ঢাকা, শনিবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

‘রামপাল দক্ষিণ জনপদের মানুষকে হুমকির মুখে ফেলবে’

মুহাম্মদ নূরুজ্জামান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৪-২০ ৮:৩৩:০৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৪-২০ ৯:০৫:২৪ পিএম
মহাসমাবেশে বক্তৃতা করেন অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা : ‘রামপালের কয়লাভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রসহ সুন্দরবন বিনাশী প্রকল্পগুলোর প্রভাবে দক্ষিণ জনপদের পাঁচ কোটি মানুষ হুমকির মুখে পড়বে। একই সঙ্গে প্রায় ৫০ লাখ মানুষ জীবন-জীবিকা হারিয়ে উদ্বাস্তু হবে। যে কারণে অবিলম্বে এ ধরনের সব অপতৎপরতা বন্ধ করতে হবে।’

বৃহস্পতিবার বিকেলে নগরীর শহীদ হাদিস পার্কে অনুষ্ঠিত উপকূলীয় মহাসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ এসব কথা বলেন।

তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি এ সমাবেশের আয়োজক। সভাপতিত্ব করেন কমিটির খুলনার সংগঠক ডা. মনোজ দাস।

মহাসমাবেশে কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে টিপু বিশ্বাস, রুহিন হোসেন প্রিন্স, বজলুর রশীদ ফিরোজ, জোনায়েদ সাকি, বহ্নিশিখা জামালী, শুভ্রাংসু চক্রবর্তী, সামছুল আলম, মোশাররফ হোসেন নান্টু, অধ্যাপক তানজিম উদ্দিন খান, শহীদুল ইসলাম সবুজ, নাছির উদ্দিন নাসু প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

মহাসমাবেশে অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ আরো বলেন, উপকূলীয় অঞ্চলের উন্নয়ন এবং কর্মসংস্থানের মিথ্যাচার ছড়িয়ে সরকার রামপাল প্রকল্পসহ সুন্দরবন বিনাশী অপতৎপরতা অব্যাহত রেখেছে। ভারতীয় এক্সিম ব্যাংকের কাছ থেকে নেওয়া ঋণের বোঝা চাপবে বাংলাদেশের ঘাড়ে।  তিনি বলেন, উন্নয়নের অনেক বিকল্প আছে, কিন্তু সুন্দরবনের কোনো বিকল্প নেই।

সমাবেশ থেকে বিভিন্ন কর্মসুচি ঘোষণা করা হয়। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- আগামী ২৫ এপ্রিল থেকে ২৫ জুন উপকূলীয় অঞ্চলের জেলা উপজেলা পর্যায়ে সভা, সমাবেশ ও গণসংযোগ, মে মাসে সুলভ, পরিবেশবান্ধব, ঋণ বা অপচয়মুক্ত বিদ্যুৎ ঘরে ঘরে সরবরাহের জন্য বিকল্প বিদ্যুৎ মহাপরিকল্পনা উপস্থাপন ও দেশব্যাপী তা নিয়ে জনমত গঠন, ১৫ জুলাই দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে টেকসই, পরিবেশবান্ধব, কর্মসংস্থাননির্ভর উন্নয়নের পরিকল্পনা উপস্থাপন, ২৫ জুলাই শ্যামনগর থেকে শরণখোলা উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষদের নিয়ে মানববন্ধন ও তার সঙ্গে সংহতি জানিয়ে দেশে-বিদেশের সংহতি কর্মসূচি এবং ৯ সেপ্টেম্বর সুন্দরবন আন্দোলনে যুক্ত সব দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞ, সংগঠন ও ব্যক্তিদের নিয়ে আন্তর্জাতিক সুন্দরবন কনভেশন।

সমাবেশে বলা হয়, এরপরও রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্পসহ সুন্দরবন বিনাশী প্রকল্প বাতিল করা না হলে  দেশব্যাপী হরতালসহ আরো কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।



রাইজিংবিডি/খুলনা/২০ এপ্রিল ২০১৭/মুহাম্মদ নূরুজ্জামান/রিশিত

Walton Laptop