ঢাকা, শুক্রবার, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৬ নভেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

মেলায় সাদিয়া সুলতানার উপন্যাস ‘আমি আঁধারে থাকি’

সাইফ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০২-০৮ ১:০৯:৪৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০২-০৮ ১:০৯:৪৯ পিএম

ডেস্ক রিপোর্ট : অমর একুশে বইমেলায় (২০১৮) প্রকাশিত হয়েছে সাদিয়া সুলতানার তৃতীয় গ্রন্থ ‘আমি আঁধারে থাকি’।

বইটি উপন্যাস গ্রন্থ। প্রকাশ করেছে চৈতন্য। প্রচ্ছদ করেছেন রাজীব দত্ত। দুইশ পৃষ্ঠার উপন্যাসটির দাম রাখা হয়েছে ২২৫ টাকা।

উপন্যাসটি সম্পর্কে সাদিয়া সুলতানা জানিয়েছেন, গাইবান্ধা জেলার সোনারা গ্রামের একজন কয়েদখাটা আসামির মেয়ে নূরকে নিয়ে কাহিনি আবর্তিত। অর্ধশিক্ষিত বা অশিক্ষিত কিছু মানুষেরও গভীর জীবনদর্শন থাকতে পারে, যারা নূরকে প্রভাবিত করে। জীবনের প্রগাঢ় বঞ্চনার পরও নূর নিজের দীপ্তিতে দীপ্তমান হয়। উপন্যাসের কেন্দ্রীয় চরিত্র নূরকে ঘিরে কিছু চরিত্র এসেছে-ফুপুজি ফজিলা, হেনা, তুষার, প্রিয়াংকা, সাইফুল, শাহীন, হেদায়েত উল্লাহ। আপাতদৃষ্টিতে একজন অসুন্দর নারী নূর ভাগ্য বিবর্জিতা হবার পরেও জগতের ঠুনকো হিসেব-নিকেশকে উপেক্ষা করেও পথ চলতে থাকে।

তিনি আরো জানান, গাইবান্ধার আঞ্চলিক ভাষায় এই উপন্যাসের সংলাপ রচিত হয়েছে। ‘কোনো কোনো রাত মায়ের গন্ধ নিয়ে হাজির হয়। এক সময় কিশোরীকালের মত দুই বেণী ঝুলিয়ে আমরা মা-মেয়ে আলো নিয়ে খেলি। খেলায় বিভোর মা আমাকে বুকে নিতে নিতে বলে, ‘আয় মা বুকত আয়, হামরা দুইজনে শলক নিয়া খেলমো। ম্যালা শলক চরুপাকে। এ্যানাও আন্ধার নাই!’ খেলে খেলে ক্লান্ত হয়ে মায়ের কোলে মাথা রেখে ঘুমপাড়ানি গান শুনতে শুনতে আমি ঘুমিয়ে পড়ি। মাঝরাতে যখন ঘুম ভাঙে তখন আমাকে বিস্মৃত সব চুম্বনের স্মৃতি ঘিরে ধরে। সময় যায় আর আমি পুড়তে থাকি অসময়ের আগুনে। মনে পড়ে, এ চোখে-নাকে কারো স্পর্শ নেই, এ ঠোঁটে-জিহ্বায় কারো স্পর্শ নেই। এ শরীরের আমূল ভাঁজে কারো কোনো স্পর্শ নেই। এই শরীরের আড়ালে অন্য কোনো শরীর নেই। তারপর ঘুমহীন আমি অন্ধকার রাত্রিতে অরুন্ধতী খুঁজতে বের হয়ে দেখি জোড় তারাটা হারিয়ে গেছে।’

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮/সাইফ

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC