ঢাকা, বুধবার, ১২ চৈত্র ১৪২৫, ২৭ মার্চ ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

এম এ রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-১০ ৭:৪৮:০০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-১০ ৭:৪৮:০০ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মেডিক্যাল এডুকেশন শাখার হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা দুর্নীতি করে সম্পদের পাহাড় গড়েছেন বলে অভিযোগ আছে। রাজধানীতে চারটি বাড়ি, উত্তরা ও বসুন্ধরায় প্লট, অস্ট্রেলিয়ায় বাড়িসহ কোটি কোটি টাকার সম্পদ অবৈধভাবে অর্জনের অভিযোগে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আফজাল হোসেনকে সাত ঘন্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার দুদকের প্রধান কার্যালয়ে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত সংস্থাটির উপ-পরিচালক ও অনুসন্ধান কর্মকর্তা মো. সামছুল আলম তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য রাইজিংবিডিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

দুদক সূত্র জানায়, তার বিরুদ্ধে আনীত অধিকাংশ অভিযোগের সত‌্যতা এই জিজ্ঞাসাবাদে মিলেছে। অনেক অভিযোগের সত‌্যতা তিনি স্বীকার করেছেন। তিনি দাবি করেছেন এ সম্পদের বৈধ উৎস রয়েছে কিন্তু এ বিষয়ে যুক্তিযুক্ত ব‌্যাখ‌্যা দিতে পারেননি তিনি। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা হয়েও তার বিদেশ ভ্রমণ ছিল অনেকটা নিয়মিত বিষয়। আফজাল দম্পতির নামে রাজধানীর উত্তরায় ১৩ নম্বর সেক্টরের ১১ নম্বর রোডে তিনটি পাঁচতলা বাড়িসহ ৪টি বাড়ি রয়েছে। রাজধানীর বসুন্ধরায় ও উত্তরায় প্লট রয়েছে। এমনকি দেশের বাইরে অস্ট্রেলিয়ায় বাড়ি রয়েছে। নিজের প্রভাব খাটিয়ে স্ত্রীসহ প্রায় ১০ জনকে বিভিন্ন দপ্তরে চাকুরি দিয়েছেন। আফজালের স্ত্রী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি উন্নয়ন শাখার স্টেনোগ্রাফার রুবিনা খানমের বিরুদ্ধেও অনুসন্ধান করছে দুদক। এর আগে এই দুজনের বিদেশ গমনে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে সংস্থাটি। তাদের বিরুদ্ধে কোটি কোটি টাকার অবৈধ সম্পদের অনুসন্ধান শুরু হলে অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক সামসুল আলম এই নিষেধাজ্ঞা আরোপের আবেদন করলে তা গৃহীত হয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে সিন্ডিকেট করে সীমাহীন দুর্নীতির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করে বিদেশে পাচার এবং জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ও লাইন ডিরেক্টর ড. কাজী জাহাঙ্গীর হোসেনসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অনুসন্ধান করছে দুদক। ২০১৮ সালের প্রথম দিকে অভিযোগ অনুসন্ধানে নামে দুদক। দুদকের উপ-পরিচালক মো. সামছুল আলমের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি দল অনুসন্ধান করছে।

ওই অভিযাগে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ও লাইন ডিরেক্টর ড. কাজী জাহাঙ্গীর হোসেন, লাইন ডিরেক্টর (চিকিৎসা শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি) অধ্যাপক ডা. মো. আব্দুর রশিদ, হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আফজাল হোসেন এবং সহকারী পরিচালক ডা. মো. আনিছুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদের জন‌্য তলব করা হয়। আজ (বৃহস্পতিবার) আফজাল হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। আগামি ১৪ জানুয়ারি বাকিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। তলবি চিঠিতে জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্টের ফটোকপি, নিজ ও পরিবারের নামে অর্জিত স্থাবর-অস্থাবর সম্পদের বিবরণ ও আয়কর নথিসহ হাজির হতে বলা হয়েছে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১০ জানুয়ারি ২০১৯/এম এ রহমান/শাহনেওয়াজ

Walton Laptop
 
     
Walton AC