ঢাকা, বুধবার, ৪ মাঘ ১৪২৪, ১৭ জানুয়ারি ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

‘প্রমাণ হয়েছে এই ইসির অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না’

রেজা পারভেজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১২-২৯ ৫:২৯:০৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-০১ ১:০৩:২৬ পিএম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : বৃহস্পতিবার দেশের বেশ কয়েকটি স্থানে অনুষ্ঠিত স্থানীয় নির্বাচনে ক্ষমতাসীনদের বিরুদ্ধে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ তুলে বিএনপি বলেছে, ‘প্রমাণ হয়েছে, এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়।’

শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী নির্বাচনের পর্যবেক্ষণ তুলে ধরে বলেন, ‘বৃহস্পতিবার আমরা আবারো সেই রক্তাক্ত জালভোটের মহোৎসব দেখলাম। কেন্দ্র দখল করে আগের রাতে ব্যালট বাক্স ভরে রাখা, প্রার্থী, নির্বাচনী এজেন্ট, সমর্থক ও ভোটারদের মারধর করে, সশস্ত্র হামলা করে কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়ে প্রকাশ্যে ভোট দেওয়া, প্রিজাইডিং অফিসার ও নির্বাচনী কর্মকর্তরা প্রকাশ্যে সিল মারেন।’

‘এ নির্বাচনের মাধ্যমে আবারো প্রমাণ হলো বর্তমান সিইসি নুরুল হুদার অধীনে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না। তিনি যতই অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের কথা বলুন না কেন, সেটি জনগণের সঙ্গে ধাপ্পাবাজি ছাড়া কিছুই নয়। তিনি আওয়ামী সরকারের ছায়াঘেরা পথেই হেঁটে নির্বাচন পরিচালনায় নিজ প্রভুদের খুশি করবেন। এর বাইরে তিনি যেতে পারবেন না।’

রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের এই সংবাদ সম্মেলন রিজভী বলেন, ‘এসব নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী সশস্ত্র ক্যাডারদের পুরানো তাণ্ডব আবারো ফুটে ওঠেছে। রকিব মার্কা নির্বাচনের পুনরাবৃত্তি হলো, সেই ভয়াবহ দৃশ্যই গতকালের নির্বাচনে দেখা গেল।’

তিনি বলেন, ‘সাংবাদিকরা তাণ্ডবের ছবি তুলতে গেলে ক্যামেরা ভাঙচুরসহ সাংবাদিকদের বেধড়ক মারধর করে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা। প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া দিয়ে ভোটকেন্দ্র দখল করে আগের রাতেই বাক্স ভরে রাখা, সকাল ১০টার আগেই ভোট শেষ হয়ে যাওয়া, ব্যালট পেপার ছিনতাই, বিএনপি প্রার্থীর এজেন্ট ও ভোটারদের মারধর করে কেন্দ্র থেকে বের করে জাল ভোটের মহোৎসব, প্রকাশ্যে সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারসহ নির্বাচনী কর্মকর্তাদের জাল ভোট প্রদান, হামলা, ভাঙচুরসহ নানা তাণ্ডব চলে নির্বাচনী এলাকাগুলোতে।’

এসবের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ না নিয়ে নির্বাচন কমিশন ক্ষমতাসীনদের পক্ষ নিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন রিজভী।

‘সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া দূরে থাক, নির্বাচনী পরিবেশ তৈরি দূরে থাক, তারাও ক্ষমতাসীন দলকে বিজয়ী করতে প্রকাশ্যে অবস্থান নেয়। প্রধান নির্বাচন কমিশনারের অধীনে যেকোনো নির্বাচনই ইতিহাসে কলঙ্কমাখা নির্বাচনের স্মারক হয়ে থাকবে। কে এম নুরুল হুদা সাহেবকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার পদে বসানো হয়েছে শুধু জনগণকে কোণঠাসা করে ভোট কেন্দ্র সরকারি সন্ত্রাসীদের কাছে ইজারা দিতে,’ বলেন বিএনপির এই নেতা।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আদারতে হাজিরা দেওয়াকে কেন্দ্র করে রাজপথে উপস্থিত হওয়া নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার করায় এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান রুহুল কবির রিজভী। একইসঙ্গে তাদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৯ ডিসেম্বর ২০১৭/রেজা/সাইফুল

Walton
 
   
Marcel