ঢাকা, মঙ্গলবার, ৪ আষাঢ় ১৪২৬, ১৮ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

জুনায়েদের সেঞ্চুরির পর লিটনের রেকর্ড গড়া ‘ডাবল’

আবু হোসেন পরাগ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-১০-১০ ৭:৩০:২৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১০-১০ ৯:৪৪:৩৮ পিএম
১৪০ বলে ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন লিটন দাস। ছবি: কবির তুহিন
Walton AC 10% Discount

ক্রীড়া প্রতিবেদক : মিজানুর রহমান ও নাজমুল হোসেন শান্তর পর রাজশাহীর হয়ে সেঞ্চুরি পেয়েছেন জুনায়েদ সিদ্দিকও। তবে অসাধারণ এক ডাবল সেঞ্চুরিতে তৃতীয় দিন রাঙিয়েছেন রংপুরের লিটন দাস। এই ওপেনার গড়েছেন প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানের দ্রুততম ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড।

ওয়ালটন জাতীয় ক্রিকেট লিগের প্রথম স্তরের এই ম্যাচে রংপুরকে ১৫১ রানে গুটিয়ে দিয়ে ৪ উইকেটে ৫৮৯ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করেছে রাজশাহী। জবাবে বুধবার তৃতীয় দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে রংপুরের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৩১৯ রান। এখনো ১১৯ রানে পিছিয়ে আছে রংপুর। মাহমুদুল হাসান ৭২ ও সাজেদুল ইসলাম ২ রানে অপরাজিত আছেন।

 



রাজশাহীর শহীদ কামরুজ্জামান স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় দিনের ২ উইকেটে ৪১৯ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করেছিল রাজশাহী। জুনায়েদ ৩৯ ও ফরহাদ হোসেন ২৬ রান নিয়ে ব্যাটিং শুরু করেন।

আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যানই তুলে নেন ফিফটি। ফরহাদ অবশ্য ফিফটির পর ইনিংসটা আর বড় করতে পারেননি। সাজেদুল ইসলামের বলে বোল্ড হওয়ার আগে ৯০ বলে ৫ চার ও এক ছক্কায় তিনি করেন ৬২ রান। তার বিদায়ে ভাঙে ১০৭ রানের তৃতীয় উইকেট জুটি।

 



ফরহাদের বিদায়ের পর পাঁচে নেমে আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে ফিফটি তুলে নেন জহুরুল ইসলাম। তিনিও ফিরেছেন ফিফটির পরপরই। ৫০ বলে ৬ চারে জহুরুল করেন ৫৫ রান। জুনায়েদের সঙ্গে তার চতুর্থ উইকেট জুটিতে আসে ৯০ রান।

এরপর সাব্বির রহমানের সঙ্গে জুটি বেঁধে সেঞ্চুরি তুলে নেন জুনায়েদ। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এটি তার ১৪তম সেঞ্চুরি। জুনায়েদের সেঞ্চুরির পরই ইনিংস ঘোষণা করে রাজশাহী। ১৯৯ বলে ৬ চারে জুনায়েদ অপরাজিত থাকেন ঠিক ১০০ রানে। ১৫ রানে অপরাজিত ছিলেন সাব্বির।

৪৩৮ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে রংপুরকে ভালো সূচনা এনে দেন লিটন ও জাহিদ জাবেদ। দুজন গড়েন ৯৮ রানের উদ্বোধনী জুটি। জাহিদ ৩৫ রান করে ফেরার পর দ্বিতীয় উইকেটে মাহমুদুল হাসানের সঙ্গে আরেকটি বড় জুটি গড়ার পথে লিটন তুলে নেন সেঞ্চুরি।

 



শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করা লিটন ব্যক্তিগত ৯৯ থেকে তাইজুল ইসলামকে টানা দুই চার হাঁকানোর পথে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ৮১ বলে। এই সময়ে ১৭টি চার ও একটি ছক্কা হাঁকান ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে নিজের ১৩তম সেঞ্চুরিটাকে ডাবলে রুপান্তর করতেও লিটনের বেশি সময় লাগেনি। পরের একশ করেন মাত্র ৫৯ বলে। দিনের শেষ ওভারে ডাবল সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছেন রাজকীয়ভাবে। ব্যক্তিগত ১৯৩ থেকে তাইজুলকে ছক্কা হাঁকিয়ে পৌঁছে যান ১৯৯-এ। পরের বলে বাউন্ডারিতে ছুঁয়ে ফেলেন মাইলফলক।

 



এক বল পরই অবশ্য আউট হয়ে যান লিটন। ১৪২ বলে ৩২টি চার ও ৪টি ছক্কায় ২০৩ রানের আলো ঝলমলে ইনিংস খেলেন জাতীয় দলের এই ওপেনার। তার বিদায়ে ভাঙে ২১৯ রানের দ্বিতীয় উইকেট জুটি। দুই বল পরই শেষ হয়ে যায় দিনের খেলা।

১৪০ বলে ডাবল সেঞ্চুরি করে লিটন ভেঙেছেন নিজেরই রেকর্ড। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানের এটি দ্রততম ডাবল সেঞ্চুরি। গত এপিলে বিসিএলে ইস্ট জোনের হয়ে সেন্ট্রাল জোনের বিপক্ষে ক্যারিয়ার সেরা ২৭৪ রানের ইনিংস খেলার পথে লিটন ডাবল ছুঁয়েছিলেন ১৯৩ বলে। বাংলাদেশের আর কোনো ব্যাটসম্যানের দুইশ বলের নিচে ডাবল সেঞ্চুরি নেই। ২২৯ বলে ডাবল সেঞ্চুরি করে তালিকায় তিনে আছেন মোসাদ্দেক হোসেন।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১০ অক্টোবর ২০১৮/পরাগ

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge