ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ২০ নভেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

পূজায় যে ৮টি খাবার না-হলেই নয়

ঝুমকি বসু : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-১০-১৬ ১:৫৬:১৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১০-১৬ ১:৫৬:১৩ পিএম

ঝুমকি বসু : ষষ্টি থেকে দশমী এই পাঁচ দিন দুর্গাপূজায় চলে নানা আনুষ্ঠানিকতা। অঞ্জলি দেওয়া, ঠাকুর দেখার সঙ্গে সঙ্গে কিছু খাবার যেন না-খেলে পূজা পূজাই মনে হয় না। এছাড়া পূজার সময় বাড়ি ভর্তি থাকে আত্মীয়-স্বজন। তাদের আপ্যায়ন করা হয় এই খাবারগুলো দিয়েই।

দুর্গাপূজার সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত আটটি খাবার। চলুন আজ সেই খাবারগুলোর রেসিপি দেখে নিই, যেগুলো পূজার সময় প্রত্যেক ঘরে ঘরেই তৈরি হয়ে থাকে।

লুচি
উপকরণ : ময়দা ২ কাপ, লবণ ১ চিমটি, তেল ২ কাপ, পানি প্রয়োজনমতো।

প্রণালি : একটি বড় পাত্রে ময়দা নিয়ে তাতে লবণ এবং ১ টেবিল চামচ তেল দিয়ে ভালো করে মেশান। অল্প অল্প করে পানি মিশিয়ে ময়দাটা মাখুন। বেশি শক্ত বা বেশি নরম যেন না হয়। ছোট ছোট গোল গোল লুচির আকৃতিতে বেলে নিন। একটা কড়াইয়ে তেল গরম করে লুচিগুলো সোনালি করে ভেজে তুলুন।

সবজি
উপকরণ : পেঁপে ১টা, গাজর ২টা, মিষ্টি কুমড়া ১ ফালি, চিচিঙ্গা ১টা, আলু বড় ২টা, পাঁচফোড়ন ১ চিমটি, তেজপাতা ২টা, শুকনা মরিচ ২টা, কাঁচামরিচ ৫-৬টা, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, তেল ২ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো, চিনি সামান্য।

প্রণালি : সব সবজি পাতলা পাতলা করে কেটে ধুয়ে রাখুন। কড়াইয়ে তেল গরম করে শুকনা মরিচ ফোঁড়ন দেবেন। এরপর একে একে পাঁচফোড়ন, তেজপাতা দেবেন। সবজিগুলো দিয়ে দিন। হলুদ গুঁড়া দিয়ে ঢেকে রেখে মাঝে মাঝে নাড়তে থাকুন। কিছুক্ষণ পর লবণ, কাঁচামরিচ, সামান্য পানি দিয়ে ঢেকে রাখুন। পানি শুকিয়ে গেলে সামান্য চিনি দিয়ে মৃদু আঁচে খানিকক্ষণ ঢেকে রেখে নামিয়ে ফেলুন।

ছোলার ডাল
উপকরণ : ছোলার ডাল ২০০ গ্রাম, কাজুবাদাম ১ চা-চামচ, কিশমিশ ১ চা-চামচ, নারকেলের দুধ ১ কাপ, ঘি ১ টেবিল চামচ, তেজপাতা ২টা, টমেটো ১টা, জিরাবাটা ১ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ চা-চামচ, আদা বাটা ১ চা-চামচ, শুকনা মরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, শুকনা মরিচ ২টি, তেল ২ টেবিল চামচ, গরম মশলা বাটা ১ চা-চামচ, লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি : ছোলার ডাল সিদ্ধ করে রাখুন। কড়াইয়ে তেল গরম হলে শুকনা মরিচ ও তেজপাতা ফোঁড়ন দিন। হলুদ গুঁড়া, মরিচ গুঁড়া, লবণ, আদা ও জিরাবাটা দিয়ে কষান। ডাল দিয়ে দিন। ফুটে উঠলে নারকেলের দুধ মেশান। ঘন হলে ঘি, কাজুবাদাম, কিশমিশ ও গরম মশলা বাটা দিয়ে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

খিচুড়ি
উপকরণ : পোলাওয়ের চাল ৩ কাপ, মুগ ডাল ১ কাপ, আস্ত গরম মশলা কয়েকটা, তেজপাতা ৪-৫টি, শুকনা মরিচ ৩টি, কাঁচামরিচ ৫-৬টি, আদা থেঁতো করা ১ টেবিল চামচ, পাঁচফোড়ন এক চিমটি, তেল ১ কাপ, হলুদ গুঁড়া ১ চা-চামচ, গরম পানি ৮ কাপ, লবণ স্বাদমতো, চিনি সামান্য।

প্রণালি : মুগডাল শুকনা কড়াইয়ে সোনালি করে ভেজে নিন। ঠান্ডা হলে ডালটা ধুয়ে রাখুন। হাড়িতে তেল দিন। তেল গরম হলে শুকনা মরিচ ফোঁড়ন দিন। মরিচ কালচে হলে পাঁচফোড়ন, তেজপাতা, গরম মশলা, ছেঁচা আদা দিন। ভাজা হলে চাল দেবেন। চাল ভাজা হলে ডাল মিশিয়ে হলুদ দিয়ে নাড়বেন। এরপর পানি দিয়ে দিন। কাঁচামরিচ ও লবণ দিয়ে ঢেকে রাখুন। ফুটে উঠলে চুলার আঁচ কমিয়ে দেবেন। চিনি দিয়ে কিছুক্ষণ মৃদু আঁচে ঢেকে রাখবেন। ঝরঝরে হলে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

পায়েস
উপকরণ : দুধ ২ লিটার, পোলাওয়ের চাল ১ কাপ, মিশ্রি আধা কেজি, লবণ সামান্য, কিশমিশ ১ টেবিল চামচ, কাজু বাদাম ১ টেবিল চামচ।

প্রণালি : হাড়িতে দুধ এবং চাল দিয়ে জ্বাল দিন। সামান্য লবণ মেশান। চাল সিদ্ধ হলে মিশ্রি দিয়ে নাড়তে থাকুন। বারবার নাড়বেন নয়তো তলায় লেগে যাবে। ঘন হলে নামিয়ে কিশমিশ ও কাজুবাদাম ছড়িয়ে দিন। ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন।

পোলাও
উপকরণ : পোলাওয়ের চাল ৪ কাপ, পেঁয়াজকুচি ১ কাপ, আদাবাটা ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজবাটা ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বেরেস্তা ১ কাপ, তেজপাতা ৩-৪ টা, এলাচ ৩-৪ টা, লবঙ্গ ৩-৪টা, দারুচিনি ৩-৪ টুকরা, কাঁচামরিচ ৭-৮ টা, তেল ১ কাপ, পানি পৌনে ৮ কাপ, লবণ প্রয়োজনমতো, চিনি সামান্য।

প্রণালি : প্রথমে হাড়িতে তেল দিয়ে তেজপাতা, গরম মশলা ফোঁড়ন দিন। এরপর পেঁয়াজকুচি দিয়ে সোনালি করে ভাজুন। পেঁয়াজ, আদা বাটা দিয়ে নাড়ুন। চাল দিয়ে ভালোভাবে ভাজুন। ভাজা হলে আগে থেকেই গরম করে রাখা পৌনে ৮ কাপ পানি দিন। লবণ ও কাঁচামরিচ দিয়ে ঢেকে রাখুন। ফুটে উঠলে আঁচ কমিয়ে দিন। চিনি মেশান। কিছুক্ষণ দমে রাখুন। হয়ে গেলে উপরে বেরেস্তা ছিটিয়ে পরিবেশন করুন।

খাসির মাংস
উপকরণ : খাসির মাংস ৫০০ গ্রাম, পেঁয়াজকুচি আধা কাপ, টক দই আধা কাপ, আদাবাটা ১ টেবিল চামচ, রসুনবাটা ২ চা চামচ, পেঁয়াজবাটা ১ টেবিল চামচ, কাজুবাদামবাটা ২ চা-চামচ, গরম মশলা ১ চা-চামচ, শুকনা মরিচগুঁড়া ১ চা-চামচ, হলুদগুঁড়া ১ চা-চামচ, ঘি ১ টেবিল চামচ, সয়াসস ২ চা-চামচ, চিনি সামান্য, তেল আধা কাপ, লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি : মাংসে সয়াসস মাখিয়ে ২ ঘণ্টা ম্যারিনেট করুন। কড়াইয়ে তেল গরম করে পেঁয়াজকুচি সোনালি করে ভাজুন। সব মশলা ও দই দিয়ে কষান। এবার মাংস দিয়ে ভালো করে কষাতে থাকুন। কষানো হলে অল্প পানি দিয়ে মৃদু আঁচে ঢেকে রান্না করুন। সিদ্ধ হয়ে ভুনা ভুনা হলে ঘি ছড়িয়ে নামিয়ে নিন।

নারকেলের নাড়ু
উপকরণ : নারকেল বড় ২টা, গুড় ৫০০ গ্রাম।

প্রণালি : নারকেল কুড়িয়ে নিয়ে গুড়সহ কড়াইয়ে দিন। অনবরত নাড়তে থাকুন। আঠার মতো হয়ে এলে অল্প একটু নামিয়ে নাড়ু বানিয়ে দেখুন। যদি ভালোভাবে নাড়ু তৈরি হয়ে যায়, তাহলে বুঝবেন পাক ঠিক আছে। তখন নামিয়ে নিয়ে গরম থাকতে থাকতেই নাড়ু বানিয়ে ফেলুন।





রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৬ অক্টোবর ২০১৮/ফিরোজ

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC