ঢাকা, সোমবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

ওয়ালটন ইন্ডাকশন কুকারে ডাবল অফার

হাসিবুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০১-০৯ ৭:২৯:০২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-১০ ১০:০৪:৩০ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীতে গ্যাসের সংকট নতুন কিছু নয়। এই সংকট কাটিয়ে স্বাস্থ্যকর ও সুস্বাদু খাবার রান্নার জন্য ২৩তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় দেশের শীর্ষ ইলেকট্রনিক্স, অটোমোবাইল এবং হোম অ্যাপ্লায়েন্স পণ্য উৎপাদন ও বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন নিয়ে এসেছে ইন্ডাকশন কুকার।

এলপি (সিলিন্ডার) গ্যাসের তুলনামূলক বেশি দাম এবং ইনফ্রারেড কুকারে অতিমাত্রায় বিদ্যুৎ খরচ কমাতে ও গৃহিণীদের স্বস্তি দিতে ওয়ালটন এই ইন্ডাকশন কুকার নিয়ে এসেছে।

এবারের বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটনের wi-f15 মডেলের চোখ ধাঁধানো তিনটি কালারের ইন্ডাকশন কুকার বিক্রি করা হচ্ছে ৩ হাজার ৩০০ টাকায়। সঙ্গে আছে ৭ শতাংশ ছাড় ও ননস্টিক  ফ্রাইপেন।

এই ছাড়ের কারণে ক্রেতাদের ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। মঙ্গলবার বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়নে গিয়ে দেখা গেছে, গৃহিণীরা ইন্ডাকশন কুকার রাখা সেলফের সামনে ভিড় জমাচ্ছেন। সবাই খুব আগ্রহ নিয়ে সেখানে কর্তব্যরত কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসা করছেন ইন্ডাকশন কুকারের বিষয়ে।

কথা হয় রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে আসা মনি বেগমের সঙ্গে। তিনি রাইজিংবিডিকে বলেন, মাঝে-মধ্যে খুব গ্যাসের সংকটে পড়তে হয় আমাদের। রান্না করতে গিয়ে ভোগান্তিতেও পড়ি। তাই চিন্তা করে দেখলাম, গ্যাসের বিকল্প কিছু আছে কি না। আমার স্বামী গতকাল বলেছে যে, ওয়ালটনের ইন্ডাকশন কুকার খুব ভালো। তাই আজ কিনতে আসলাম।

তিনি আরো বলেন, এখানে এসে ইন্ডাকশন কুকারটি দেখলাম। দেখে খুব ভালো মনে হচ্ছে। এর আগে আমি ব্যবহার করিনি। তাই এখনই বলতে পারব না, কেমন হবে? তবে আত্মীয়-স্বজন ও প্রতিবেশীদের কাছ থেকে জেনেছি, ওয়ালটন ইন্ডাকশন কুকার খুব ভালো। অন্যান্য কোম্পানির কুকারের থেকে অনেক বিদ্যুৎসাশ্রয়ী।



ওয়ালটন প্যাভিলিয়নের কর্মকর্তা মো. মুন্সী রোকনুজ্জামান জানান, ওয়ালটন ইন্ডাকশন কুকার সর্বাধুনিক প্রযুক্তিতে তৈরি। এতে কম সময়ে, কম বিদ্যুৎ খরচে রান্না করা যায়। নিরাপত্তার দিক থেকেও এর তুলনা হয় না। এতে বৈদ্যুতিক শক বা দুর্ঘটনার আশঙ্কা নেই। ওয়ালটন ইন্ডাকশন কুকারে তাপমাত্রা দ্রুততার সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। অটোটাইম সেট করে রান্না বসিয়ে দিয়ে অন্যান্য কাজও করা যায়।

তিনি আরো জানান, শুরুতে পাত্রকে উত্তপ্ত করতে যে পরিমাণ শক্তি ব্যয় হয়, পাত্রটি গরম হয়ে যাবার পর ওয়ালটন কুকার বুঝে নেবে কখন কী পরিমাণ তাপ প্রয়োজন। সেই অনুযায়ী বিদ্যুৎ গ্রহণ করে। এছাড়া মাল্টি ইন্টেলিজেন্ট কুকিং টেকনোলজি ব্যবহার করায় বিভিন্ন মোডে (যেমন: বয়েল, কুক, স্যুপ, ফ্রাই ইত্যাদি) রান্নার সুবিধা রয়েছে।

বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়নের (নম্বর-২৩) সমন্বয়ক শাহ শহীদ চৌধুরী বলেন, আমাদের মধ্যে অনেকের ধারনা রয়েছে, ইন্ডাকশন কুকারে রান্নার খরচ অনেক বেশি। কিন্তু এটি পুরোপুরি ভুল ধারণা। ইন্ডাকশন কুকারে রান্নার খরচ গ্যাস সিলিন্ডার এবং ইনফ্রারেড কুকারের চেয়ে কম।

তিনি আরো বলেন, ওয়ালটন ইন্ডাকশন কুকারে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ খরচ হয় না। যদি সিলিন্ডার গ্যাসে রান্না করা হয় তাহলে প্রতি মাসে অন্তত ২ হাজার ৫০০ টাকার মতো খরচ হয়ে থাকে। সেখানে ওয়ালটন ইন্ডাকশন কুকারে খরচ হবে সর্বোচ্চ ৭০০ টাকার মতো।

শাহ শহীদ চৌধুরী বলেন, রাজধানীতে মাঝে-মধ্যে খুব গ্যাসের সমস্যা হয়ে থাকে। তাই গৃহিণীদের কথা মাথায় রেখেই কম দামে ভালো মানের পণ্য তাদের হাতে তুলে দিতে আমাদের হোম অ্যাপ্লায়েন্সের বহরে এই ইন্ডাকশন কুকার যোগ করেছি।

তিনি বলেন, ইন্ডাকশন কুকারে চুম্বকে আকৃষ্ট হয় এমন ধরনের পাত্র যেমন: স্টেইনলেস স্টিল, কাস্ট আয়রন, এনামেল্ড স্টিল ইত্যাদি ব্যবহার করতে হয়। যা বিদ্যুৎসাশ্রয়ী, রান্নাও হয় দ্রুত। আর ইনফ্রারেডে রান্নার জন্য সময় লাগে অনেক বেশি, বিদ্যুৎ বিল বেশি। ইনফ্রারেড কুকারে দুর্ঘটনার ঝুঁকি বেশি।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৯ জানুয়ারি ২০১৮/হাসিবুল/রফিক

Walton Laptop
 
     
Walton