ঢাকা, শনিবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

ঈদের দ্বিতীয় দিনেও ব্যাপক বিক্রি হচ্ছে ওয়ালটন ফ্রিজ

মিলটন : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৯-০৩ ৩:৪২:২৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৯-০৪ ৯:৩৩:০৬ এএম

মিলটন আহমেদ, খুলনা থেকে : ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও যথাযোগ্য মর্যাদায় পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে। পশু কোরবানির মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় বৃহত্তম এই ধর্মীয় উৎসব উদযাপন করছেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা।

দেশের বাজারে কোরবানির ঈদকেই বিবেচনা করা হয় ফ্রিজ বিক্রির প্রধান মৌসুম হিসেবে। স্বাভাবিক প্রয়োজন ছাড়াও কোরবানির মাংস সংরক্ষণের জন্য এ সময় ফ্রিজের বিক্রি ব্যাপক বেড়ে যায়। এ কারণে বিক্রেতারা সারা বছর অপেক্ষা করেন এই সময়ের জন্য। দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাদেশে ফ্রিজের সিংহভাগ মার্কেট শেয়ার ওয়ালটনের। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। গত রমজান থেকেই ব্যাপক বিক্রি হয়েছে ওয়ালটন ফ্রিজ। ঈদের দুই দিন আগে সারা দেশে ফ্রিজের বাম্পার সেল করেছে দেশের শীর্ষ ইলেকট্রনিক্স ও ইলেকট্রিক্যাল পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানটি।

নিজস্ব কারখানায় প্রস্তুতকৃত ওয়ালটন ফ্রিজ বিক্রি হচ্ছে ঈদের দ্বিতীয় দিনেও। রোববার খুলনার গল্লামারী বাস স্ট্যান্ডের ওয়ালটন প্লাজায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ক্রেতাদের ব্যাপক ভিড়।

এই ওয়ালটন প্লাজায় ফ্রিজ কিনতে এসেছিলেন মাহমুদুল ইসলাম। ঢাকায় কর্মরত মাহমুদুল ইসলাম জানিয়েছেন, ঈদের আগেই ফ্রিজ কিনতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সময়মতো বাড়িতে পৌঁছাতে না পারায় ঈদের আগে ফ্রিজ কিনতে পারেননি।



রাইজিংবিডির সঙ্গে আলাপকালে মাহমুদুল ইসলাম বলেন, ইচ্ছে ছিল ঈদের আগেই ফ্রিজ কেনার। কিন্তু ঢাকা থেকে বাড়িতে আসতে প্রচণ্ড জ্যামের মুখে পড়তে হয়। মাওয়া ফেরিঘাটে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়। বাড়িতে ফিরে আগে কোরবানির পশু কিনি। ঈদ যেহেতু তিন দিনের, তাই আমরা আজ কোরবানি দেব। ফ্রিজ কিনে নিয়ে যাচ্ছি যেন কোরবানির পশুর মাংস ভালোভাবে সংরক্ষণ করতে পারি। ওয়ালটন আমাদের দেশীয় পণ্য। তাদের ফ্রিজের মানও ভালো ও দামে সাশ্রয়ী। তাই দেশীয় ব্র্যান্ডের ওপর আস্থা রাখছি।

বিক্রেতারা জানান, এখানে নন-ফ্রস্ট ফ্রিজের বিক্রির পাশাপাশি দৃষ্টিনন্দন টেম্পারড গ্লাস ডোর, ব্যাচেলর ও বার ফ্রিজ বিক্রি হচ্ছে বেশি। শুধু যে ফ্রিজ বিক্রি হচ্ছে এমনটা নয়, ওয়ালটনের তৈরি টিভি, মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ এবং এসিও বিক্রি হচ্ছে।

গল্লামারীর ওয়ালটন প্লাজার ইনচার্জ মো. জাকিরুল ইসলাম জানান, ক্রেতাদের আস্থা ও চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঈদের দ্বিতীয় দিনেও ওয়ালটন প্লাজা খোলা রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, ঈদের আগে ক্রেতাদের প্রচুর ভিড় ছিল। এ ছাড়া আমাদের রেগুলার কাস্টমার আছে। তাদের অনুরোধেই ঈদের পরের দিনেও শোরুম খোলা রেখেছি। ঈদের সময় ফ্রিজের বিক্রি ভালো হয়। ক্রেতারা আমাদের তৈরিকৃত ফ্রিজের ওপর আস্থা রাখছে। তাদেরকে ভালো এবং উন্নত সেবা দিতেই আমরা সাধ্যমতো চেষ্টা করছি।



দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটন এবার কোরবানির ঈদে ৫ লাখ ফ্রিজ বিক্রির টার্গেট নিয়েছিল। গত ঈদে প্রতিষ্ঠানটি ৪ লাখ ফ্রিজ বিক্রি করেছিল। এরই মধ্যে গত ১ আগস্ট এক দিনেই লক্ষাধিক ফ্রিজ বিক্রির রেকর্ড গড়েছে ওয়ালটন। বর্তমানে শতাধিক মডেলের ফ্রস্ট, নন-ফ্রস্ট এবং ডিপ ফ্রিজ উৎপাদন ও বাজারজাত করছে ওয়ালটন। এর মধ্যে রয়েছে ইনভার্টার প্রযুক্তির ১৬টি মডেলের নন-ফ্রস্ট ফ্রিজ, ছয়টি মডেলের টেম্পারড গ্লাস ডোরের ফ্রস্ট ফ্রিজ। গ্রাহকরা ওয়ালটন ব্র্যান্ডের বিভিন্ন মডেলের ফ্রস্ট ফ্রিজ ১১ হাজার ৬০০ টাকা থেকে ৩৫ হাজার ৩০০ টাকার মধ্যে কিনতে পারছেন। পাশাপাশি, বাজারে ২৮ হাজার ৫০০ টাকা থেকে ৩৬ হাজর ৫০০ টাকার মধ্যে টেম্পারড গ্লাস ডোর এবং ৫০ হাজার ৯৯০ টাকা থেকে ৬১ হাজার ৯০০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ইনভার্টার প্রযুক্তির ব্যাপক বিদ্যুৎসাশ্রয়ী ফ্রিজ।

উল্লেখ্য, এনার্জি রেটিংয়ে ওয়ালটন ফ্রিজ পেয়েছে বিএসটিআইর ফাইভ স্টার রেটিং। ফ্রিজে এক বছরের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টি এবং কম্প্রেসারে সর্বোচ্চ ১০ বছর পর্যন্ত রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টির সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। বাংলাদেশে একমাত্র ওয়ালটনেই আছে আইএসও স্ট্যান্ডার্ড সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। এর আওতায় সারা দেশে ৭০টি সার্ভিস সেন্টার, ৩০০টির বেশি ওয়ালটন প্লাজা এবং সহস্রাধিক পরিবেশক বিক্রয়কেন্দ্রের মাধ্যমে ২ হাজার ৫০০ প্রকৌশলী ও টেকনিশিয়ান বিক্রয়োত্তর সেবা দিচ্ছেন। ফ্রিজে দেওয়া হচ্ছে হোম সার্ভিসও।



রাইজিংবিডি/খুলনা/৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭/মিলটন/অগাস্টিন সুজন/রফিক

Walton Laptop