ঢাকা, বুধবার, ১২ আষাঢ় ১৪২৬, ২৬ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

শেষ ওভারে ২৪ রান তুলে জয়ের আশায় ছিলেন মুশফিক

ইয়াসিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-০৯ ৭:৪৭:৫৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-০৯ ৭:৪৭:৫৫ পিএম
Walton AC 10% Discount

ক্রীড়া প্রতিবেদক : মাত্র ৫ রানের জন্য বিপিএলে টানা দ্বিতীয় জয় পায়নি চিটাগং ভাইকিংস।

বড় দল সিলেট সিক্সার্সকে হারাতে ১৬৯ রান লাগত চিটাগংয়ের। লক্ষ্য তাড়ায় শুরুটা ভালোর পর মাঝপথে পথ হারায় চিটাগং। কিন্তু বন্দরনগরী দলটির হয়ে একাই লড়ে যান ফ্রাইলিঙ্ক।

প্রোটিয়া ক্রিকেটার বল হাতে ৩ উইকেট নেওয়ার পর ব্যাটিংয়েও দ্যুতি ছড়ান। তার ২৪ বলে ৪৪ রানের ঝড়ে লক্ষ্য তাড়ায় টিকে থাকে চিটাগং। শেষ ওভারে জয়ের জন্য ২৪ রান লাগত চিটাগংয়ের। আল-আমিনের করা শেষ ওভারে ১৮ রান তোলে দলটি।

প্রথম বলে সানজামুল ১ রান নেওয়ার পর দ্বিতীয় বলে ছক্কা হাঁকান দীর্ঘদেহী ফ্রাইলিঙ্ক। তৃতীয় বলে ২ রান, পরের বলে আবারো ছক্কা। শেষ ২ বলে লাগত ৯ রান। পঞ্চম বলে ২ রান নিলে ম্যাচ জমে ওঠে। শেষ বলে ছক্কা হাঁকালে ম্যাচ যাবে সুপার ওভারে। আর ৪ হলে সিলেট জিতে যাবে ২ রানে। ৪ ওভারে ৫৭ রান খরচ করা আল-আমিন শেষটায় অন্তত মান রাখেন। লো ফুলটস বলে ১ রানের বেশি নিতে পারেননি ফ্রাইলিঙ্ক। দলতে জেতাতে না পারলেও ম্যাচে উত্তেজনা ছড়াতে করতালি পেয়েছেন।

দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম চিটাগংয়ের পারফরম্যান্সে খুশি। সেরা দল হিসেবে সিলেট জয় পাওয়ায় তাদের অভিনন্দনও জানিয়েছেন। তবে শেষ ওভারে ২৪ রান তুলে জয়ের আশা করেছিলেন মুশফিক। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে মুশফিক বলেছেন, ‘ হ্যাঁ জয়ের আশা করেছিলাম। যেহেতু একজন ব্যাটসম্যান ছিল। আর অসম্ভব কিছু না।’

‘সবাই জানে যে ফ্রাইলিঙ্ক বিগ শট খেলতে পারে। আমাদের সেই সময়ে যেই রকম ব্যাটিং দরকার সে সেটা করতে পারে। বিশ্বাস ছিল। প্রথম দুই বল খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। ও বাউন্ডারি মারতে পেরেছে। কিন্তু তবুও ২৪ রান! যেটুকু আমরা পেয়েছি তার থেকে বেশি চাওয়া কঠিন। আমরা যে এইটুকু আসতে পেরেছি সেটা আমাদের দলের জন্য ভালো হয়েছে। আমরা লড়াই করতে পেরেছি’– যোগ করেছেন মুশফিক।

কাগজে-কলমে শক্তিশালী দল না হয়েও প্রথম ম্যাচে জিতেছিল চিটাগং। দ্বিতীয় ম্যাচেও জয়ের পথে ছিল তারা। মিরপুরে সিলেটের বিপক্ষে ম্যাচ হারলেও দলের পারফরম্যান্সে খুশি মুশফিক, ‘আমাদের যেই দলটা ছিল আমি অনেক খুশি তাদের পারফরম্যান্সে। বোলিংয়ে শুরুটা ভালো ছিল। মধ্যভাগে একটু বাউন্ডারি হয়েছে। ব্যাটিংয়ে মধ্যভাগে আমাদের দুই-একজন সেট হয়ে যদি একটু বড় রান করত তাহলে ভালো হতো। আপনি শেষ ওভারে ২৪ রান আশা করবেন না। ১০-১২ রান হলে একটা কথা। তবে সব মিলিয়ে আমাদের সবার পারফরম্যান্স ভালো ছিল।’

বল হাতে ২৮ রানে ৪ উইকেট নিয়ে চিটাগংকে জিততে দেননি তাসকিন আহমেদ। চোট থেকে ফিরে আজই স্বরূপে ফিরেছেন ডানহাতি পেসার। তার বোলিংয়েও খুশি মুশফিক, ‘ইনজুরি থেকে ও ফিরেছে, গত ম্যাচেও খারাপ করেনি। আগের ম্যাচে হয়তো বা একটা ওভার খারাপ হয়ে গেছে। আজকে তো খুবই ভালো বল করেছে। এটা তো অবশ্যই বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য একটা ভালো নিদর্শন।’



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৯ জানুয়ারি ২০১৯/ইয়াসিন/পরাগ

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge