ঢাকা, রবিবার, ১১ ফাল্গুন ১৪২৫, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

১৫ বলে ৪ রান দিয়ে ৬ উইকেট নিলেন বোল্ট

আমিনুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-১২-২৭ ৭:২৫:৪০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১২-২৭ ১০:৩৮:৫০ পিএম

ক্রীড়া ডেস্ক : ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে নিউজিল্যান্ড প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ১৭৮ রানে অলআউট হয়। জবাবে ৪ উইকেট হারিয়ে ৮৮ রান তুলে খানিকটা স্বস্তি নিয়ে দিন শেষ করেছিল শ্রীলঙ্কা। কিন্তু দ্বিতীয় দিন এক ট্রেন্ট বোল্ট ঝড়ে সবকিছু তছনছ হয়ে যায় শ্রীলঙ্কার। বৃহস্পতিবার বোল্ট শ্রীলঙ্কার বাকি ছয়টি উইকেটের ছয়টিই নেন। তাও ১৫ বলের মধ্যে মাত্র ৪ রান দিয়ে।

আগের দিন শ্রীলঙ্কার যে ৪টি উইকেটের পতন হয়েছিল তার তিনটি নিয়েছিলেন টিম সাউদি। একটি নিয়েছিলেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। আজ বাকি ছয়টি নেন বোল্ট। তার করা ১৫ বলের ৬টিতে উইকেট পান। ১টিতে চার হয়। বাকি ৮টি ছিল ডট।

চলুন চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাক বোল্টের বিধ্বংসী সেই ১৫টি বলে...

প্রথম বল, আউট :
বৃহস্পতিবার ৩৭তম ওভারের চতুর্থ বলে রোশেন সিলভাকে টিম সাউদির হাতে ক্যাচ বানিয়ে ফেরত পাঠান বোল্ট। এটা ছিল তার প্রথম উইকেট।

দ্বিতীয় বল, চার :
৩৭তম ওভারের পঞ্চম বলে নিরোশান ডিকভেলা বোল্টকে মিডউইকেট দিয়ে চার মারেন।

তৃতীয় বল, ডট :
এই ওভারের শেষ বলে ডিকভেলা কোনো রান নিতে পারেননি। লেন্থ বল আউটসাইট দিয়ে চলে যায়।

চতুর্থ বল, আউট :
৩৯তম ওভারে আবার বল হাতে আসেন বোল্ট। এসেই প্রথম বলে ফেরান ডিকভেলাকে। আবারো সেই সাউদি। বোল্টের ফুল লেন্থেরডেলিভারি এজ হয়ে সাউদির হাতে জমে যায়।

পঞ্চম বল, ডট :
এই ওভারের দ্বিতীয় বলে কোনো রান নিতে পারেননি নতুন ব্যাটসম্যান দিলরুয়ান পেরেরা। রক্ষণাত্বক ভঙ্গিতে খেলেন।

ষষ্ঠ বল, ডট :
ওভারের তৃতীয় বলটি কভার অঞ্চলে ঠেলে দেন পেরেরা।

সপ্তম বল, ডট :
চতুর্থ বলেও কোনো রান নিতে পারেননি পেরেরা।

অষ্টম বল, আউট :
৩৯তম ওভারের তিনটি বল খেলে পঞ্চম বলে আউট হয়ে যান দিলরুয়ান পেরেরা। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি। এলবিডব্লিউ হয়ে কোনো রান না করেই ফিরে যান তিনি।

নবম বল, আউট :
৩৯তম ওভারের শেষ বলে সুরাঙ্গা লাকমলকেও এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে ফেরান বোল্ট। ফুল, ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস বলের সুইং এর কাছে পরাস্ত হন লাকমল। বল তার টো-তে আঘাত করে। সিদ্ধান্ত নিতে বেগ পেতে হয়নি আম্পায়ারকে।

দশম বল, হ্যাটট্রিক চান্স :
৪১তম ওভারে আবার বল হাতে আসেন বোল্ট। ৩৯তম ওভারের শেষ দুই বলে দুই উইকেট নেওয়ায় হ্যাটট্রিক চান্স। কিন্তু হয়নি। দুষমান্থে চামিরা ফ্রন্ট ফুটে এসে রক্ষণাত্বক ভঙ্গিতে বলটি রুখে দেন।



একাদশ বল, আউট :

অবশ্য পরের বলেই আউট হয়ে যান চামিরা। আবারও এলবিডব্লিউ। এটা ছিল তার পঞ্চম উইকেট। বোল্টের লেন্থ বল গিয়ে চামিরার ফ্রন্ট প্যাডে আঘাত করে। আম্পায়ার আঙ্গুল তুলেন।

দ্বাদশ বল, ডট :
নতুন ব্যাটসম্যান লাহিরু কুমারা বোল্টের ৪১তম ওভারের তৃতীয় বল গায়ে লাগা থেকে নিজেকে রক্ষা করেন।

ত্রয়োদশ বল, ডট :
পরের বলটিতেও কোনো রান নিতে পারেননি কুমারা।

চতুর্দশ বল, ডট :
ওভারের পঞ্চম বলটিও ডট হয়।

পঞ্চদশ বল, আউট :
৪১তম ওভারের পঞ্চম বলে আর শেষ রক্ষা হয়নি লাহিরু কুমারার। সরাসরি স্ট্যাম্পের বল মিস করে এলবিডব্লিউ হয়ে যান। অবশ্য রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি তিনি। তাতে মাত্র ১৫ বল করে ৪ রান দিয়ে ৬টি উইকেট নিজের পকেটে পুরেন বোল্ট।

এতো ভালো বোলিং এর রহস্য কী? বোল্ট জানিয়েছেন, ‘এটা সম্ভবত দেশের সবচেয়ে সেরা সুইং বোলিং গ্রাউন্ড। আসলে চারদিকে যখন বলকে মুভ করানো যায় তখন খুব ভালো লাগে। নিজের সবকিছু উজার করে দিয়ে বল করা যায়। আসলে এটা আমার ছন্দের ব্যাপার। প্রথম দিন আমি কোনো উইকেট পাইনি। আজ শুরুতে উইকেট পাওয়ায় আত্মবিশ্বাস বেড়েছে। তার সঙ্গে ছন্দ ছিল। আসলে কখনো কখনো আপনি ভাবতেও পারবেন না দিনটি আপনার জন্য এমন হয়ে উঠবে।’



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৭ ডিসেম্বর ২০১৮/আমিনুল

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC