ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

কেপটাউনে পেসারদের রাজত্ব

আবু হোসেন পরাগ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০১-০৫ ১০:৪৬:২৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-০৬ ৯:২৯:২১ এএম
বিরাট কোহলিকে ফিরিয়ে সতীর্থদের মধ্যমণি মরনে মরকেল

ক্রীড়া ডেস্ক : কেপটাউন টেস্টের প্রথম দিনে রাজত্ব করেছেন বোলাররা। আরো নির্দিষ্ট করে বললে পেসাররা। দুই দল মিলিয়ে প্রথম দিনে পতন হয়েছে মোট ১৩ উইকেট। এর ১০টিই গেছে পেসারদের দখলে! ২টি স্পিনারের। অপরটি রান আউট।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম ইনিংস গুটিয়ে গেছে ২৮৬ রানে। জবাবে ভালো অবস্থানে নেই ভারতও। শেষ বিকেলে ১১ ওভার ব্যাটিং পেয়ে ২৮ রান তুলতেই ৩ উইকেট হারিয়েছে বিরাট কোহলির দল। সফরকারীরা এখনো পিছিয়ে আছে ২৫৮ রানে।

ভারতীয় দলে আজ টেস্ট অভিষেক হয়েছে পেসার জাসপ্রিত বুমরাহর। ২০১৬ সালের নভেম্বরের পর প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলছেন দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার ডেল স্টেইন। দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশ সাজিয়েছে চার পেসার নিয়ে। হার্দিক পান্ডিয়াসহ ভারতীয় দলেও চার পেসার।

কেপটাউনের নিউল্যান্ডসে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা দক্ষিণ আফ্রিকার শুরুটা ভালো হয়নি মোটেও। ভুবনেশ্বর কুমার নিজের প্রথম তিন ওভারে তুলে নেন ৩ উইকেট। ভুবনেশ্বরের করা ইনিংসের তৃতীয় বলেই উইকেটকিপার ঋদ্ধিমান সাহাকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন গত বছর ৫টি টেস্ট সেঞ্চুরি করা ডিন এলগার। বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান নতুন বছর শুরু করেছেন ডাক মেরে!

ভুবনেশ্বরের পরের ওভারে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরেন আরেক ওপেনার এইডেন মার্করাম। ক্যারিয়ারের প্রথম তিন টেস্টে দুটি সেঞ্চুরি করা এই ব্যাটসম্যান আজ করেছেন ৫ রান। দক্ষিণ আফ্রিকার অন্যতম ভরসা হাশিম আমলাও প্রথম ইনিংসে ব্যর্থ। ওই ভুবনেশ্বরের পরের ওভারে আমলা (৩) ঋদ্ধিমানকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহ তখন ৩ উইকেটে ১২! ভারত এশিয়ার বাইরে কোনো টেস্টের প্রথম ইনিংসে এর চেয়ে কম রান দিয়ে ৩ উইকেট পেয়েছে একবারই। ভারত ২০০৬-০৭ দক্ষিণ আফ্রিকা সফর শুরু করেছিল জোহানেসবার্গে ৫ রানে ৩ উইকেট তুলে নিয়ে।      



শুরুতেই ওপরের দিকের তিন ব্যাটসম্যানকে হারানোর পর প্রতিরোধ গড়েন এবি ডি ভিলিয়ার্স ও ফাফ ডু প্লেসি। বিপর্যয় সামাল দিতে ডি ভিলিয়ার্স বেছে নিয়েছিলেন আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ের মন্ত্র। ডানহাতি ব্যাটসম্যান রানের খাতাই খোলেন মুখোমুখি প্রথম বলে চার হাঁকিয়ে। নবম ওভারে ভুবনেশ্বরকে হাঁকান ৪টি চার।

লাঞ্চের আগে মোহাম্মদ শামিকে চার হাঁকিয়ে ৫৫ বলে ফিফটি পূর্ণ করেন ডি ভিলিয়ার্স। চতুর্থ উইকেটে ৯৫ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়ে লাঞ্চে যান ডি ভিলিয়ার্স ও ডু প্লেসি। তবে লাঞ্চের পর এ জুটি আর বেশি বড় হতে দেননি অভিষিক্ত বুমরাহ। ডি ভিলিয়ার্সকে (৬৫) বোল্ড করে প্রথম টেস্ট উইকেট নেন ২৪ বছর বয়সি পেসার। তাতে ভাঙে ১১৪ রানের জুটি।

ডু প্লেসি ফিফটি তুলে নিলেও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। হার্দিক পান্ডিয়ার বলে ঋদ্ধিমানকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন প্রোটিয়া অধিনায়ক (৬২)। দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহ তখন ৫ উইকেটে ১৪২। আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে দলের স্কোর দুইশ পার করেছিলেন কুইন্টন ডি কক। তাকে (৪০ বলে ৪৩) থামান ভুবনেশ্বর।

এরপর ভারনন ফিল্যান্ডার (২৩), কেশভ মহারাজ (৩৫), কাগিসো রাবাদা (২৬), ডেল স্টেইন (১৬*) লড়াইয়ের চেষ্টা করলেও দলের স্কোর তিনশ পার করতে পারেননি। ৭৩.১ ওভারে ২৮৬ রানে অলআউট হয় স্বাগতিকরা।

৮৭ রানে ৪ উইকেট নিয়ে ভারতের সেরা বোলার ভুবনেশ্বর। স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন ২১ রানে নেন দক্ষিণ আফ্রিকার শেষ ২ উইকেট। একটি করে উইকেট নেন শামি, বুমরাহ ও পান্ডিয়া। শেষ ১০ বছরে মাত্র দ্বিতীয়বার কোনো টেস্ট ইনিংসে কমপক্ষে একটি করে উইকেট পেলেন ভারতের চার পেসার। অন্যটি ২০১১-১২ সালে ওয়াকায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে।

দিনের শেষ ঘণ্টায় ব্যাটিংয়ে নেমে প্রোটিয়া পেসারদের তোপে পড়ে ভারতীয় ব্যাটসম্যানরাও। পঞ্চম ওভারে ফিল্যান্ডারের বলে এলগারকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মুরলি বিজয় (১)। পরের ওভারে স্টেইনের ফিরতি ক্যাচে বিদায় নেন আরেক ওপেনার শিখর ধাওয়ানও (১৬)।

তবে সবচেয়ে বড় উইকেটটা নিয়েছেন মরনে মরকেল। গত বছর টেস্টে তিনটি ডাবল সেঞ্চুরি করা কোহলিকে ডানা মেলার আগেই সাজঘরে পাঠিয়ে দেন ডানহাতি পেসার। উইকেটকিপার ডি কককে ক্যাচ দিয়েছেন ভারতীয় অধিনায়ক (৫)। ভারতের স্কোর তখন ৩ উইকেটে ২৭! রোহিত শর্মার (০*) সঙ্গে দিনের শেষ তিন ওভার নিরাপদে কাটিয়ে দেন চেতেশ্বর পূজারা (৫*)।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/৫ জানুয়ারি ২০১৮/পরাগ

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC