ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২১ নভেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

ঘরেই করুন জিরা পানি

আফরোজা জাহান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৩-০৭ ১০:৫৪:৫৪ এএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৩-০৮ ৫:১৫:১২ পিএম
প্রতীকী ছবি

আফরোজা জাহান : প্রাচীনকাল থেকেই খাদ্যের স্বাদ, গন্ধ বাড়াতে জিরার জুড়ি মেলা ভার। তবে জিরা শুধু খাবারের স্বাদ বাড়ায় না, পাশাপাশি এর আছে নানাবিধ ভেষজগুণ। আয়ুর্বেদ শাস্ত্রেও জিরা ও এর গুণ সম্পর্কে অনেক কথাই লিখা আছে, জিরা পানির কথাও উল্লেখ আছে। আসুন জেনে নিই জিরা ও জিরা পানির গুণাগুণ।

* জিরা দেহের মেটাবলিজম বৃদ্ধি করে।

* জিরা শরীর থেকে টক্সিন দূর করতে সাহায্য করে।

* জিরা পানি খাবারের রুচি কমিয়ে দেয়। তাই ওজন কমাতে, ডায়েটে ১ গ্লাস জিরা পানি সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

* যাদের কোষ্ঠকাঠিন্য এর সমস্যা আছে, তারা সকালে খালি পেটে চিনির বদলে মধু দিয়ে জিরা পানি পান করলে কোষ্ঠকাঠিন্য এর সমস্যা দূর হবে।

* জিরায় আয়রন আর কিছু মিনারেল আছে। প্রতিদিন সকাল সন্ধ্যায় দুই গ্লাস জিরা পানি পান করলে রক্তে হিমোগ্লোবিন এর অভাব এর জন্য সৃষ্ট রক্তশূন্যতা কমবে।

* জিরায় আছে থাইমেল নামক উপাদান। যা পাকস্থলীর শক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

* হজম শক্তি বৃদ্ধিতে জিরার জুড়ি মেলা ভার। তাই তেল-মসলা জাতীয় খাবার খাওয়ার পর বাজারের কোল্ডড্রিংস না খেয়ে ফ্রিজে রাখা বা বরফকুচি দিয়ে জিরা পানি খেতে পারেন। এতে হজম ও ভালো হবে, অতিথি বা ঘরের মানুষের মনও জুড়াবে।

* ঠান্ডায় গলা ব্যথা হলে, চায়ের মতো করে গরম জিরা পানি খান। বা গড়গড়া করুন। আরাম পাবেন।

 

জিরা পানি তৈরির পদ্ধতি :

১। আধা লিটার পানিতে এক চামচ জিরা নিন। ইচ্ছে করলে জিরা গুঁড়া করে নিতে পারেন। সাশ্রয় হবে।

২। ১০-১৫ মিনিট ভালো মতো ফুটিয়ে ঠান্ডা করে নিলেই হয়ে গেল জিরা পানি।

৩। কিন্তু এভাবে খেলে কোনো স্বাদ লাগবে না। তাই স্বাদ বাড়াতে পরিমাণ মতো লবণ, চিনি বা মধু, লেবুর রস দিন।

৪। ইচ্ছে করলে তেতুঁল এর টক ও বিট লবণ দিতে পারেন। স্বাদ আরো বেড়ে যাবে।

৫। পরিবেশনের আগে ফ্রিজে রেখে দিন বা বরফকুচি মেশাতে পারেন। বরফকুচি মেশালে লবণ বা চিনির পরিমাণ আরেক বার দেখে নিতে পারেন।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/৭ মার্চ ২০১৭/ফিরোজ

Walton
 
   
Marcel