ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ শ্রাবণ ১৪২৪, ২০ জুলাই ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

পোল্ট্রি ফার্ম গড়ে সফল এক নারী

মামুন চৌধুরী : রাইজিংবিডি ডট কম
প্রকাশ: ২০১৭-০৫-২৭ ১২:০০:৫৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৫-৩১ ২:৪৫:১৩ পিএম

মো. মামুন চৌধুরী, হবিগঞ্জ : কেবল পুরুষই নন, নারীরাও যে পোল্ট্রি ফার্ম গড়ে সাফল্য কুড়িয়ে আনতে পারেন তার জলজ্যান্ত উদাহরণ বাহুবল উপজেলার কাইতপাড়া এলাকার আঙ্গুরা খাতুন।

আঙ্গুরা খাতুনের বয়স ৪৫ বছর। অভাব অনটন লেগেই ছিল তার ৫ সন্তানসহ ৭ জনের পরিবারে। ছেলে-মেয়ে, স্বামী-সংসার নিয়ে চোখেমুখে অন্ধকার দেখছিলেন।

কি করে অভাব দূর কববেন, তিনি ভেবে পাচ্ছিলেন না। ভরসা করতে পারছিলেন না স্বামী আনোয়ার খানের উপরও। নিজেই কিছু একটা করার কঠিন সিদ্ধান্ত নিলেন। প্রথমেই সমস্যা দেখা দিল টাকার। ন্যূনতম প্রয়োজনীয় টাকাটাও জোগাড় হচ্ছিল না। শেষে উপায় মিলল। শায়েস্তাগঞ্জ পুরানবাজার এলাকায় অবস্থিত একটি এনজিও থেকে ঋণ পেলেন। এ অর্থে বাড়িতেই গড়ে তুললেন পোল্ট্রি ফার্ম। ছোট এ পোল্ট্রি ফার্ম দিন দিনই প্রসার হচ্ছে।

আলাপকালে আঙ্গুরা খাতুন তার সাফল্যের সে গল্পই শোনালেন।

তিনি বলেন, ‘অভাবকে জয় করতে আমি পোল্ট্রি ব্যবসা শুরু করেছি। প্রথমে এনজিও থেকে ৭০ হাজার টাকা পরে দুই লাখ টাকা ঋণ গ্রহণ করি। ফার্মের মোরগ বিক্রি থেকে প্রতি চালানে ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা লাভ হচ্ছে। ঘুম খাওয়া ছাড়া বাকী সময়টা এ পোল্ট্রি ব্যবসায় ব্যয় করছি।

পোল্ট্রির আয়ে তিনি শায়েস্তাগঞ্জের ওলিপুর শিল্প এলাকায় বাসার জমি ও অটোরিক্সা সিএনজি ক্রয় করেছেন। নিজেদের  জমিতে সবজির আবাদও করছেন। পরিবারের সবাই এখন এসব নিয়ে ব্যস্ত দিন কাটাচ্ছে। এখন আর অভাব নেই তাদের।

তিনি জানান, মেয়ে বিয়ে দিয়েছেন। ছেলেকেও বিয়ে করিয়েছেন।  সুন্দরভাবে পরিবার নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। লাভজনক বলেই পোল্ট্রি ব্যবসার প্রসার ঘটাচ্ছেন।  এ ব্যবসাকে তিনি অনেক দূর এগিয়ে নিতে চান।  দুঃসময়ে এনজিওটি ঋণ দিয়ে সাহায্যের হাত না বাড়ালে হয়তো আমার সাফল্যের গল্প আজ এতদূর এগুতো না।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. ইসহাক মিয়া বলেন, আমাদের পক্ষ থেকে নারী ও পুরুষদের মাঝে হাঁস-মুরগী গবাদী পশুর ওপর প্রশিক্ষণ দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। আমরা আঙ্গুরাদের মতো কর্মঠদেরই খুঁজে বেড়াই। তাদের জন্য আমাদের প্রশিক্ষণ ও সহযোগিতার দ্বার উন্মুক্ত।

ঋণদাতা সংস্থাটির শায়েস্তাগঞ্জ এলাকার এরিয়া ম্যানেজার মো. মোমিনুল ইসলাম বলেন, আঙ্গুরা খাতুন একজন সাহসী নারী। এ নারী সৎ ও পরিশ্রমী। সে আমাদের কাছ থেকে ক্ষুদ্র ঋণ নিয়ে পোল্ট্রি ফার্ম গড়ে তুলে সফল হয়েছে, এটা আমাদের জন্যও গর্ব ।



রাইজিংবিডি/হবিগঞ্জ/২৭ মে ২০১৭/মামুন চৌধুরী/টিপু

Walton Laptop