ঢাকা, রবিবার, ৮ বৈশাখ ১৪২৬, ২১ এপ্রিল ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

২১ আগস্টের ঘটনায় আ.লীগই দায়ী: বিএনপি

রেজা পারভেজ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-১০-১৪ ৩:২৬:২৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১০-১৪ ৩:২৬:২৮ পিএম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : একুশে আগস্ট রাজধানী ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের সমাবেশে হামলার জন্য আওয়ামী লীগকেই দায়ী করেছে বিএনপি।

রোববার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, জনগণের সহানুভুতি পেতে এবং বিএনপিকে জঙ্গি সরকার হিসেবে প্রমাণ করতে আওয়ামী লীগ নিজেরাই এই হামলা করেছে।

রিজভী বলেন, ‘সব বিচার বিশ্লেষণে এটা মনে করার যথেষ্ট কারণ সৃষ্টি হয় যে, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় আওয়ামী লীগ বা তাদের শুভাকাঙ্খীরাই দায়ী। যেহেতু তখন সরকার পরিচালনা করেছে বিএনপি সেহেতু নিজের সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট হবে- এমন আত্মঘাতী কাজ বিএনপি কেন করতে যাবে?’

রিজভী আরো বলেন, ‘আওয়ামী লীগের জনসভায় ভয়াবহ বোমা হামলা হলে শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের প্রতি সাধারণ মানুষের ব্যাপক সহানুভূতি সৃষ্টি হবে এবং বিএনপির বিরুদ্ধে মানুষের আস্থা কমবে। এতে আওয়ামী লীগের লাভ- ঠিক এই উদ্দেশ্য নিয়েই আওয়ামী লীগের জনসভায় বোমা হামলা করা হয়েছে, শেখ হাসিনার মঞ্চকে পাশ কাটিয়ে। এই বোমা হামলার আরেকটি উদ্দেশ্য হলো আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট সরকারকে জঙ্গি সরকার বা তার পৃষ্ঠপোষক হিসেবে প্রমাণ করা।’

রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘দুই তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় থাকা বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট সরকার নির্বোধের মত কাজ করবে- এটা পাগলেও বিশ্বাস করবে না। সুতরাং এক ঢিলে কয়েকটা পাখি মারার কাজ নেপথ্যে ও প্রকাশ্যে সম্পন্ন করেছে আওয়ামী লীগ। বিএনপি কখনই আওয়ামী লীগের মতো কুটকৌশল ও নিষ্ঠুরতা শিখতে পারেনি।’

বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনায়ও আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন বিএনপির এই নেতা।

‘২০০৯ সালে বিডিআর সদর দপ্তরে হত্যাকাণ্ড আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই ঘটেছে। এর জন্য কেন আওয়ামী লীগ সরকার দায়ী নয়? দরবার হলে এ ধরণের অনুষ্ঠানে সবসময় প্রধান অতিথি থাকেন প্রধানমন্ত্রী কিন্তু প্রধানমন্ত্রী কেন সেদিন যাননি? আওয়ামী লীগ নেতা ও মন্ত্রী সাহারা খাতুন, জাহাঙ্গীর কবির নানক ও মির্জা আজম প্রকাশ্যে বিডিআর সদর দপ্তরে ঢুকে বিদ্রোহী বিডিআর সদস্যদের সঙ্গে দেন-দরবার করেছেন। সদর দপ্তরের বাইরে বিদ্রোহী বিডিআর নেতা ডিএডি তৌহিদ ও তার সঙ্গীদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নিজের সরকারি বাসভবনে বৈঠক করেন। ফাইভ স্টার হোটেল থেকে সেদিন তাদের জন্য খাবারও আনা হয়েছিল।’

তিনি বলেন, ‘তৎকালীন সেনাপ্রধান জেনারেল মইন ইউ আহমেদ দ্রুত বিডিআর সদর দপ্তরে সেনাবাহিনী পাঠানোর নির্দেশ চেয়েছিলেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকার সেই নির্দেশ দেয়নি। কেন এই বিলম্ব করা হলো? আর এই বিলম্ব না হলে প্রাণ দিতে হতো না অর্ধ শতাধিক চৌকস সেনা কর্মকর্তাকে। এর জন্য কি আওয়ামী লীগ সরকার দায়ী নয়?’

সংবাদ সম্মেলনে দেশব্যাপী বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা ও তাদেরকে গ্রেপ্তারের চিত্র তুলে ধরে এর নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান বিএনপির এই জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৪ অক্টোবর ২০১৮/রেজা/শাহনেওয়াজ

Walton Laptop
     
Walton AC
Marcel Fridge