ঢাকা, রবিবার, ৬ ফাল্গুন ১৪২৪, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
Risingbd
অমর একুশে
সর্বশেষ:

ধূমপানের ক্ষতি এড়াতে ৩ খাবার অবশ্যই খেতে হবে

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৮-০১-২৪ ৪:৪৫:১৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-২৪ ৪:৪৫:১৮ পিএম
প্রতীকী ছবি

এস এম গল্প ইকবাল : যদি আপনি আপনার ফুসফুসকে রক্ষা করতে চান, আপনাকে অবশ্যই ধূমপান ত্যাগ করতে হবে, কিন্তু ধূমপান বর্জন করা সহজ নয়।

যা হোক, আপনার খাবারও আপনার ফুসফুস রক্ষায় সাহায্য করতে পারে। ইউরোপিয়ান রেসপিরেটরি জার্নালের নতুন একটি গবেষণা অনুসারে, কিছু খাবার ফুসফুসের স্বাস্থ্যোন্নয়নে সহায়তা করতে পারে।

গবেষণায় গবেষকরা অধূমপায়ী, সাবেক ধূমপায়ী ও বর্তমান ধূমপায়ী- মোট ৬৮০ জন লোক থেকে তাদের খাদ্যাভ্যাস সম্পর্কে জানতে চান এবং এরপর তাদের ওপর স্পাইরোমেট্রি সম্পাদন করেন। স্পাইরোমেট্রি হচ্ছে, একটি টেস্ট যা শ্বাসগ্রহণ ও শ্বাসত্যাগের ওপর ভিত্তি করে ফুসফুসের কার্যক্রম পরিমাপ করে। তারপর ১০ বছর পর পুনরায় তাদের ফুসফুস কার্যক্রমের টেস্ট করা হয়। গবেষকরা আবিষ্কার করেন যে, প্রাক্তন ধূমপায়ীরা যত বেশি আপেল, কলা ও টমেটো খেয়েছিল, সে সময়ে তাদের ফুসফুস কার্যক্রমের ক্ষতি তত কম হয়েছিল।

গবেষকরা বলেন, ‘আপেল, কলা ও টমেটো খাওয়া গুরুত্বপূর্ণ। কারণ বয়স্কতা ও ধূমপান হচ্ছে, ফুসফুস কার্যক্রম পতনের জন্য দায়ী সর্বাধিক প্রমাণিত ফ্যাক্টর।’ আপনার ফুসফুস স্বাস্থ্যের জন্য এসব খাবার এত গুরুত্বপূর্ণ কেন? গবেষকরা ধারণা করেন, এটি সম্ভবত এসব খাবারের মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের অনুকূল প্রভাবের ফল হতে পারে।

টমেটো গ্রহণ করুন। টমেটো হচ্ছে লাইকোপিনের সমৃদ্ধ উৎস, এটি একটি অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট যা এয়ারওয়ে ইনফ্ল্যামেশন বা ফুসফুসে বায়ুপ্রবেশ পথের প্রদাহ হ্রাসে সাহায্য করতে পারে, সম্ভবত ফুসফুস স্বাস্থ্যের উন্নতিসাধন করে।

ফ্ল্যাভানয়েড নামে পরিচিত অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টের অন্য একটি শ্রেণীও ফুসফুস স্বাস্থ্যে ভূমিকা রাখতে পারে। অনেক ফল ও শাকসবজিতে এ উপাদান প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়, যা আপনার শ্বাসক্রিয়া সহজ করে প্রদাহ-বিরোধী প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে। এ থেকে বোঝা যেতে পারে যে, আপেল ও কলার সঙ্গে ফুসফুসের ক্ষতি হ্রাসের সম্পর্কের কারণ কি।

ফুসফুসের স্বাস্থ্য সুরক্ষার সঙ্গে টমেটো, কলা ও আপেল খাওয়ার সম্পর্ক, যারা কখনো ধূমপান করেনি তাদের তুলনায় প্রাক্তন ধূমপায়ীদের মধ্যে অধিক প্রমাণিত। গবেষকরা বলেন, ‘এটি ইঙ্গিত করছে যে, এসব অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট ধূমপানের দ্বারা সৃষ্ট ফুসফুস টিস্যুর ক্ষতি উপশম করে ফুসফুস পুনরুদ্ধারে সম্ভাব্য অবদান রাখতে পারে।’

খাবারের সঙ্গে যে ফুসফুস স্বাস্থ্যের সম্পর্ক আছে তা বিজ্ঞানীরা এবারই প্রথম আবিষ্কার করেননি। গত মার্চে বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করেন যে, যেসব লোকেরা সর্বোচ্চ ক্যারোটিনয়েড (কমলা, লাল অথবা হলুদ বর্ণের জন্য দায়ী উদ্ভিদ রঞ্জক পদার্থ) সমৃদ্ধ খাবার বেশি খেয়েছিল তাদের ফুসফুস ক্যানসার বিকশিত হওয়ার সম্ভাবনা কম ছিল এবং এ প্রভাব প্রাক্তন ধূমপায়ীদের মধ্যে আরো বেশি লক্ষ্য করা গেছে। যারা অতীতে ধূমপান ছেড়েছেন এবং সর্বাধিক লাইকোপিন খেয়েছেন তাদের ফুসফুস ক্যানসার ডেভেলপের ঝুঁকি ৫২ শতাংশ কমে গেছে।

তথ্যসূত্র : ম্যান’স হেলথ

পড়ুন : * সিগারেটের নেশা সহজেই ছাড়াবে যেসব খাবার

* ধূমপান ছাড়ার বিজ্ঞানসম্মত উপায়

* ধূমপান ছাড়ার সঠিক উপায়

* হিসাব কষলেই ছাড়তে পারবেন ধূমপান!

* ধূমপানের ক্ষতি যেভাবে কমিয়ে আনা সম্ভব

* যে ১০ খাবার ধূমপায়ীদের অবশ্যই খাওয়া উচিত

* ধূমপান ছাড়ার ১০ কার্যকর উপায়

* ধূমপান ছাড়ার সহজ কৌশল



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৪ জানুয়ারি ২০১৮/ফিরোজ

Walton
 
   
Marcel