ঢাকা, বুধবার, ৩ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৮ জুলাই ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

উনের সঙ্গে কথা বলতে আগ্রহী ট্রাম্প

রাসেল পারভেজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০১-০৭ ৯:০৪:০৩ এএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-০৭ ১০:৫১:০৯ পিএম
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা উন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শনিবার বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলতে সত্যিই আগ্রহী তিনি।

উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যকার সম্ভাব্য আলোচনা থেকে ভালো ফলাফল বেরিয়ে আসার প্রত্যাশাও করেন তিনি। কিম জং-উনের সঙ্গে চলমান বাকযুদ্ধের মধ্যে সুর নরম করে এই প্রথম উত্তর কোরিয়ার মঙ্গল প্রত্যাশা করতে দেখা গেল ট্রাম্পকে।

যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া তাদের একটি যৌথ সামরিক মহড়া স্থগিত করার কয়েক ঘণ্টা পর উত্তর কোরিয়া শুক্রবার জানায়, তারা দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে আগামী সপ্তাহে আনুষ্ঠানিক আলোচনায় বসতে রাজি। প্রায় দুই বছর পর দুই কোরিয়ার মধ্যে সরসারি আলোচনা হতে যাচ্ছে। পিয়ংইয়ং পরমাণু ও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা অব্যাহত রাখার জবাবে এ সামরিক মহড়া চালানোর কথা ছিল তাদের।

মেরিল্যান্ডের ক্যাম্প ডেভিডে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প বলেন, তিনি উনের সঙ্গে কথা বলতে আগ্রহী, তবে তা পূর্ব শর্ত ছাড়া নয়। তিনি বলেন, ‘অবশ্যই আমি তা করতে পারি... এ নিয়ে আমার কোনো সমস্যা নেই।’

ট্রাম্প ক্ষমতায় বসার পর থেকে কিম জং-উনের সঙ্গে তার বাকযুদ্ধ লেগেই আছে। তারা পরস্পরকে কথার তীরে বিদ্ধ করে চলেছেন। একে অপরকে অপমান করতে ছাড়েন না। ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা অব্যাহত রাখায় উনকে ‘রকেটম্যান’ বলে ডাকেন ট্রাম্প। আর ট্রাম্পকে ‘ভীমরতিগ্রস্ত বৃদ্ধ’ ও ‘মানসিক বিকারগ্রস্ত বুড়ো’ বলে সম্বোধন করেন উন।

ট্রাম্পকে খোঁচা দিয়ে সম্প্রতি কিম জং-উন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পরমাণু বোমার বোতাম সবসময় তার টেবিলেই থাকে। এর প্রতিক্রিয়ায় ট্রাম্পও এককাঠি উপরে সুর চড়িয়ে বলেন, উনের বোতামের চেয়ে আমারটা আরো বেশি বড় ও শক্তিশালী।

ফেব্রুয়ারি মাসে দক্ষিণ কোরিয়ায় অনুষ্ঠেয় শীতকালীন অলিম্পিকে উত্তর কোরিয়ার অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা নিয়ে দুই কোরিয়ার মধ্যে আলোচনা হতে যাচ্ছে। এর মাধ্যমে তাদের মধ্যে সম্পর্কের উন্নতি হওয়ার সুযোগও সৃষ্টি হবে বলে অনেকে প্রত্যাশা করছেন।

ট্রাম্প দাবি করছেন, উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে চাপ অব্যাহত রাখায় এ আলোচনা হতে যাচ্ছে। তবে তিনি দুই কোরিয়ার মধ্যে সম্পর্কের উন্নতিও দেখতে চান। ট্রাম্প বলেন, ‘দেখুন, তারা এখন অলিম্পিক নিয়ে কথা বলতে যাচ্ছে। এটি কেবল শুরু, বিশাল শুরু। আমি যদি অন্তর্ভুক্ত না হতাম, তাহলে তারা এই মুহূর্তে আদৌ কথা বলতে পারত না।’

ট্রাম্প আরো বলেন, ‘কিম জানেন আমি তালগোল পাকাচ্ছি না। আমি তালগোল পাকাচ্ছি না। যদি বলেন সামান্য, তাও না, এক শতাংশও না।’ এরপর তিনি বলেন, ‘যদি এই আলোচনা থেকে কোনো ফল বেরিয়ে আসে, তাহলে তা হবে মানবতার জন্য বিশাল কিছু, তা হবে এই বিশ্বের জন্য বিশাল কিছু।’

তথ্যসূত্র : রয়টার্স অনলাইন



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৭ জানুয়ারি ২০১৮/রাসেল পারভেজ

Walton Laptop
 
     
Walton