ঢাকা, রবিবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

রোমাঞ্চকর ও মহাকাব্যিক এক জয়

আলী নওশের : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৮-৩০ ৮:৪৬:৫২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৯-০৫ ৭:২৩:৫৩ পিএম

মাঠে অধীর আগ্রহে দর্শক আর টিভি সেটের সামনে বসে লক্ষ-কোটি দর্শক। জিততে অস্ট্রেলিয়ার চাই ২১ রান আর বাংলাদেশের এক উইকেট। বল করছিলেন তাইজুল। হঠাৎ জোড়ালো আবেদন। আঙুল তুলে দিলেন আম্পায়ার। সঙ্গে সঙ্গে বাঁধভাঙা উল্লাস। এমন দৃশ্যের অবতারণাই হয়েছে বুধবার দুপুরে ঢাকার মিরপুরে শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে। টেস্ট ক্রিকেটে অভিজাত অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ১১ বছর পর খেলতে নেমে ২০ রানের অবিস্মরণীয় বিজয় ছিনিয়ে এনেছে মুশফিক বাহিনী।

প্রবল পরাক্রমশালী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এটি প্রথম টেস্ট জয় বাংলাদেশের। অসাধারণ এই জয়ের নায়ক সাকিব আল হাসান। প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও পাঁচ উইকেট নিয়েছেন তিনি। প্রথম ইনিংসে ব্যাট হাতে করেছিলেন ৮৪ রান। দ্বিতীয় ইনিংসে রান না পেলেও বল হাতে অসিদের বধ করে নিজের ৫০তম টেস্ট ম্যাচকে স্মরণীয় করে রাখলেন। দ্বিতীয়বারের মত ১০ উইকেট নিয়েছেন তিনি যে রেকর্ড বাংলাদেশে আর কারও নেই।

চতুর্থ দিনে সকালে মনে হচ্ছিল হাত ফসকে বেরিয়ে যাচ্ছে জয়। আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে তাইজুল-মিরাজকে চাপে ফেলে দিয়েছিলেন ওয়ার্নার। ওয়ার্নারের ব্যাটে ম্যাচ যখন বেরিয়ে যাওয়ার পথে, তখনই জাদুকরী পারফরম্যান্সে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন সাকিব। প্রথমে তিনি রানের গতি স্তিমিত করেন। এরপর অসাধারণ এক ডেলিভারিতে ফিরিয়ে দেন ওয়ার্নারকে। এরপর অসি ব্যাটিংয়ের অপর ভিত্তি স্মিথকে আউট করে অস্ট্রেলিয়াকে আরো চাপে ফেলে বাংলাদেশ।

সাকিবের পাশাপাশি তামিমেরও এটি ছিল ৫০তম টেস্ট। মুশফিকুর রহিম টেস্টের আগে বলেছিলেন, এই দুই নায়কের জন্যই খেলবে বাংলাদেশ। সত্যিই তাই- খেলেছে বাংলাদেশ, খেলেছে পুরো দল। আর সতীর্থ তথা দেশকে এদুজন উপহার দিলেন অবিস্মরণীয় জয়। সাকিবের অসাধারণ অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের সঙ্গে দুই ইনিংসে তামিমের যথাক্রমে ৭১ ও ৭৮ রান।

সাকিবে উজ্জীবিত তাইজুলও দারুণ বোলিং করেছেন। পিটার হ্যান্ডসকমকে আউট করে টেস্টে ৫০ উইকেট পূর্ণ করেছেন তাইজুল। দুই ইনিংসে তাইজুলের ঝুলিতে ৪ উইকেট। বিজয়ের ক্যানভাসে তুলির আঁচড় আছে মিরাজেরও। দুই ইনিংসে তার উইকেট ৫। সব মিলিয়ে দলগত অসাধারণ পারফরম্যান্স। আর তাই ম্যাচ শেষে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ বললেন, ‘কোনো অজুহাত হতে পারে না এ পরাজয়ের। অসাধারণ খেলেছে বাংলাদেশ দল।’

টেস্ট ক্রিকেটে এটি বাংলাদেশের দশম জয়। এর আগে জিম্বাবুয়েকে পাঁচবার ও ওয়েস্ট ইন্ডিজকে দুবার, শ্রীলঙ্কা ও ইংল্যান্ডকে একবার করে হারিয়েছে বাংলাদেশ। গত বছর এই শেরে বাংলা স্টেডিয়ামেই ইংল্যান্ডকে ১০৮ রানে হারায় বাংলাদেশ দল। বুধবারের জয়ের মধ্য দিয়ে ১০১ তমে টেস্টে ১০ম জয় তুলে নিল টাইগার বাহিনী। এক রোমাঞ্চকর ও মহাকাব্যিক বিজয় অর্জন করে মিরপুর টেস্টকে স্মরণীয় করে রাখলেন মুশফিক-সাকিব-তামিমরা। আমাদের প্রত্যাশা এভাবেই ক্রিকেট পরাশক্তিদের হারিয়ে এগিয়ে যাবে টাইগার বাহিনী। ক্রিকেট বিশ্বে নিজেদের নিয়ে যাবে অনন্য উচ্চতায়।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৩০ আগস্ট ২০১৭/আলী নওশের

Walton Laptop