ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৪ মে ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

মার্সেল ফ্রিজ কিনে আরেকটি ফ্রি পেলেন মাদ্রাসার শিক্ষক ফয়জুল

মোহাম্মদ মাসুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৫-০৭ ৯:২৮:৪৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১১-১১ ৮:০৪:৩০ পিএম
মার্সেল ফ্রিজ কিনে আরেকটি ফ্রিজ উপহার পেয়েছেন পিরোজপুর সদরের কালিকাঠী কে এইচ বি নূরানি ও হাফেজি মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক মো. ফয়জুল ইসলাম।
Walton AC

নিজস্ব প্রতিবেদক : মার্সেল ফ্রিজে বিদ্যুৎ খরচ কম হয়। দামেও সাশ্রয়ী। রয়েছে সুন্দর কালার ও ডিজাইন। এসব বৈশিষ্ট্যের কারণেই মার্সেল ব্র্যান্ডের ফ্রিজ কিনেছেন বলে জানিয়েছেন পিরোজপুর সদর উপজেলার কালিকাঠী কে এইচ বি নুরানি ও হাফেজিয়া মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক মো. ফয়জুল ইসলাম।

চলতি মাসের ৩ তারিখে তিনি পিরোজপুর সদর উপজেলায় মার্সেল পণ্যের পরিবেশক মেসার্স বিউটি ইলেকট্রনিক্স থেকে ১৮ হাজার ৫০০ টাকা দিয়ে সাড়ে আট সিএফটির একটি ফ্রিজ কেনেন।

এ সময় দেশব্যাপী চলমান মার্সেল ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের কথা জানিয়ে মো. ফয়জুল ইসলামকে ক্রয়কৃত ফ্রিজটি রেজিস্ট্রেশন করার জন্য পরামর্শ দেন বিক্রেতা। বিক্রেতার পরামর্শে তিনি তা রেজিস্ট্রেশন করেন। এর পরপরই ক্যাম্পেইনের আওতায় ঘোষিত শত শত ফ্রিজ, টেলিভিশন ও এসি ফ্রি অফারের আওতায় আরেকটি আট সিএফটির ফ্রিজ উপহার পান তিনি।

মার্সেলের একটি ফ্রিজ কিনে অপ্রত্যাশিতভাবে আরেকটি ফ্রিজ উপহার পেয়ে অত্যন্ত খুশি হয়েছেন বলে রাইজিংবিডির এই প্রতিবেদককে জানান মো. ফয়জুল ইসলাম।

মার্সেলের অফার সম্পর্কে আগে থেকে কোনো ধারণা ছিল না জানিয়ে মো. ফয়জুল ইসলাম বলেন, ফ্রিজটি কেনার পর বিক্রেতা অফার সম্পর্কে জানিয়ে তা মোবাইল ফোন থেকে ম্যাসেজ পাঠিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে বলেন। তার পরামর্শমতো আমি তা রেজিস্ট্রেশন করি। এর পর ফ্রিজটি নিয়ে বাসায় চলে আসি। পরে আমার মোবাইলে মার্সেলের আরেকটি আট সিএফটির ফ্রিজ উপহার পাওয়ার ম্যাসেজ আসলেও আমি তা খেয়াল করিনি। বিক্রেতাই আমাকে ফোন করে উপহার পাওয়ার কথাটি জানায়। প্রথমে ভেবেছিলাম, সে আমার সাথে হয়ত মজা করছে। কিন্তু সে যখন তার দোকানে গিয়ে উপহার পাওয়া ফ্রিজটি নিয়ে আসতে বলে, তখন আমার বিশ্বাস হয়। সেই মুহূর্তে অনেক আনন্দ লাগছিল। কেননা জীবনে এই প্রথম এত বড় কোনো পুরস্কার পেলাম। সেজন্য মার্সেল কোম্পানিকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।



মার্সেল ফ্রিজ কেনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মার্সেলে ফ্রিজটি কেনার আগে আমি আরো কয়েকটি ব্র্যান্ডের ফ্রিজ যাচাই করি। দেখলাম- অন্য ব্র্যান্ডের তুলনায় মার্সেল ফ্রিজের দাম কম। কালার ও ডিজাইন খুব সুন্দর। সেই সঙ্গে বিক্রেতার কাছ থেকে জানলাম মার্সেল ফ্রিজে বিদ্যুৎ খরচও নাকি অনেক কম হয়। এতে মাসিক বিদ্যুৎ বিলও কম আসবে। তাই অন্য ব্র্যান্ডের ফ্রিজ না কিনে মার্সেলের ফ্রিজই কিনেছি।

মার্সেল সূত্রমতে, বিক্রয়োত্তর সেবা কার্যক্রম অনলাইনের আওতায় আনতে গত ১ এপ্রিল থেকে দেশব্যাপী আবারও ডিজিটাল ক্যাম্পেইন শুরু করেছে মার্সেল।

ক্যাম্পেইনের আওতায় একজন ক্রেতা প্রতিবার মার্সেলের ফ্রিজ, টিভি কিংবা এসি কিনে তা রেজিস্ট্রেশন করলেই পেতে পারেন আমেরিকা, রাশিয়া ভ্রমণের সুযোগ কিংবা মার্সেলেরই ফ্রিজ, টিভি ও এসি সম্পূর্ণ ফ্রি। তবে এসব সুযোগ না পেলেও ক্রেতার জন্য রয়েছে সর্বোচ্চ ১ হাজার টাকা পর্যন্ত নিশ্চিত নগদ ছাড়।

ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের আওতায় গ্রীষ্মকালের জন্য মার্সেল ফ্রিজ ও এসিতে এবং বিশ্বকাপ ফুটবল উপলক্ষে মার্সেল টিভিতে এসব সুবিধা পাওয়া যাবে আগামী ৩০ জুন, ২০১৮ পর্যন্ত।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৭ মে ২০১৮/পলাশ/রফিক

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge