ঢাকা, বুধবার, ১১ আশ্বিন ১৪২৫, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

গ্রন্থমেলার তৃতীয় দিনে ১২০টি নতুন বই

অহ নওরোজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০২-০৩ ৯:৪২:৩২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০২-০৪ ৮:৫১:৪১ এএম

সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক : অমর একুশে গ্রন্থমেলার তৃতীয় দিন শনিবার ১২০টি নতুন বই এসেছে।

এর মধ্যে কাব্যগ্রন্থ ২৬টি, উপন্যাস ১৯টি, প্রবন্ধের বই ১৩টি, গল্পগ্রন্থ ১১টি, বিজ্ঞানবিষয়ক বই সাতটি, শিশুসাহিত্য ছয়টি, জীবনী পাঁচটি; ভ্রমণ, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক ও ছড়ার বই চারটি করে; নাটক, সায়েন্স ফিকশন ও স্বাস্থ্যবিষয়ক বই একটি করে। এছাড়া অন্যান্য বিষয়ে ১৮টি নতুন বই এসেছে। 

মেলায় আজ সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত শিশুপ্রহর ছিল। তবে শিশুচত্বরে গতকালের চেয়ে শিশুদের উপস্থিতি ছিল কম।

বিকেল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে হয় খান বাহাদুর আহছানউল্লা শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক শফিউল আলম। আলোচনায় অংশ নেন মো. মনিরুল ইসলাম ও সরকার আবদুল মান্নান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কাজী রফিকুল আলম।

প্রাবন্ধিক বলেন, ‘উনিশ শতকে যে কয়েকজন খ্যাতিমান মুসলমানের জন্ম হয়েছিল তাদের অন্যতম ও উল্লেখযোগ্য খান বাহাদুর আহছানউল্লা। তিনি বাঙালি মুসলমানদের সামাজিক ইতিহাসে যেমন অনন্য পুরুষ, তেমনি স্বসম্প্রদায়ের ভেতরে সাধারণ শিক্ষার প্রসারকল্পে তার অবদান শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণযোগ্য। খান বাহাদুর আহছানউল্লার সুদীর্ঘ কর্মময় জীবনকে নানামাত্রিকভাবে দেখা যায়। তিনি ছিলেন শিক্ষাবিদ, শিক্ষা সংস্কারক, পাঠ্যপুস্তক রচয়িতা, সাহিত্যিক, ধর্মবেত্তা।

সভাপতির বক্তব্যে কাজী রফিকুল ইসলাম বলেন, শিক্ষা সংস্কার ও প্রসারে খান বাহাদুর আহ্ছানউল্লা যে অবদান রেখেছেন তা আমাদের স্মরণে রাখতে হবে। আহছানিয়া মিশন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে তিনি মানবসেবার অসাধারণ দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

সন্ধ্যায় মূল মঞ্চে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন শিল্পী ফাতেমা-তুজ-জোহরা, সুজিত মোস্তফা, এ কে এম শহীদ কবীর পলাশ। যন্ত্রাণুষঙ্গে ছিলেন পিনু সেন দাস (তবলা), রবিনস্ চৌধুরী (কী-বোর্ড), এবং ফিরোজ খান (সেতার)।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮/অহ/রফিক

 

Walton Laptop
 
     
Walton