ঢাকা, বুধবার, ৪ মাঘ ১৪২৪, ১৭ জানুয়ারি ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

‘ধমক দিয়ে নির্বাচন ঠেকানো যাবে না’

নৃপেন রায় : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১২-২৮ ৫:১২:১৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-০১ ১:০৪:১৬ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম বিএনপির উদ্দেশে বলেছেন, ধমক দিয়ে কিছু হবে না। নির্বাচন ঠেকানোর ক্ষমতা তোমাদের নাই।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা মহানগর নাট্যমঞ্চে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ আয়োজিত বিজয় দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে বঙ্গবন্ধু এবং আওয়ামী লীগের অবদান তুলে ধরে শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা কোনো মেজর বা কর্নেলের ডাকে আসে নাই। এক মহান নেতা আত্মত্যাগ এবং বাংলার মাটি ও মানুষের ভালবাসা নিয়ে তিনি ধীরে ধীরে আমাদেরকে বাঙালি জাতীয়বাদের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করেছেন। বঙ্গবন্ধুর একক নেতৃত্ব, ত্যাগ, দেশপ্রেম ও দুরদর্শিতার মনোভাব ছিল বলেই বাঙালি জাতির স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে। তার মতো মহান নেতা পাওয়া খুব কঠিন।

১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরবর্তী দুঃশাসনের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সমস্ত অর্জন ধ্বংস করে দেওয়া হয়। জিয়াউর রহমান যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বন্ধ করে ক্ষমা করে দেয়।

একাত্তরের পরাজিত শক্তি এবং আন্তর্জাতিক শক্তি মিলে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে, এ দাবি করে বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে শেখ সেলিম বলেন, বিশ্বের কোথাও এমন নজির নেই- পরাজিত শক্তিকে রাজনীতি করার সুযোগ দেওয়া হয়। তাদের বেঁচে থাকাই দূরুহ হয়ে যায়। দ্বিতীয় মহাযুদ্ধের পরাজিত শক্তির এখনো বিচার করা হচ্ছে। বাংলাদেশকে পাকিস্তান বানানোর জন্য যা যা করা দরকার তার সব করেছেন জিয়াউর রহমান। এই বাঙালি জাতির যদি কেউ সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করে থাকে তাহলে সেটা জিয়াউর রহমান করেছে।

শেখ সেলিম বলেন, এখন গণতন্ত্র, গণতন্ত্র বলে চিৎকার করো? কোথায় ছিল গণতন্ত্র তোমাদের? বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে জিয়াউর রহমান সামরিক শাসন জারি করেছিলেন। তার দল কয় গণতন্ত্র। ওই ক্যান্টনমেন্টের গণতন্ত্র আর বাংলাদেশে হবে না। ওই গণতন্ত্রের স্বপ্ন দেখো না। তোমরা আইনের শাসন বরবাদ করেছ, যাতে অপরাধ করলে তোমাদের বিচার না হয়। যার জন্য আজকে বলো দুর্নীতির মামলার বিচারে খালেদা জিয়ার শাস্তি হলে এ দেশে নির্বাচন করতে দেবে না। এ দেশের বিচার বিভাগ স্বাধীন। ধমক দিয়ে কোনো কিছু হবে না। আইনের দৃষ্টিতে যেটা হবে, বিচারের বিবেক যেটা ভালো মনে করবে, সেই রায়ই হবে। তোমরা রাজনীতি করো আর না করো, তোমাদের নির্বাচন ঠেকাবার ক্ষমতা নোই।

তিনি আরো বলেন, এই বিএনপির সময় আমাদের বাজেট ৭৫ থেকে ৮০ শতাংশ বৈদেশিক সাহায্য এবং ঋণের ওপর নির্ভর ছিল। আর আজকে বাজেটের ৯২ শতাংশ আমাদের। বাকি ৮ শতাংশ ওরা (সামরিক শাসকরা) যে ঋণ গ্রহণ করেছে সেটা পরিশোধ করতে হয়। বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার সাড়ে তিন বছরে একটি টাকাও বিদেশ থেকে ঋণ নেয় নাই। কিন্তু হাজার হাজার, লাখ লাখ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে দুই সামরিক শাসক ঋণের বোঝা বাড়িয়েছে। বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল হয়েছে, যা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি পেয়েছে।

এই ধারা অব্যাহত রাখতে যুবলীগ নেতাদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান শেখ ফজলুল করিম সেলিম।

যুবলীগ নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে শেখ সেলিম বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করতে হলে শেখ হাসিনা ছাড়া কোনো বিকল্প নাই। শেখ হাসিনা গণতন্ত্র, মানবতা, উন্নয়ন এবং স্বাধীনতার প্রতীক। তাকে আমাদের ধরে রাখতে হবে। এজন্য যুবলীগকে ঐক্যবদ্ধভাবে আগামী যেকোনো নির্বাচনে যেকোনো অপশক্তির ষড়যন্ত্র, নাশকতা ও অরাজকতার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শহীদ সেরনিয়াবাত, মজিবুর রহমান চৌধুরী, আনোয়ারুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ, সংগঠনের মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট, উত্তরের সভাপতি মাইনুল হোসেন খান নিখিল, সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন প্রমুখ।

সভা পরিচালনা করেন যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমান।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৮ ডিসেম্বর ২০১৭/নৃপেন/রফিক

Walton
 
   
Marcel