ঢাকা, শুক্রবার, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

নতুন সুপারফুড মাশরুম কফি

ইয়ামিন আরচুভ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৬-২১ ১১:২০:৫৮ এএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৭-০২ ২:৫৪:১৩ পিএম

ইয়ামিন (আরচুভ) : নতুন সুপারফুড হতে পারে মাশরুম কফি, দাবী এই কফি প্রস্তুতকারক ফোর সিগমেটিক কোম্পানির।

এই ফিনিশ কোম্পানির লক্ষ্য হল উচ্চ পুষ্টিগুণ সম্পন্ন খাদ্যদ্রব্য সস্তায় জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়া। উচ্চপুষ্টিগুণ সম্পন্ন খাদ্য উৎপাদনের জন্য তারা মাশরুম চাষকেই বেশি প্রাধান্য দেন। তাই বলে তারা কাঁচা মাশরুম আপনার মগের মধ্যে দিয়ে দিবেন না। ফোর সিগমেটিক কোম্পানি মাশরুমকে কফির মিশ্রণে ব্যবহার করার একটা উপায় বের করেছে।

কফি মিক্স তৈরি করার জন্য তারা একাধিক প্রজাতির মাশরুমকে শুকিয়ে পাউডার করার একটি প্রক্রিয়া বের করেছে। এই কফি পাউডার একাধিক প্রজাতির মাশরুমের হওয়ায় এতে পুষ্টি উপাদান আরো বেশি পরিমানে পাওয়া যায় বলে তারা জানায়। গরম পানির সঙ্গে এই নতুন ঘরানার কফি পাউডার মিক্স করলেই স্বাস্থ্যসম্মত কফি তৈরি হয়ে যাবে।

ফোর সিগমেটিক কোম্পানির দাবী, এক কাপ সাধারণ কফির চেয়ে এই কফির স্বাস্থ্য উপকারিতা অনেক বেশি।

উদাহরণস্বরূপ, মাইটেক মাশরুম দেহের রক্তে সুগার লেভেল ঠিক রাখে এবং সাগা নামের আরেক ধরনের মাশরুম কফির মধ্যে থাকা অ্যাসিডিটি দূর করে, যার দরুন পরিপাকতন্ত্রে হজম প্রক্রিয়া আরো সহজ হয়ে যায়। উভয় মাশরুমের এই গুণাগুণ পাওয়া যাবে ফোর সিগমেটিকের গ্রীন কফি মিক্সে।

ফোর সিগমেটিকের প্রচারিত এই কথাগুলোকে মার্কেটিং এর অংশ মনে হওয়াটাই স্বাভাবিক। তবে হেলথ ম্যাগাজিনের পুষ্টি সম্পাদক সিন্থিয়া শাস বলেন, মাশরুম কফির স্বাস্থ্য উপকারিতার দাবী ভিত্তিহীন নয়। তিনি বলেন, কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, মাইটেক মাশরুম টাইপ-২ ডায়াবেটিস রোগীদের রক্তে গ্লুকোজ কমাতে সাহায্য করে এবং সাগা মাশরুম দেহের হজম প্রক্রিয়াকে ভালো রাখে এবং দেহকে ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস প্রতিরোধক করে তোলে।

তবে এর মানে এটা না যে, পুষ্টি উপাদান এবং সুস্বাস্থ্যের জন্য হঠাৎ করেই আপনি আপনার খাদ্য তালিকা মাশরুম দিয়ে ভরে ফেলবেন। আপন কি খাচ্ছেন না খাচ্ছেন, তা জানার অধিকার আপনারই সবচেয়ে বেশি। শাস বলেন, যেকোনো ধরনের খাবারের কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ও মিথস্ক্রিয়া থাকতে পারে।

ডায়াবেটিস অথবা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য আপনি যদি ওষুধ খেয়ে থাকেন, তাহলে মাইটেক মাশরুম খেতে পারেন, কারণ এই মাশরুম ওষুধের সঙ্গে কাজ করতে পারে। একইভাবে সাগা মাশরুম দেহের অপকারী কোলেস্টোরেলের মাত্রা কমায়, উপকারী কোলেস্টোরেল বাড়ায় এবং বিভিন্ন ধরনের প্রদাহ কমিয়ে দেয়।

তবে এটা ভুললে চলবে না যে, সাগা মাশরুম রক্তের তারল্য সৃষ্টি করে, সুতরাং কোনো অস্ত্রপচারের আগে এই মাশরুম খাওয়া উচিত না। আপনি যদি মাশরুমের ঔষধি গুণাগুণ এবং ব্যবহারবিধি  ঠিক ঠাক না বোঝেন, তাহলে নিশ্চিন্তে কুলিনারি মাশরুম খেতে পারেন।

সাশ বলেন, কুলিনারি মাশরুম সাধারণত সাদা এবং চ্যাপ্টা বোতাম আকৃতির হয় এবং এতে খুব কম ক্যালোরি থাকে। প্রাকৃতিক ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ উদ্ভিদ কুলিনারি মাশরুম। হৃদরোগ, হাড়ের ক্ষয়জনিত সমস্যা এমনকি কিছু ক্যানসার প্রতিরোধে প্রাকৃতিক উদ্ভিদ থেকে পাওয়া ভিটামিন ডি এর ভূমিকা অপরিসীম।

সাধারণভাবে উৎপাদিত মাশরুমগুলোর ধরন ও প্রকারভেদ সম্পর্কে আপনি হয়তো আগ্রহী হয়ে উঠেছেন, কিন্তু ঔষধি গুণাগুণের মাশরুম খাদ্য তালিকায় রাখতে চাইলে তা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী করা উচিত বলে জানান সাশ।

তথ্যসূত্র : হেলথ



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২১ জুন ২০১৭/ফিরোজ

Walton Laptop