ঢাকা, রবিবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, ২৮ মে ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

জঙ্গিবাদ নিয়ে রহস্য দেখছে বিএনপি

রেজা পারভেজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৩-১৬ ২:৫৪:৪৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৩-২১ ৪:২১:৫৮ পিএম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : জঙ্গিবাদের ঘটনাগুলোর সুষ্ঠু তদন্ত হচ্ছে না, দাবি করে বিএনপি বলছে, এ ঘটনায় যাদের ধরা হচ্ছে তাদের বিচার না করে ‘হত্যা করায়’ রহস্য থেকে যাচ্ছে।

এর মাধ্যমে সরকার ইস্যু তৈরি করে রাজনৈতিক ফায়দা নিচ্ছে বলেও অভিযোগ দলটির।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা জানানো শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এই মন্তব্য করেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নতুন কমিটি ঘোষণার পর জেলার সর্বস্তরের নেতা-কর্মী দলের প্রতিষ্ঠাতার কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাতে আসেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ প্রতিষ্ঠিত করার জন্য একটি মহল কাজ করছে। আমাদের কাছে মনে হচ্ছে, জঙ্গিবাদের বিষয়গুলো সুষ্ঠুভাবে তদন্ত হচ্ছে না। জঙ্গিবাদের অভিযোগে এখন পর্যন্ত যারা গ্রেপ্তার হয়েছে তার মধ্যে কম সংখ্যক অভিযুক্তকেই বিচারের আওতায় আনা হয়েছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় তাদের বিচারাধীন থাকা অবস্থায় হত্যা করা হচ্ছে। এজন্য কিছুটা রহস্য থেকে যাচ্ছে।’

বিএনপি মহাচিব বলেন, ‘জঙ্গিবাদ নিয়ে সরকারের যে দাবি এবং সেই সঙ্গে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর দাবি, তার মধ্যে অনেক ফারাক রয়ে যাচ্ছে। এমনকি সরকারের যে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান রয়েছে অর্থাৎ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যেমন- পুলিশ, র‌্যাব ও যে টেররিস্ট সেল করা হয়েছে, তাদের বক্তব্য পরস্পর সামঞ্জস্য নেই এবং সাংঘর্ষিক বক্তব্য। সেজন্য এটি গোটা জাতির কাছে রহস্যাবৃত যে, আসলে জঙ্গিবাদের ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত হচ্ছে কি না এবং একে নির্মূল করতে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে কি না।’

সরকার জঙ্গিবাদ নির্মূলে বিএনপির জাতীয় ঐক্যের ডাকে সাড়া না দিয়ে এই ইস্যুকে ব্যবহার করে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল করতে চায় বলেও এ সময় মন্তব্য করেন তিনি।

এক প্রশ্নের উত্তরে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই একটি ইস্যু যখন সামনে চলে আসে যা জনগণের স্বার্থকে বিঘ্নিত করে, তখন আরেকটি ইস্যু তৈরি করে তা ধামাচাপা দিতে চায়। এটা আওয়ামী লীগের হীন কৌশল। কিন্তু জনগণ সচেতন, সঠিক সময়ে সঠিকভাবে জবাব দেবে বলে বিশ্বাস করি।’

প্রধানমন্ত্রী সরকারি সকল সুযোগ-সুবিধা ভোগ করে জনসভা করে নৌকায় ভোট চাচ্ছেন অভিযোগ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘এটি নির্বাচনী আচরণবিধির লঙ্ঘন। তবে এতে আমরা খুব বেশি আশ্চর্য হয়নি। কারণ আওয়ামী লীগের চরিত্র হচ্ছে সরকারে থেকে সুযোগ নিয়ে নির্বাচন করতে চায়। বিরোধী দলকে নির্বাচন থেকে দূরে রেখে নির্বাচন করতে চায়, যেটা ২০১৪ সালে করেছে। কিন্তু এবার করা সম্ভব হবে না, জনগণ মেনে নেবে না।’

বিএনপি সব সময় নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের মাধ্যমেই বিএনপি ক্ষমতার পরিবর্তন চায়।’

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতার কবরে শ্রদ্ধা জানানো শেষে নেতা-কর্মীরা গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের শপথ নিয়েছে জানিয়ে দলটির এই মহাসচিব বলেন, ‘আওয়ামী লীগ যে গণতন্ত্রকে হরণ করেছে সেই গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করার জন্য সংগ্রাম চালিয়ে যাবে বলে নেতা-কর্মীরা শপথ নিয়েছে। বিজয় না হওয়া পর্যন্ত অব্যাহত তা রাখবে।’

এ সময় নারায়ণগঞ্জ বিএনপির বিভিন্ন স্তরের নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৬ মার্চ ২০১৭/রেজা/সাইফুল

Walton Laptop