ঢাকা, রবিবার, ৮ বৈশাখ ১৪২৬, ২১ এপ্রিল ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

উইঘুর ক্যাম্প বন্ধ করো : চীনকে তুরস্ক

সাইফুল আহমেদ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০২-১০ ১২:০১:৪৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০২-১০ ৬:১৬:২৩ পিএম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : উইঘুরদের আটকে রাখা ক্যাম্পগুলো বন্ধ করতে চীনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে তুরস্ক। সংখ্যালঘু উইঘুর উপজাতির এক প্রখ্যাত সঙ্গীত শিল্পীর মৃত্যুর খবর প্রকাশ হওয়ার পর এ আহ্বান জানানো হয়েছে।

চীনের জিনজিয়াং অঞ্চলে প্রায় ১০ লাখ উইঘুরকে আটক অবস্থায় ক্যাম্পে রাখা হয়েছে। চীন বলছে, এসব ক্যাম্পে উইঘুরদের আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করা হচ্ছে। তবে মানবাধিকার সংগঠনগুলোর অভিযোগ, প্রকৃতপক্ষে এসব ক্যাম্পে মুসলমান উইঘুরদের জোরপূর্বক ধর্মান্তরিত করাসহ নানা নির্যাতন করা হচ্ছে।

এমনই একটি ক্যাম্পে বন্দি অবস্থায় মারা গেছেন আবদুরেহিম হেয়িত নামের এক উইঘুর সঙ্গীত শিল্পী। জিনজিয়াংয়ে তাকে আট বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল।

তার মৃত্যুতে ক্ষোভ প্রকাশ করে তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে অভিযোগ করে বলে, ক্যাম্পগুলোতে উইঘুরদের ওপর নানা নির্যাতন করা হচ্ছে।

শনিবার এক বিবৃতিতে তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হামি আকসয় বলেন, ‘এটি আর কোনো গোপন বিষয় নয় যে, ১০ লাখেরও বেশি উইঘুর তুর্কিকে জোরপূর্বক আটকে রেখে নানা ধরনের নির্যাতন ও রাজনৈতিক ব্রেনওয়াশ করা হচ্ছে। আর যাদেরকে আটক রাখা হয়নি তাদেরকেও ভয়ানক চাপে রাখা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘একুশ শতকে এসে উইঘুর তুর্কিদের বিরুদ্ধে “মনোনিবেশ ক্যাম্পে” পুনরায় শিক্ষাদান এবং চীনা কর্তৃপক্ষের পদ্ধতিগত সংমিশ্রণ নীতি মানবতার জন্য খুবই বড় লজ্জার বিষয়।’

সঙ্গীত শিল্পী আবদুরেহিম হেয়িতের মৃত্যুর কথা উল্লেখ করে হামি আকসয় আরো বলেন, ‘হেয়িতের মৃত্যু জিনজিয়াংয়ে গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনে তুরস্কের জনগণের প্রতিক্রিয়া আরো শক্তিশালী করেছে এবং জিনজিয়াংয়ে মানবিক ট্র্যাজিডির ইতি টানতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে।’

উইঘুররা তুর্কি ভাষাভাষির মুসলমান সংখ্যালঘু। জিনজিয়াংয়ের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে তাদের বাস। তাদেরকে তীব্র পর্যবেক্ষণে রেখেছে চীনা কর্তৃপক্ষ।

তথ্য : বিবিসি




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯/সাইফুল

Walton Laptop
     
Walton AC
Marcel Fridge