ঢাকা, শনিবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

ঈদের দিন বৃষ্টি হতে পারে

হাসান মাহামুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৯-০১ ১২:৪৮:৫৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৯-০১ ৪:৪৩:৩৬ পিএম
ফাইল ফটো

নিজস্ব প্রতিবেদক : সারা দেশে আগামীকাল শনিবার উদযাপন হবে পবিত্র ঈদুল আজহা। ঈদের দিন সকালেই রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হতে পারে। এমনকি ঈদের পরদিন বৃষ্টি আরো বাড়তে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, ঈদের দিনে রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হতে পারে। চট্টগ্রাম, সিলেট ও রংপুর এসব স্থানে বেশি বৃষ্টি হবে। তবে বৃষ্টির পরিমাণ বাড়তে পারে ঈদের পরদিন রোববার।

এদিকে শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার অধিদপ্তরের আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা ও খুলনা বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে অতি ভারি বর্ষণ হতে পারে।

সারা দেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে। আগামী ৭২ ঘণ্টায় বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়তে পারে।

সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরসমূহের জন্য আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজার অঞ্চল সমূহের ওপর দিয়ে দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

এ সকল এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর (পুনঃ) ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার দেশের কিছু স্থানে বৃষ্টি হয়েছে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে ফেনীতে। গতকাল এই অঞ্চলে সর্বোচ্চ ১১৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। গতকাল দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাজশাহীতে ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিন্ম তাপমাত্রা ছিল ফেনীতে ২৪ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আজ সকাল ৬টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল ৯৭ শতাংশ। ঢাকায় আজ সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৬টা ১৭ মিনিটে এবং আগামীকাল শনিবার সূর্যোদয় ভোর ৫টা ৪০ মিনিটে।

আবহাওয়া চিত্রের সংক্ষিপ্তসারে বলা হয়, গুজরাট ও তৎসংলগ্ন আরব সাগরে অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি দূর্বল ও গুরুত্বহীন হয়ে গিয়েছে। মৌসুমি বায়ুর অক্ষ গুজরাট, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে দূর্বল থেকে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১ সেপ্টেম্বর ২০১৭/হাসান/এসএন

Walton Laptop