ঢাকা, শনিবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

তৌফা-তহুরা ভালো থাকুক

আহমদ নূর : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৯-১০ ৪:৩২:৩০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৯-২০ ১:০০:০২ পিএম
ছবি : শাহীন ভূঁইয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক : ২০১৬ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর। গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার রাজু-সাহিদা দম্পতির ঘর আলো করে জন্ম নেয় তৌফা-তহুরা নামের যমজ শিশু।

ঘর আলো করে আসা দুই সন্তানে এ দম্পতির খুশি দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। কারণ যমজ শিশু জোড়া লাগা ছিল। তাদের কপালে তৈরি হয়েছিল চিন্তার ভাঁজ। চিন্তায় ছিলেন কীভাবে তাদের সুস্থ করে তুলবেন।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের চিকিৎসকদের দক্ষতা ও অক্লান্ত পরিশ্রমের কারণে সন্তানদের নিয়ে এখন আর রাজু-সাহিদা দম্পতির দুশ্চিন্তা থাকবে না। এখন তারা হাসবে, খেলবে, দৌড়াবে। তবে জোড়া নয়, আলাদা হয়ে।

 


জটিল রোগাক্রান্তদের চিকিৎসায় বাংলাদেশের চিকিৎসকদের সম্প্রতি সাফল্য অনেক বেশি। বিশ্বের উন্নত দেশের মতো জটিল রোগাক্রান্তদের চিকিৎসার মাধ্যমে সুস্থ করে তুলছেন এ দেশের চিকিৎসকরা। এ ধরনের সাফল্যে দেশীয় চিকিৎসকদের সাফল্যে আরেকটি পালক যোগ হয় এ বছরের গত ৩ আগস্ট; অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তৌফা-তহুরাকে আলাদা করে। অস্ত্রোপচারের পর তাদের সুস্থ করে তুলে সেই পালক শক্তভাবে গাঁথলেন চিকিৎসকরা। এর আগে গত বছরের অক্টোবরের দ্বিতীয় সপ্তাহে তাদের ঢামেকে ভর্তি করানো হয়। তাদের কোমরের কাছে জোড়া লাগানো ছিল। তবে শিশু দুটির প্রস্রাব-পায়খানার রাস্তা ছাড়া সব অঙ্গ-প্রত্যঙ্গই আলাদা ছিল।

সুস্থ অবস্থায় তাদের আজ রোববার ঢামেক থেকে ছাড়পত্র দিয়েছেন চিকিৎসকরা। উৎসবমুখর এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাদের হাসপাতাল থেকে বিদায় দেন তারা। এ সময় তৌফা, তহুরা ও তাদের মা-বাবাকে নতুন পোশাক ও একটি সংগঠনের পক্ষ থেকে দেওয়া ৯৫ হাজার টাকা তুলে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. নাসির উদ্দীন আহমেদ, শিশু সার্জারি বিভাগের  সহযোগী অধ্যাপক শাহনূর ইসলাম, বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন প্রমুখ।

 


অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এসব সাফল্যের মাধ্যমেই প্রমাণিত হয় চিকিৎসা খাতে আমরা কতটুকু এগিয়েছে। তৌফা-তহুরার জন্য আমার শুভ কামনা। তারা ভাল থাকুক।’

হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে সরাসরি তারা গ্রামের বাড়ি গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে যাবেন বলে জানিয়েছেন শিশু দুটির মা সাহিদা বেগম।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭/নূর/মুশফিক

Walton Laptop