ঢাকা, রবিবার, ১২ চৈত্র ১৪২৩, ২৬ মার্চ ২০১৭
Risingbd
মার্চ
সর্বশেষ:

শারীরিক সুস্থতায় সাঁতার

আফরোজা জাহান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৩-০৬ ৮:১১:৪৭ এএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৩-০৬ ১১:৩২:০০ এএম
প্রতীকী ছবি

আফরোজ জাহান : সাঁতার শরীর ও মনের সুস্থতায় অনেক বড় ভূমিকা পালন করে। যেহেতু সাঁতার কাটলে শরীরের সকল অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সচল থাকে তাই একে সবচেয়ে ভালো ব্যায়াম বলা হয়।

চিকিৎসকদের মতে, সাঁতার একজন মানুষ অনেক রোগের আশংকা থেকে মুক্ত রাখতে পারে।

এ প্রতিবেদনে থাকছে সাঁতারের উপকারিতা, সাঁতার কাটার উপযোগী সময় এবং সাবধানতা নিয়ে।

সাঁতারের উপকারিতা:

* সাঁতার ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বাড়ায়। শ্বাস-প্রশ্বাসের প্রক্রিয়াকে স্বাভাবিক রাখে।

*  উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস রোগীর জন্য সাঁতার অনেক বেশি কার্যকর।

* সাঁতার শরীরের বাড়তি চর্বি ঝরাতে সাহায্য করে। তাই সাঁতার কাটলে ওজন কমে।

* শরীরের জয়েন্টে জয়েন্টে ব্যথা দূর করতে সবচেয়ে ভালো ও বিকল্প ব্যায়াম হচ্ছে, সাঁতার।

* শিশুদের হাঁপানির সমস্যা সাঁতার কাটলে কমে যায়।

* নিয়মিত সাঁতার কাটলে ঘুমের মাঝে নাক ডাকার সমস্যা দূর হয়। এবং ঘুমের মাঝে মুখ দিয়ে শ্বাস নিবার প্রবণতা কমে যায়।

* পেশির দক্ষতা ও শক্তি বৃদ্ধি করে।

* দেহের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়।

* শরীরের পানি ধরে রাখে।

* কোমরব্যথা কমাতে সাঁতার অনেক সহায়ক।

* যাদের আর্থ্রাইটিস ও স্পডালাইটিসের সমস্যা রয়েছে, তাদের জন্য সাঁতার অনেক উপকারী।

* হৃদপিন্ডে চর্বি জমা বা ব্লকের সমস্যা হওয়ার আশংকা কমায়।

সাঁতার কাটার সময় :

সাঁতার যেকোনো সময় কাটা যায়। কিন্তু সাঁতার কাটার সবচেয়ে ভালো সময় হচ্ছে, সকাল। প্রতিদিন সকালে এক ঘণ্টা সাঁতার কাটতে পারলে শরীরকে নানা রোগের আশংকা থেকে দূরে রাখা যায়। যদি এক ঘণ্টা সময় না থাকে তবে ২০ থেকে ৩০ মিনিট সাঁতার কাটতে চেষ্টা করুন।

গরমের সময় সকালে ৩০ মিনিট সন্ধ্যায় ৩০ মিনিট সাঁতার কাটতে পারেন। শরীরের ব্যায়াম যেমন হবে মন ও সতেজ থাকবে। দুশ্চিন্তা থেকে কিছুটা হলেও মুক্তি পাওয়া যাবে।

চিকিৎসকদের মতে, যারা সপ্তাহে আড়াই ঘন্টাও সাঁতার কাটে তারা ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ হবার হাত থেকে অনেকাংশে মুক্ত থাকে।

সাবধানতা:

* খুব বেশি টাইট বা ঢিলেঢালা পোশাক পড়ে সাঁতার না কাটাই ভালো।

* সাঁতার কাটার আগে কোনোভাবেই ভারী খাবার খাওয়া উচিত না। পানীয় খাবার (পানি, জুস, ডাবের পানি, বেশি হলে সুপ্য) খেতে পারেন।

* কড়া রোদের মাঝে সাঁতার না কাটাই ভালো।

* সুইমিং পুলে সাঁতার কাটলে সাঁতারের জন্য তৈরি বিশেষ চশমা আর মাথায় ক্যাপ পড়ে নেওয়া উচিত। সুইমিং পুলের পানিতে প্রচুর পরিমাণ ক্লোরিন থাকে।

* সাঁতার হৃদরোগের ঝুঁকি কমায় ঠিক আছে কিন্তু যাদের আগে থেকেই হৃদরোগ আছে তারা সাঁতার কাটার কথা ভাবলে ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে নিন।

* অন্য কোনো স্বাস্থ্যগত সমস্যা থাকলেও ডাক্তারের সঙ্গে একবার পরামর্শ করে নেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

* স্বাস্থ্য বিবেচনায় সবাই সব ধরনের পদ্ধতিতে সাঁতার কাটতে পারবে না। তাই প্রশিক্ষকের সঙ্গে কথা বলে জেনে নিন, কোন পদ্ধতি আপনার স্বাস্থ্যের জন্য বেশি কার্যকর।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/৬ মার্চ ২০১৭/ফিরোজ

Walton Laptop