ঢাকা, রবিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৬ মে ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

মার্সেল ফ্রিজ কিনে লাখ টাকার ভাউচার পেলেন আমানুল্লাহ

হাসমত আলী : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০২-০৩ ৮:২৯:৫২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৩-২১ ৮:৪৬:৩৬ পিএম
Walton AC

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর : মার্সেল ফ্রিজ কিনে এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার জিতেছেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের শিমুলতলী নাগা এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী মো. আমানুল্লাহ গাজী।

তিনি মার্সেল ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৪ এর প্রথম এক লাখ টাকা ক্যাশ ভাউচার বিজয়ী। তিনি খুবই খুশি।

রোববার বিকেলে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের রওশন সড়ক এলাকাস্থ মার্সেলের এইচএম ইলেকট্রনিক্স শোরুম থেকে অনুষ্ঠানিকভাবে তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন মার্সেলের ফার্স্ট সিনিয়র অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর মো. তৈয়বুর রহমান তুষার।

এ সময় অন্যদের মধ্যে মার্সেলের ঢাকা নর্থজোনের (গাজীপুর) এরিয়া ম্যানেজার নূরুল আমীন, গাজীপুরের চান্দনা চৌরাস্তার ওয়ালটন সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের ব্রাঞ্চ ইনচার্জ আশরাফুল আলম, এইচএম ইলেকট্রনিক্সের স্বত্বাধিকারী এবং মার্সেলের এক্সক্লুসিভ ডিস্ট্রিবিউটর মো. জাহাঙ্গীর আলম জয় উপস্থিত ছিলেন।
 


এক লাখ টাকা ক্যাশ ভাউচার বিজয়ী মো. আমনুল্লাহ গাজী জানান, তার গ্রামের বাড়ি চাঁদপুরের নীলকমল থানার চরকৃষ্ণপুরে। ২৯ বছর আগে গাজীপুরে আসেন। স্ত্রী, এক ছেলে এবং এক মেয়েকে নিয়ে গাজীপুর সিটির নাগা এলাকায় বসবাস করেন এবং শিমুলতলীর সালনা রোড়ে ‘মাহিন ফার্নিচার মার্ট’ নামে দোকান পরিচালনা করেন। পাশাপাশি কাঠে বার্নিশের ঠিকাদারি করেন। স্থানীয় একটি স্কুলে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ছেলে এবং প্রথম শ্রেণিতে মেয়ে লেখাপড়া করে।

তিনি জানান, বাসায় ফ্রিজ ছিল না। তাই গত ২৬ জানুয়ারি রওশন সড়ক এলাকাস্থ মার্সেলের এইচএম ইলেকট্রনিক্স শোরুম থেকে ১১ সিএফটির একটি ফ্রিজ ২৪ হাজার টাকায় কেনেন। তিন দিন আগে মার্সেল অফিস থেকে মোবাইল ফোনে জানানো হয়- তিনি এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার বিজয়ী হয়েছেন। তখন তিনি গাজীপুর সদরের মির্জাপুর এলাকার একটি ‘স’ মিলে কাঠ চেরাইয়ের কাজ করছিলেন। এ পুরস্কার বিজয়ের কথা প্রথমে তার বিশ্বাস হয়নি।

তিনি বলেন, অনেক আগে একবার মোবাইল ফোনে এক লোক ১ লাখ ৫৩ হাজার ৩০০ টাকা বিজয়ের কথা বলেছিলেন। ওই লোক তাকে বলেছিলেন, মোবাইল নম্বরে তিন হাজার টাকা বিকাশ করতে। তিনি তা করতে অপারগতা প্রকাশ করে পুরস্কারের অর্ধেক টাকা ওই ব্যক্তিকে দিয়ে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়ে দেখা করার কথা বললে তিনি মোবাইল ফোন বন্ধ করে দেন।
 


আমানুল্লাহ আরো বলেন, কিন্ত মার্সেল অফিসের নম্বর থেকে পুনরায় ফোন করে বাসায় আসতে চান। পরে বিকেল ৩টার দিকে মার্সেলের কর্মকর্তারা বাসায় আসেন। ফ্রিজ দেখেন এবং তার ছবি তোলেন। তখন পুরস্কার পাওয়ার বিষয়টি তার বিশ্বাস হয়।

এক প্রতিক্রিয়ায় আমানুল্লাহ গাজী জানান, মার্সেল ফ্রিজ কিনে এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার বিজয়ী হয়ে তিনি এবং স্ত্রী, সন্তানরা খুবই খুশি। পুরস্কারের টাকায় তিনটি ফ্রিজ, চারটি ওয়াটার ফিল্টার এবং একটি ৩২ ইঞ্চি এলইডি টিভি নিয়েছেন।
 


মার্সেলের ফার্স্ট সিনিয়র অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর মো. তৈয়বুর রহমান তুষার জানান, ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৪ এর প্রথম এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার বিজয়ী আমানুল্লাহ।

দেশের শীর্ষস্থানীয় ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস পণ্য প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান মার্সেল গত জানুয়ারি থেকে শুরু করেছে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৪। এই ক্যাম্পেইনে রয়েছে মার্সেল পণ্য কিনে লাখ লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার বিজয়ের সুযোগ।



রাইজিংবিডি/গাজীপুর/৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯/হাসমত আলী/বকুল

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge