ঢাকা, বুধবার, ৪ মাঘ ১৪২৪, ১৭ জানুয়ারি ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

‘বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাসেবার প্রতি মানুষের আস্থা বেড়েছে’

আহমদ নূর : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৮-০১-০৪ ৭:৪৫:৩২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-০৪ ৭:৪৫:৩২ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান বলেছেন, চিকিৎসা শিক্ষা, চিকিৎসা সেবা ও সংশ্লষ্ট গবেষণা কার্যক্রম এগিয়ে নিতে বিএসএমএমইউর বর্তমান প্রশাসন নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার বিএসএমএমইউ’র উপাচার্য কার্যালয়ে এক সভায় কামরুল ইসলাম এ কথা বলেন। ইম্পিরিয়াল কলেজ লন্ডনের অনারারি ক্লিনিক্যাল লেকচারার ডা. মনজুর শওকতের সঙ্গে বিএসএমএমইউ ও ইম্পিরিয়াল কলেজ লন্ডনের যৌথ গবেষণার প্রয়াস, রোগীদের উন্নত সেবা বৃদ্ধিকরণসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় বিএসএমএমইউর কার্ডিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সজল কৃষ্ণ ব্যানার্জী, ডিপার্টমেন্ট অব অটোল্যারিংগোলজি হেড নেক সার্জারি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান তরফদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান বলেন, বিএসএমএমইউর সঙ্গে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, রকফেলার ফাউন্ডেশন, অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সেস, সিএমএইচ, ইউনিসেফ, জন হপকিন্স, শিকাগো ইউনিভার্সিটি, মাহিদোল বিশ্ববিদ্যালয়, কানাডার নভেল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, জাপানের নাগোয়া বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের বহির্বিভাগে প্রতিদিন ৮ হাজার রোগী সেবা নিচ্ছেন। এ থেকেই প্রমাণিত হয়, এ বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা সেবার প্রতি মানুষের আস্থা বৃদ্ধি পেয়েছে। উচ্চতর চিকিৎসা শিক্ষা কার্যক্রম সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে পরিচালনার জন্য এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত রেসিডেন্ট শিক্ষার্থীদের জন্য মাসিক ২০ হাজার টাকা পারিতোষিকের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এর আগে অধিভুক্ত রেসিডেন্ট শিক্ষার্থীদের জন্য কোনো টাকাই বরাদ্দ ছিল না। প্রকৃতপক্ষে, বিএসএমএমইউ কোনো ধরনের বাণিজ্য নয়, বরং রোগীদের স্বার্থ, উচ্চতর ডিগ্রি অর্জনের অভিপ্রায়ে অধ্যয়নরত ছাত্রছাত্রীদের স্বার্থে, উন্নত গবেষণার মাধ্যমে প্রতিনিয়ত চিকিৎসাসেবার মান ও সুযোগ বৃদ্ধির কথা বিবেচনায় নিয়ে যাবতীয় কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

বিশ্বসেরা চিকিসক হতে হবে : একই দিনে বিশ্ববিদ্যালয়ে এ-ব্লক অডিটোরিয়ামে অপর এক অনুষ্ঠানে ডা. কামরুল হাসান খান বলেছেন, রোগীদের সার্বক্ষণিক সেবাদান ও সুযোগের সর্বোচ্চ ব্যবহার করে বিশ্বসেরা চিকিৎসক হতে হবে। মেডিক্যালে উচ্চশিক্ষায় অধ্যয়নরত অবস্থায় প্রাইভেট প্র্যাকটিস করা যাবে না। রোগীদের বেডে বসে রোগীর রোগের বিবরণী লিখতে হবে, দরদী মনের মানবিক গুণসম্পন্ন সৎ, দক্ষ ও যোগ্য চিকিৎসক হতে যা যা করণীয় সবকিছুই করতে হবে। হাসপাতালে আসা রোগীদের আর্তনাত সেবার মাধ্যমে দূর করতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত ৪২টি মেডিক্যাল কলেজ ও ইন্সটিটিউটে অধ্যয়নরত রেসিডেন্টদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে আরো ‍উপস্থিত ছিলেন, বিএসএমএমইউর উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আলী আসগর মোড়ল, প্রাক্তন উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. মো. রুহুল আমিন মিয়া, সার্জারি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. এবিএম আব্দুল হান্নান, প্রক্টর অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবুর রহমান দুলাল, ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মো. আনোয়ার হোসেন, সিলেট মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোরশেদ আহমেদ,  কোর্স ডাইরেক্টর অধ্যাপক ডা. সেলিমুর রহমান, অধ্যাপক ডা. এইচএম তৌহিদুল আলম, অধ্যাপক ডা. সত্যরঞ্জন, অধ্যাপক ডা. মোখলেসুর রহমান, অধ্যাপক ডা. মুহিত কামাল প্রমুখ।

 

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/৪ জানুয়ারি ২০১৭/নূর/মুশফিক

Walton
 
   
Marcel