৎসবের মধ্যে দিয়ে বলীখেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলার চূড়ান্ত রাউন্ডে প্রায় ২০ মিনিট ধরে কুমিল্লার শাহজালাল বলীর সঙ্গে লড়াই করে জীবন চ্যাম্পিয়ন খেতাব অর্জন করেন। 

এ বছর বলীখেলায় চট্টগ্রাম ও চট্টগ্রামের বাইরের বিভিন্ন জেলা থেকে ৮৬ জন বলী অংশ নেন। প্রতিবছরের ধারাবাহিকতায় এই বছরও বলীখেলা পরিচালনা করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক কাউন্সিলর মো. আবদুল মালেক।

বিজয় হওয়ার প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় জীবন বলি জানান, তিনি প্রায় নয় বছর ধরে জব্বারের বলীখেলায় অংশ নিচ্ছেন। কিন্তু এবারই তিনি চূড়ান্ত রাউন্ডে খেলার সুযোগ পেয়েছেন। প্রথমবারের মতো চূড়ান্ত রাউন্ডে খেলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করতে সক্ষম হন। এটি তার জীবনের অনেক বড় সাফল্য উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘‘আমি আমার সাধনার সুফল পেয়েছি এবার।’’ খেলা শেষে চ্যাম্পিয়ন বলীর হাতে ট্রফি ও নগদ অর্থ পুরস্কার তুলে দেন চট্টগ্রামি সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।

এর আগে ঐতিহাসিক এই বলী খেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম নগর পুলিশের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কমিশনার মাসুদুল হাসান, বলীখেলার স্পন্সর প্রতিষ্ঠান বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশন্স লিমিটেডের রিজিওনাল ডিরেক্টর সৌমেন মিত্র।

বলীখেলার আয়োজকরা জানান, বলীখেলার মঞ্চে বলীদের শারীরিক শক্তি আর কৌশলের লড়াই,  চারপাশে হাজারো দর্শকের উল্লাস- এই চিরচেনা ছবি প্রতিবছর বৈশাখ মাসের। শত বছর ধরে চলে আসা এই বলীখেলার এবারের আসরটি ১০৯তম। গত বছর বলীখেলায় অংশ নেন ৮০ জন বলী। এদের মধ্যে রামুর দিদার বলী চ্যাম্পিয়ন হন।

দেশপ্রেমের চেতনায় যুবকদের উদ্বুব্ধ করতে উনিশ শতকের গোড়ায় বলীখেলার সূচনা করেন চট্টগ্রামের তৎকালীন বনেদী ব্যবসায়ী আব্দুল জব্বার সওদাগর। সেই থেকে এটি চট্টগ্রামের লোক-সংস্কৃতির অংশ হয়ে গেছে। বাঙালি সংস্কৃতির বিকাশ ও ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনে যুব সমাজকে সম্পৃক্ত করার পাশাপাশি শক্তিমত্তার লড়াইয়ে নিজেদের যোগ্য করে তুলতে ১৯০৯ সালে লালদিঘী মাঠে প্রথম বলীখেলার আয়োজন করা হয়।

জব্বারের বলিখেলাকে ঘিরে প্রতিবছরের মতো এবারও লালদিঘী মাঠের আশপাশের প্রায় দেড় বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে বসেছে বৈশাখী মেলা। নগরীর লালদিঘী, জেল রোড, আন্দরকিল্লা, সিনেমা প্যালেস, কোতোয়ালি মোড় পর্যন্ত এই মেলা বিস্তৃত। মেলায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে মৃৎশিল্পসহ রকমারি সব জিনিসপত্র নিয়ে দোকান বসিয়েছেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা।

মেলায় মাটির তৈরি নানা সামগ্রী, বাঁশ ও বেতের তৈরি মোড়া, হাতপাখা, শীতল পাটি, চেয়ার থেকে শুরু করে নানা আসবাবপত্র, সাংসারিক নানা সামগ্রী, গ্রামীণ ঐতিহ্যের বিভিন্ন সামগ্রী, চুড়ি, শো-পিস, শিশুদের নানা খেলনা, মিষ্টি-মিঠাইয়ের দোকান বসেছে।



রাইজিংবিডি/চট্টগ্রাম/২৫ এপ্রিল ২০১৮/রেজাউল/বকুল

Walton Laptop
 
     
Walton