ঢাকা, শনিবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৫ মে ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

অবৈধ সম্পদের তিন মামলায় আসামি খোকার এপিএসসহ চারজন

এম এ রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-০৩ ৮:১৭:৫৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-০৩ ৮:১৭:৫৯ পিএম
Walton AC

নিজস্ব প্রতিবেদক : সাড়ে ৩ কোটি টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের দায়ে ঢাকা সিটি করপোরেশনের প্রাক্তন মেয়র সাদেক হোসেন খোকার এপিএস মনিরুল ইসলাম খান ও তার স্ত্রীসহ চারজনের বিরুদ্ধে পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

এর মধ্যে স্ত্রীসহ মনিরুল ইসলাম খানের বিরুদ্ধে ১ কোটি ৫১ লাখ ৮৭ হাজার ৯৭৩ টাকার অবৈধ সম্পদ পাওয়া যায়।

বৃহস্পতিবার রমনা মডেল থানায় দুদকের সহকারী পরিচালক মো. ফারুক আহমেদ বাদী হয়ে মামলা তিনটি দায়ের করেন।

দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য রাইজিংবিডিকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকার এপিএস মনিরুল ইসলাম খান ও তার স্ত্রী শাহানাজ ইসলামের নামে ১ কোটি ৫১ লাখ ৮৭ হাজার ৯৭৩ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদের প্রমাণ পাওয়া গেছে। দুদকের অনুসন্ধানে দেখা যায়, তারা তাদের দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণীতে ৩৬ লাখ ২১ হাজার ৩৯৫ টাকার ঋণ গ্রহণের মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন। তাই দুদক আইন ২০০৪ এর ২৬ ও ২৭ ধারায় এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন ২০১২ এর ৪ ধারায় মামলা দায়ের করেন অনুসন্ধান কর্মকর্তা।

অন্যদিকে, সড়ক ভবনের টোল কালেক্টর মো. কামাল আক্তারুজ্জামান ঘুষ ও দুর্নীতির মাধ্যমে ১ কোটি ১৭ লাখ ৬ হাজার ৪৭৬ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন এবং তাদের দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণীতে ৯৫ লাখ ৬৮ হাজার ৩৩০ টাকার সম্পদ অর্জনের তথ্য গোপন করেছেন বলে দুদকের অনুসন্ধানে প্রমাণিত হয়েছে। সম্পদ বিবরণীতে তার বিরুদ্ধে ২৮ লাখ টাকার অতিরিক্ত  ঋণ ঘোষণার মিথ্যা তথ্য পাওয়া গেছে।

অন্যদিকে মো. কামাল আক্তারুজ্জামানের স্ত্রী শাহিনুর বেগমের বিরুদ্ধে ৮৫ লাখ ৩৩ হাজার ৪৯৮ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদের প্রমাণ পাওয়া যায়। এছাড়া, তার দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণীতে ৯৯ লাখ ১১ হাজার ৮৩৩ টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের প্রমাণ মিলেছে। তাদের বিরুদ্ধে দুদক আইন এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন অনুসন্ধান কর্মকর্তা।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৩ জানুয়ারি ২০১৮/এম এ রহমান/রফিক

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge