ঢাকা, বুধবার, ৫ আষাঢ় ১৪২৬, ১৯ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

চোখ-মুখ বেঁধে র‌্যাব-৩ কার্যালয়ে নেওয়া হয় : ইমরান

আবু বকর ইয়ামিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৬-০৭ ৩:১৩:৩৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৬-০৮ ৯:৩০:০৭ এএম
Walton AC 10% Discount

নিজস্ব প্রতিবেদক : গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারকে কালো কাপড়ে চোখ-মুখ বেঁধে হাতকড়া পরিয়ে তুলে নেওয়া হয়েছিল বলে দাবি করেন তিনি।

তিনি বলেন, আমাকে হাতকড়া পরিয়ে র‍্যাব-৩ এর কার্যালয়ে নেওয়া হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদ করে রাতেই ছেড়ে দেয়। র‍্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এলে কালো কাপড় ও হাতকড়া খুলে দেওয়া হয়। র‍্যাবের কর্মকর্তারা তার সঙ্গে আলোচনা করতে চান বলে জানান।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর–রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

গতকাল বুধবার ইমরান এইচ সরকারকে তুলে নেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে এক সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করে গণজাগরণ মঞ্চ।

ইমরান দাবি করেন, তারা আমার কাছে জানতে চান কিসের জন্য আন্দোলন করছেন? এর উদ্দেশ্য কী? এক পর্যায়ে র‍্যাব কর্মকর্তারা তাদের বক্তব্যে মাদকবিরোধী অভিযানের যৌক্তিকতা ব্যাখ্যা করেন। মাদকের বিরুদ্ধে যে অভিযান চলছে, তার যৌক্তিকতা তুলে ধরতে চান।

ইমরান জানান, তিনি র‍্যাবের কর্মকর্তাদের বলেছেন, মাদকের বিরুদ্ধে যেমন তারা সোচ্চার, তেমনই মাদকবিরোধী অভিযানের নামে যে বিচার-বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড ঘটছে, তার বিরুদ্ধেও তারা সোচ্চার। এ কথাটি তিনি তাদের বোঝানোর চেষ্টা করেন।

তিনি বলেন, যে প্রক্রিয়ায় তাকে তুলে নেওয়া হয়েছে, সেটি কোনোভাবেই কাম্য নয়। শুধু প্রতিবাদ করার জন্য একটি প্রতিবাদ সভা থেকে কোনো ওয়ারেন্ট ছাড়া সিনেম্যাটিক স্টাইলে তুলে নেওয়ার বিষয়টি প্রত্যাশিত নয়।’

ইমরান বলেন, শাহবাগ থানার পুলিশ এবং ঢাকা মহানগর পুলিশকে (ডিএমপি) লিখিতভাবে অবহিত করেই তারা সমাবেশের আয়োজন করেছিলেন। তাই অনুমতি নেওয়া হয়নি বলে যে দাবি করা হয়েছে, তা সঠিক নয়। অনুমতি নেওয়া হয়েছে কিনা, এটা দেখার দায়িত্ব র‍্যাবের না, এটা পুলিশের।

সংবাদ সম্মলেনে ডিএমপির বরাবর পাঠানো কর্মসূচির অবগতি ও নিরাপত্তার আবেদনপত্রের একটি কপি দেখান ইমরান।

সংবাদ সম্মেলনে মানবাধিকার কর্মী খুশি কবীর বলেন, বিচারব্যবস্থাকে পাশ কাটিয়ে নিজের হাতে যেভাবে হত্যা করা হচ্ছে, এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা সব নাগরিকের নৈতিক দায়িত্ব।

তুলে নেওয়ার পর তাকে কখন ছাড়া হয়- এমন প্রশ্নের জবাবে ইমরান এইচ সরকার বলেন, তুলে নেওয়ার পর তার বোন ও ভাইয়ের ফোন নম্বর নেন র‍্যাবের কর্মকর্তারা। তাদের ডেকে নেওয়া হয়। এরপর তাদের জিম্মায় রাতে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এদিকে ইমরানকে আটক ও নেতা-কর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে আজ বিকেল ৪টায় প্রতিবাদ সমাবেশের আয়েজান করেছে গণজাগরণ মঞ্চ।

সংবাদ সম্মেলন সঞ্চালনা করেন উদীচীর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জামশেদ আনোয়ার তপন। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করে শোনান ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সভাপতি ডি এম জিলানী শুভ।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৭ জুন ২০১৮/ইয়ামিন/মুশফিক

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge