ঢাকা, শুক্রবার, ৬ আশ্বিন ১৪২৫, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

জাবিতে বিএনজিএ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

তহিদুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৭-১১-২৪ ৪:০১:২৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০২-১৩ ১২:৪১:১২ পিএম

জাবি সংবাদদাতা : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ‘ওয়াটার ইস্যুজ এন্ড সাসটেইনেবল ডেভেপমেন্ট’ শীর্ষক বাংলাদেশ ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএনজিএ) ১৫তম ‘বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক জিওগ্রাফিক্যাল কনফারেন্স-২০১৭’ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জহির রায়হান মিলনায়তনের সেমিনার কক্ষে দিনব্যাপী এই সম্মেলন শুরু হয়। ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সার্বিক সহযোগিতায় সম্মেলনের উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম। উদ্বোধনী অধিবেশনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিএনজিএ’র মহাসচিব অধ্যাপক মো. নজরুল ইসলাম।

এ সময় প্রধান অতিথির ভাষণে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম বলেন, বাংলাদেশে কৃষিক্ষেত্রে পানি সম্পদের ঋতুভিত্তিক কাম্য ব্যবহার নিশ্চিতকরণের জন্য বাংলাদেশে বহমান সকল আন্তর্জাতিক নদীসমূহের সমন্বিত পানি ব্যবস্থাপনা অতীব জরুরি। পানির সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা না থাকলে টেকসই উন্নয়ন ব্যাহত হবে।

তিনি বলেন, আন্তঃপানি বণ্টন ও হ্রাস নিয়ে রাষ্ট্রের পাশাপাশি ব্যক্তিগত পর্যায়ের আলোচনার আবশ্যকতা রয়েছে। অনেক শিল্প প্রতিষ্ঠান যথাযথ প্রক্রিয়ায় পানি শোধন না করে ড্রেনে ছেড়ে দিচ্ছে। এর মাধ্যমে ভালো পানির স্তর নষ্ট হচ্ছে। শিল্প উন্নয়নের নামে পানি দূষণের এই ধরনের অপরাধ বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে।

সম্মেলনে গঙ্গা নদীর পানি ব্যবস্থাপনা বিষয়ে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. রঞ্জন বসু। তিনি তার প্রবন্ধের আলোকে বলেন, টেকসই উন্নয়নের জন্য পানি সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা জরুরি। পানি কম বা বেশি দুটিতেই সমস্যা থাকে। পানি কম থাকলে খরা আবার বেশি হলে বন্যার সৃষ্টি হয়। পানির সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার জন্য নগর ও গ্রামভিত্তিক কর্ম পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। এই পরিকল্পনায় পানির চাহিদা নির্ণয় করে সেই অনুযায়ী পানি সরবরাহ করতে হবে। পানি অব্যাহতভাবে উত্তোলনের ফলে পানির স্তর নেমে যাচ্ছে। এর প্রতিকারের জন্য ভূ-উপরিভাগের পানি শোধন করে বহুবিধ ব্যবহার করা যেতে পারে।



বিএনজিএ’র সভাপতি অধ্যাপক সৈয়দ রফিকুল আলম রুমির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক মো. আবুল হোসেন, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মো. আমির হোসেন ও কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ মো. মনজুরুল হক।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. কায়কোবাদ হোসেন, সম্মেলনের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক দেশের সর্ববৃহৎ ইলেট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স, হোম অ্যাপলায়েন্স ও টেলিকমিউনিকেশন পণ্য প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক হুমায়ুন কবির প্রমুখ। উদ্বোধনী অধিবেশনে সমাপনী বক্তব্য রাখেন সম্মেলনের আহ্বায়ক ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক মো. নুরুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে জাবির ইংরেজি বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক অধ্যাপক নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করা হয়। বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য অনুষ্ঠানে ১৬ জন অতিথিকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

সম্মেলনে দুপুর আড়াইটার দিকে শুরু হওয়া টেকনিক্যাল সেশনের চার পর্বে অর্ধশতাধিক ভূগোলবিদ তাদের গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। সন্ধ্যা ৭টার দিকে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সম্মেলন শেষ হয়। 

বাংলাদেশে প্রতি দুই বছর পর পর এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।



রাইজিংবিডি/জাবি/২৪ নভেম্বর ২০১৭/তহিদুল ইসলাম/বকুল

Walton Laptop
 
     
Walton