ঢাকা, বুধবার, ৫ আষাঢ় ১৪২৬, ১৯ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

ঈদে আসছেন না সুলতান, সঙ্গে ভাইজান

রাহাত সাইফুল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৫-৩০ ৩:৫৫:৩৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৫-৩১ ৮:৫৫:১৩ এএম
Walton AC 10% Discount

বিনোদন প্রতিবেদক : ঢাকার প্রেক্ষাগৃহে গত কয়েক বছর ধরে দেশীয় সিনেমার পাশাপাশি বড় বাজেটের যৌথ প্রযোজনার সিনেমা ঈদসহ বিভিন্ন উৎসবে মুক্তি পেয়ে আসছে। ২০১৬ সালের ঈদুল ফিতরে সাফটা চুক্তির মাধ্যমে ভারতীয় বাংলা সিনেমা ‘কেলোর কীর্তি’ মুক্তি দেয়া হলে এর বিরুদ্ধে আন্দোলনে ফেটে পড়েন চলচ্চিত্রাঙ্গনের মানুষ। আগামী ঈদুল ফিতরেও শাকিব খান অভিনীত ‘ভাইজান এলো রে’ ও জিৎ অভিনীত ‘সুলতান’ নামের দুটি সিনেমা সাফটা চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশে মুক্তি দেয়ার পরিকল্পনা করা হয়। এই নিয়ে প্রচারণাও চালানো হয়েছে বাংলাদেশ ও ভারতে। এ দুটি সিনেমায় নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন যথাক্রমে শাকিব খান ও জিৎ।

আজ আপিল বিভাগ হাইকোর্টের আদেশ কিছুটা সংশোধন করে যৌথ প্রযোজনার বিষয়টি খুলে দেন অর্থাৎ যে কোনো উৎসবে যৌথ প্রযোজনার সিনেমা প্রদর্শন করা যাবে। কিন্তু আমদানি করা সিনেমা প্রদর্শন করা যাবে না। হাইকোর্টের এই আদেশের মাধ্যমে ঈদুল ফিতরে আর মুক্তি পাচ্ছে না ভারতের ‘ভাইজান এলো রে’ এবং ‘সুলতান দ্য সেভিয়র’ নামে সিনেমা দুটি।

এর আগে গত ৯ মে নিপা এন্টারপ্রাইজের পক্ষে প্রযোজক সেলিনা বেগম আদালতে বিদেশি সিনেমা বাংলাদেশের বিশেষ দিবসগুলোতে প্রদর্শনের স্থগিত চেয়ে রিট আবেদন করেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি সালমা মাসুদ ও এ কে এম জহিরুল হক আদেশ দেন, এখন থেকে ঈদ, পয়লা বৈশাখসহ দেশের বিভিন্ন উৎসবে দেশের প্রেক্ষাগৃহে যৌথ প্রযোজনা কিংবা আমদানি করা কোনো সিনেমা মুক্তি দেওয়া যাবে না। রিটকারীর পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ ও ব্যারিস্টার মাহবুব শফিক।

এই আদেশের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ আপিল বিভাগে আবেদন করেন। এ আবেদনের শুনানি নিয়ে আপিল বিভাগ হাইকোর্টের আদেশ কিছুটা সংশোধন করে যৌথ প্রযোজনার বিষয়টি খুলে দেন অর্থাৎ যে কোনো উৎসবে যৌথ প্রযোজনার সিনেমা প্রদর্শন করা যাবে। কিন্তু আমদানি করা সিনেমা প্রদর্শন করা যাবে না।

আজ বুধবার ঈদুল ফিতর, ঈদুল আজহা, পূজা ও পয়লা বৈশাখে যৌথ প্রযোজনার সিনেমা ছাড়া ভারতীয় বাংলা, হিন্দি, পাকিস্তানিসহ বিদেশি কোনো চলচ্চিত্র দেশে আমদানি, প্রদর্শন ও বিতরণ না করার সিদ্ধান্ত দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। হাইকোর্টের দেয়া আদেশ স্থগিত চেয়ে করা আবেদন নিষ্পত্তি করেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আপিল বিভাগের একটি বেঞ্চ।

আদালতে হাইকোর্টে রিটকারী সেলিনা বেগমের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার আজমালুল হোসেন কিউসি।সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার মনিরুজ্জামান আসাদ। হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আবেদনকারী বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদের পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন।

যদিও গত ২৭ মে রাইজিংবিডিতে প্রকাশিত ‘ঈদে আমদানি সিনেমা চাচ্ছে না প্রদর্শক সমিতি’ শিরোনামে প্রকাশিত খবরে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেছিলেন, ‘ভারতীয় সিনেমা মুক্তি পেলে আমরা বেশি লাভবান হব। কিন্তু তারপরও দেশের সিনেমা থাকতে কেন বিদেশি সিনেমা মুক্তি দিব? এবারের ঈদে শাকিব খানের দুই থেকে তিনটি সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে। এর পরও কেন বিদেশি সিনেমা মুক্তি দিব। আমরা চাচ্ছি, ঈদের পর এসব সিনেমা মুক্তি পাক। আমরা চাই আমাদের প্রযোজকরা বেঁচে থাকুক।’

তিনি আরো বলেন, ‘‘যারা সিনেমা আমদানি এবং যৌথ প্রযোজনা করেন তারা সিনেমা মুক্তির আগে আমাদের মাথায় তুলে রাখেন। মুক্তির পর আর চিনেন না। এই সব সিনেমার জন্য নিজেদের পয়সা খরচ করতে হয়। এভাবে আর করতে চাচ্ছি না। ফায়দা শতভাগ তারাই নিয়ে নিচ্ছেন। দেখুন, গত বছর যৌথ প্রযোজনার ‘নবাব’ ও ‘বস-২’ মুক্তির কারণে ‘রাজনীতি’ সিনেমা কিন্তু শেষ হয়ে গেছে। ‘রাজনীতি’ কিন্তু ভালো একটি সিনেমা ছিল। আমরা সবাই সিনেমাটি উপভোগ করেছি। এই প্রযোজক লাভবান হলে কিন্তু আরো কিছু সিনেমা প্রযোজনা করতেন। এভাবেই প্রযোজক হারিয়ে যাচ্ছে।’

আরা পড়ুন : ঈদে আমদানি সিনেমা চাচ্ছে না প্রদর্শক সমিতি



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৩০ মে ২০১৮/রাহাত/শান্ত

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge