ঢাকা, শনিবার, ৬ বৈশাখ ১৪২৬, ২০ এপ্রিল ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

পদ্মায় দুই কিলোমিটার আড়াআড়ি বাঁধ দিয়ে মাছ শিকার

মো. মনিরুল ইসলাম টিটো : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০২-০৭ ২:১১:৩২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০২-১৬ ৪:৩৫:৪২ পিএম

ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলার চরসালেপুর এলাকায় পদ্মা নদীতে বাঁশের বাঁধ দিয়ে মাছ শিকার করছেন স্থানীয় প্রভাবশালীরা।

মাসখানেক ধরে প্রভাবশালীরা অবৈধভাবে মাছ মেরে চললেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে কোন তৎপরতাই দেখা যায়নি।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার গোপালপুর থেকে মৈনট ঘাটে যাওয়ার চ্যানেলের মধ্যবর্তী চরসালেপুর এলাকায় পদ্মা নদীর প্রায় ১৫শ’ মিটার পর্যন্ত আড়াআড়িভাবে কয়েক হাজার বাঁশ পুঁতে বাঁধ দেওয়া হয়েছে। নদীর মূল প্রবাহে তৈরি করা বাঁশের বাঁধে জাল ফেলে মাছ শিকার চলছে। বাঁধের কারণে পানির স্বাভাবিক প্রবাহ ও মাছের অবাধ বিচরণে বাধা ছাড়াও নৌযান চলাচলও বিঘ্নিত হচ্ছে। বাঁধ দিয়ে প্রতিদিন বিপুল পরিমাণ ঝাটকা ইলিশ, রুই, কাতল, চিতল, পাঙ্গাস, বোয়ালসহ নানা মাছ ধরা পড়ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, কিছু স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যাক্তিকে ম্যানেজ করে একটি অসাধু চক্র অবৈধ প্রক্রিয়ায় নদী থেকে মাছ ছেঁকে তুলছে। এতে প্রকৃত মৎস্যজীবিরা বিপাকে পড়েছে। তারা ভাটিতে থাকায় মাছ পাচ্ছেন না। ফলে পরিবার পরিজন নিয়ে কষ্টে দিন কাটাচ্ছেন তারা।
 


পদ্মায় অবৈধ বাঁধ দিয়ে মাছ ধরার বিষয়টি জানা নেই দাবী করে চরঝাউকান্দা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ফরহাদ মৃধা বলেন, ‘কেউ যদি এভাবে বাঁধ দিয়ে মাছ ধরে তবে সেটা ঠিক করেনি।’ তাৎক্ষনিক তিনি বিষয়টি উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তাকে অবহিত করেন।

বাধঁটি উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ও প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই দেওয়া হয়েছে দাবী করে বাঁধদাতাদের একজন কাসেম মেম্বার বলেন, ‘বেশ কিছুদিন ধরে বাঁধ দিলেও মাছ না পড়ায় বাঁধ সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা।’

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মালিক তানভির হোসেন বলেন, ‘নদীতে বাঁধটির বিষয়ে আমার কিছু জানা নেই। তাছাড়া নদীতে এভাবে অবৈধভাবে বাঁধ দেওয়ার কোন সুযোগ নাই।’

তিনি বলেন, ‘১৯৫০ মৎস্য সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী নদীতে আড়াআড়িভাবে বাঁধ দেওয়া শাস্তিযোগ্য অপরাধ। আমরা অতি শীঘ্রই তদন্ত করে বাঁধ প্রদানকারীদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা গ্রহণ করবো।’

চরভদ্রাসন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন সুলতানাও এ ব্যাপারে অবিলম্বে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান।




রাইজিংবিডি/ ফরিদপুর/৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯/মো. মনিরুল ইসলাম টিটো/টিপু

Walton Laptop
     
Walton AC
Marcel Fridge