ঢাকা, রবিবার, ৮ বৈশাখ ১৪২৬, ২১ এপ্রিল ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

বরিশালের ২১ আসনে মহাজোট প্রার্থী বিজয়ী

জে.খান স্বপন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-১২-৩১ ১০:১৬:০৫ এএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১২-৩১ ১০:১৬:০৫ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বরিশাল বিভাগের ২১টি সংসদীয় আসনের ২১টিতেই মহাজোটের প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। এর মধ্যে তিনটি আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী লাঙ্গল ও এক আসনে জেপির বাইসাইকেল প্রতীকের প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। বাকি ১৭টি আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।

বরিশাল-১ আসনে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ। প্রাপ্ত ফলাফলে নৌকা প্রতীকে হাসানাত পেয়েছেন ২ লাখ ৫ হাজার ৫০২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকে জহির উদ্দিন স্বপন পেয়েছেন ১ হাজার ৩০৫ ভোট।

বরিশাল-২ (বানারীপাড়া-উজিরপুর) আ্সনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. শাহে আলম নৌকা প্রতিকে রেকর্ড সংখ্যক ২ লাখ ১২ হাজার ৫১১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে অভূতপূর্ব বিজয় অর্জন করেছেন।

বরিশাল-৩ আসনে লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। লাঙ্গল প্রতীকে গোলাম কিবরিয়া টিপু পেয়েছেন ৫৪,৫৬৫ ভোট। বিএনপির প্রার্থী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদিন পেয়েছেন ৪৭,২৩৫ ভোট এবং নৌকা প্রতীকের শেখ মো. টিপু সুলতান পেয়েছে ১৮,১৯৬ ভোট।

বরিশাল-৪ (মেহেন্দিগঞ্জ-হিজলা) আসনে দ্বিতীয়বারের মতো বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী পঙ্কজ নাথ। তিনি পেয়েছেন ২ লাখ ৪০ হাজার ৩৫০ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষের প্রার্থী নূরুর রহমান জাহাঙ্গীর পেয়েছেন ৯ হাজার ১৯ ভোট ও ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী সৈয়দ মুহাম্মদ নূরুল করিম পেয়েছেন ৭ হাজার ৮৯৪ ভোট।

এই আসনে দুপুরের মধ্যে ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থীসহ ইসলামী আন্দোলন ও খেলাফত আন্দোলনের প্রার্থী নানা অভিযোগে নির্বাচনী মাঠ ত্যাগ করেন। পঙ্কজ নাথ এ আসনের বর্তমান সাংসদ ছিলেন। এবার তিনি দ্বিতীয়বারের মতো নির্বাচিত হলেন।

বরিশাল-৫ আসনে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী কর্নেল জাহিদ ফারুক শামীম। তিনি পেয়েছেন ২ লাখ ১৫ হাজার ৮০ ভোট। এ আসনে বিএনপি প্রার্থী অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার পেয়েছেন ৩১ হাজার ৩৬২ ও হাতপাখার প্রার্থী পেয়েছেন ২৭ হাজার ৬২ ভোট।

বরিশাল-৬ (বাকেরগঞ্জ) আসনে মহাজোটের প্রার্থী রত্মা আমিন নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ১ লাখ ৫৯ হাজার ৩৯৮ ভোট। এ ছাড়া, এই আসনে হাতপাখার প্রার্থী পেয়েছেন ১৪ হাজার ৮৪৫ ভোট এবং ধানের শীষের প্রার্থী পেয়েছেন ১৩ হাজার ৬৫৮ ভোট।

ঝালকাঠি-১ আসনে নৌকার প্রার্থী বজলুল হক হারুন ১ লাখ ৩১ হাজার ৫২৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী ধানের শীষের ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর পেয়েছেন ৬ হাজার ১৫১ ভোট।

ঝালকাঠি-২ আসনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আমির হোসেন আমু বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছে। তিনি পেয়েছেন ২ লাখ ১৪ হাজার ৯৩৭ ভোট।

ভোলা-১ (সদর) আসনে ১১৩টি ভোটকেন্দ্রের বেসরকারি ফলাফলে নৌকার প্রার্থী তোফায়েল আহমেদ ২ লাখ ৪২ হাজার ২১৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী গোলাম নবী আলমগীর ৭ হাজার ২২৪ ভোট পেয়েছেন। তোফায়েল আহমেদ এ নিয়ে আটবার সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হলেন।

ভোলা-২ (বোরহানউদ্দিন-দৌলতখান) আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী আলী আজম মুকুল পেয়েছেন ২ লাখ ২৬ হাজার ১২৪ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির হাফিজ ইব্রাহিম পেয়েছেন ১৩ হাজার ৯৯৯ ভোট।

ভোলা-৩ (লালমোহন-তজুমদ্দিন) আসনের বেসরকারি ফলে আওয়ামী লীগ প্রার্থী নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন বিজয়ী হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ২ লাখ ৫০ হাজার ৪১১ ভোট। তার নিকটতম প্রার্থী ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মাওলানা মো. মোসলে উদ্দিন। তিনি পেয়েছেন ৪ হাজার ৫৫ ভোট। এখানে বিএনপি প্রার্থী মেজর অব হাফিজ উদ্দিন পেয়েছেন ২ হাজার ৫০২ ভোট।

ভোলা-৪ (চরফ্যাশন-মনপুরা) আসনে নৌকার প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব পেয়েছেন দুই লাখ ৯৯ হাজার ১৫০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী অ্যাডভোকেট মহিবুল্লাহ পেয়েছেন ৬ হাজার ২২২ ভোট। এখানে বিএনপির নাজিম উদ্দিন আলম পেয়েছেন ৫ হাজার ৪৭ ভোট। এ নিয়ে আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলেন।

বরগুনা-১ (সদর-আমতলী-তালতলী) আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু ৩ লাখ ১৭ হাজার ৬৪০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের বিএনপি প্রার্থী আলহাজ মো. মতিয়ার রহমান তালুকদার পেয়েছেন ১৫ হাজার ৪৪৪ ভোট পেয়েছেন। তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে হাতপাখা প্রতীকের ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মাওলানা মো. মাহমুদুল হোসাইন ওলিউল্লাহ। তার প্রাপ্ত ভোট ১৪ হাজার ২১৪ ভোট।

বরগুনা-২ আসনে ২ লাখ ৩২৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী শওকত হাচানুর রহমান রিমন।

পিরোজপুর-১ আসনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী শ ম রেজাউল করিম। তার ধারের কাছে নেই ধানের শীষ বা হাতপাখার প্রার্থী। পিরেজপুর-১ আসনে মোট-১৯৩টি কেন্দ্রে ৪ লাখ ১৮ হাজার ৯৭৪ ভোট। এর মধ্যে শ ম রেজাউল করিম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বিজয়ী হয়েছেন ৩ লাখ ৩৭ হাজার ৫৯৪ ভোটে। এ ছাড়া, শামীম সাঈদী বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) পেয়েছেন ৯ হাজার ২৭১ ভোট।

পিরোজপুর-২ আসনে মহাজোট মনোনীত প্রার্থী জাতীয় পার্টির (জেপি) চেয়ারম্যান বিজয়ী হয়েছে। ১ লাখ ৭৯ হাজার ৪৮৮ ভোট পেয়ে  মহাজোট মনোনীত প্রার্থী জাতীয় পার্টি জেপি চেয়ারম্যান আনোয়ার মঞ্জু বাইসাইকেল প্রতীক নিয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বিী ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে লেবার পার্টি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান পেয়েছেন ৬ হাজার ৩৮৪ ভোট।

পিরেজপুর-৩ আসনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী রুস্তম আলী ফরাজী। তার ধারে কাছে নেই ধানের শীষ বা হাতপাখার প্রার্থী। এর মধ্যে রুস্তম আলী ফরাজী জাতীয় পার্টি (জাপা) বিজয়ী ১ লাখ ৩৫ হাজার ৩১০ ও রুহুল আমীন দুলাল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) পেয়েছেন ৭ হাজার ৬৯৮ ভোট।

পটুয়াখালী-১ আসনে ২ লাখ ৭০ হাজার ৯৭০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী শাহজাহান মিয়া।

পটুয়াখালী-২ আসনে ১ লাখ ৮৫ হাজার ৭৮৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী আ স ম ফিরোজ।

পটুয়াখালী-৩ (গলাচিপা-দশমিনা) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার ভাগ্নে এস এম শাহজাদা সাজু জয়ী হয়েছেন। ২ লাখ ১৫ হাজার ৫৬৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী গোলাম মাওলা রনি পেয়েছেন ৬ হাজার ১৭৬ ভোট।

পটুয়াখালী-৪ আসনে ১ লাখ ৮৮ হাজার ৮১২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের মুহিব্বুর রহমান মুহিব।




রাইজিংবিডি/বরিশাল/৩১ ডিসেম্বর ২০১৮/জে. খান স্বপন/সাইফুল

Walton Laptop
     
Walton AC
Marcel Fridge